৭ শ্রাবণ ১৪২৫, সোমবার ২৩ জুলাই ২০১৮ , ৩:৫৮ পূর্বাহ্ণ

বিতর্কিত পলাশে কুক্ষিগত শ্রমিক লীগ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩৩ পিএম, ১৬ মার্চ ২০১৮ শুক্রবার | আপডেট: ০৭:৪৯ পিএম, ১৮ মার্চ ২০১৮ রবিবার


বিতর্কিত পলাশে কুক্ষিগত শ্রমিক লীগ

নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের কমিটি পাল্টা কমিটি কেন্দ্রে জমা দেয়ার পরে দায়িত্বপ্রাপ্ত শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহাম্মেদ পলাশের কব্জায় ১৩ বছর ধরে ফতুল্লা থানা শ্রমিকলীগের কমিটি রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সভাপতি পদে দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে আসীন রয়েছে। কাউসার আহাম্মেদ পলাশের কারণে ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সম্মেলন হচ্ছেনা বলেও অভিযোগ শ্রমিকলীগের একপক্ষের নেতাকর্মীদের। ফলে এ বিষয়েও দৃষ্টি দেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন জেলা ও মহানগর শ্রমিকলীগের নেতাকর্মীরা।

জানা গেছে, জাতীয় শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির পত্রের নির্দেশ অনুসারে গঠনতন্ত্রের ১৩ (ক) ধারা মোতাবেক নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের গত ২০১৭ সালের ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিটি পদে দ্বিতীয় কোন প্রতিদ্বন্দ্বীতা না আসায় চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারী ৭১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। ১৫ জানুয়ারী বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের বরফকল খেয়াঘাট সংলগ্ন জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের কালচারাল ট্রেনিং সেন্টারে ২০১৮-২০১৯ সালের নির্বাচিত দ্বি-বার্ষিক কালের জাতীয় শ্রমিকলীগ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণা করেন নির্বাচন উপ কমিটির চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিকলীগের সভাপতি হাজী কাজিমউদ্দিন প্রধান। এসময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন উপ কমিটির সদস্য জেলা মহিলা শ্রমিকলীগের আহবায়ক খোদেজা খানম নাসরিন ও জেলা যুব শ্রমিকলীগের সভাপতি একেএম ওবায়দুল হক আরিফ। জাতীয় শ্রমিকলীগ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার ৭১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির সভাপতি পদে জাতীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ ও সেক্রেটারী পদে মাঈনউদ্দিন আহমেদ বাবুল পুণরায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া প্রথম সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকদার।

এদিকে ওই কমিটি গঠনের ৪১ দিন পরে পাল্টা একটি কমিটি কেন্দ্রে জমা দিয়েছে জেলা শ্রমিকলীগের একাংশের নেতারা। গত ২৬ ফেব্রুয়ারী বিকেলে রাজধানী শ্রমিকলীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিকলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি (কার্যকরী সভাপতি) মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টু। ওই সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সেক্রেটারী মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহাম্মেদ পলাশসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে নারায়ণগঞ্জের বেশ কিছু নেতাকর্মী কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে জানান, সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে সেটা গঠনতন্ত্র অনুযায়ী হয়নি। তারা জনতা ব্যাংকের সিবিএ নেতা আব্দুস সালামকে সভাপতি ও সোনালী ব্যাংকের সিবিএ নেতা আক্তার হোসেনকে সেক্রেটারী করে ৭১ সদস্যের একটি কমিটির তালিকা কেন্দ্রে জমা দেন। যদিও এর আগের কমিটিতে সহসভাপতি পদে পাল্টা কমিটির সভাপতি আব্দুস সালাম এবং ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে পাল্টা কমিটির সেক্রেটারী মোঃ আক্তারুজ্জামানের নাম ছিল।

এসময় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সেক্রেটারী তাদেরকে জানান, নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের যে কমিটি গঠিত হয়েছে সেটা তাদের অনুমোদিত নয়। তারা এ বিষয়ে কিছু জানেন না। এ বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য নারায়ণগঞ্জের সন্তান জাতীয় শ্রমিকলীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহাম্মেদ পলাশকে দায়িত্ব দিয়েছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে কাউসার আহাম্মেদ পলাশ বলেন, সভা শেষে আব্দুস সালাম ও আক্তার হোসেনের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ শ্রমিকলীগের কিছু নেতাকর্মী উপস্থিত হয়ে নতুন একটি কমিটির তালিকা কেন্দ্রে জমা দেন। তারা সম্মেলন ছাড়াই কমিটি গঠনের অভিযোগ আনেন। তাদের অভিযোগটি খতিয়ে দেখার জন্য কেন্দ্র থেকে আমাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এদিকে গত ২৭ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনউদ্দিন আহাম্মেদ বাবুল ও সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ কামাল হোসেন সাক্ষরিত এক বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, বর্তমানে জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ চিকিৎসাজনিত কারণে দেশের বাইরে থাকায় বিএনপি ও জামায়াতের ইন্ধনে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সুসংগঠিত শ্রমিকদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার জন্যই পাল্টা কমিটি গঠন করা হয়। এছাড়া যে কথিত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে আব্দুস সালাম সহসভাপতি পদে এবং আক্তারুজ্জামান ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের নমিনেশন পেপার সংগ্রহ করেন এবং জমা দেন। যা নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির নিকট সংরক্ষিত আছে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জের কিছু স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের পাল্টা কমিটি জমা দেয়ার যে সংবাদ তার অগঠনতান্ত্রিক।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা শ্রমিকলীগের কয়েকজন নেতা জানান, পাল্টা যে কমিটিটি কেন্দ্রে জমা দেয়া হয়েছে সেটা কিভাগে গঠনতান্ত্রিক হতে পারে। আর আমাদের কমিটি সবার সম্মতিক্রমেই হয়েছে। যারা পাল্টা কমিটি জমা দিয়েছেন তাদেরও স্বাক্ষর রয়েছে। অপরদিকে ওই পাল্টা কমিটি কেন্দ্রে জমা দেয়ার পরে যাকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেই কাউসার আহাম্মেদ পলাশ দীর্ঘ ১৩ বছর ধরেই ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সভাপতি পদে আসীন রয়েছেন। পলাশের কব্জাতেই রয়েছে ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগ। শিল্পঘন এলাকা হলেও ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগে নতুন কোন নেতৃত্ব আসছেনা।

ফতুল্লা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগে পলাশ ব্যতীত আর কে কে রয়েছেন সেটা ভুলেও গেছেন অনেকে।

পলাশের কারণে ফতুল্লায় সম্মেলনও হচ্ছেনা বলে অভিযোগ অনেকের। ফলে এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন শ্রমিকলীগের অনেকেই।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ