৭ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮ , ১:৪২ পূর্বাহ্ণ

UMo

ত্বকী হত্যা ইস্যু নিয়ে মাঠে কামাল মৃধা


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১৩ পিএম, ২১ মার্চ ২০১৮ বুধবার


ত্বকী হত্যা ইস্যু নিয়ে মাঠে কামাল মৃধা

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত নাম কামাল মৃধা। এক সময়ের আওয়ামী লীগের ডাকসাইটে এ নেতা মাঝে বিএনপি হয়ে আবারও আওয়ামী লীগে যুক্ত হয়েছেন। অভিমানে আওয়ামী লীগ ছাড়লেও বিএনপিতে যোগ দিয়েও কোন পদ পায়নি। সে কারণে ১৯ বছরের অভিমান ভুলে ফের আওয়ামী লীগে যুক্ত হয়েছেন কামাল মৃধা যিনি এক সময়ে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতৃত্বে ছিলেন। তিনি এখন মাঠে নেমেছেন আলোচিত ত্বকী হত্যা ইস্যুতে।

‘নারায়ণগঞ্জের আলোচিত মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার বিচার ৫ বছরেও শুরু না হওয়াটা সরকারের বিচারহীনতার একটি সংস্কৃতি। প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছের কারণেই আটকে আছে বিচার।’ নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি ও নারায়ণগঞ্জে তাঁর অনুগামী বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন যখন নিয়মিত এসব বক্তব্য দিয়ে আসছে তখন আওয়ামী লীগের নেতারাও এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে চলেছে। নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের একটি অংশ ইতোমধ্যে এ ত্বকী না হত্যার এ বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছেও ধর্না দিচ্ছে।

সবশেষ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সদস্য কামাল মৃধার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল ২০ মার্চ মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই সময়ে কামাল মৃধার সঙ্গে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহিদুল্লাহ, মনির হোসেন, রাসেল আহাম্মেদ প্রমুখ।

কামাল মৃধা জানান, মেট্রো রেল নিয়ে মূলত আমাদের আলোচনা ছিল। সেখানে নারায়ণগঞ্জের মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যা নিয়ে কথা হয়েছে। আমরা কেন্দ্রকে বুঝানোর চেষ্টা করেছি যে আগামী নির্বাচনের আগে ত্বকী হত্যার বিচার হতে হবে। নতুবা নিহতের পরিবার যে কথাটি বলে আসছে যে সরকার কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিচারহীনতার সংস্কৃতি কায়েম করেছে সেটা প্রতিষ্ঠিত হবে। সে তকমা যাতে লাগতে না পারে সেটাই আমাদের লক্ষ্য। নির্বাচনের আগে যাতে অন্তত নারায়ণগঞ্জে কেউ বলতে না পারে যে, ‘বর্তমান সরকার ত্বকী হত্যার বিচার করছে না কিংবা আটকে রেখেছে। বিচারহীনতার সংস্কৃতি এ সরকারের আছে।’ এ কথা বলার সুযোগ দেওয়া যাবে না। সে জন্যই আমরা মূলত চাচ্ছি নির্বাচনের আগেই বিচার হউক।

তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ রক্ষা জাতীয় কমিটি জেলা শাখার আহবায়ক ও বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বির দুই ছেলের মধ্যে ছেলে তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী। সে শহরের চাষাঢ়ায় ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল এবিসি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ছাত্র ছিল। ২০১৩ সালের ৭মার্চ (নিখোঁজের একদিন পর ও লাশ উদ্ধারের একদিন আগে) এ লেভেল পরীক্ষার রেজাল্টে পদার্থবিজ্ঞানে ৩০০ নম্বরের মধ্যে ২৯৭ পেয়েছিল যা সারাদেশে সর্বোচ্চ। এছাড় সে ও লেভেল পরীক্ষাতেও সে পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন পরীক্ষাতে দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছিল।

২০১৩ সালের ৬মার্চ বিকেলে ত্বকী শহরের শায়েস্তা খান সড়কের বাসা থেকে বেরিয়ে রাতেও বাসায় ফিরে আসেনি। পরে ৮ মার্চ সকালে শহরের চারারগোপে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে ত্বকীর লাশ পাওয়া যায়। সে রাতেই নারায়ণগঞ্জ মডেল সদর মডেল থানায় দায়ের করা মামলায় রাব্বি উল্লেখ করেন, আমার অতীত ও বর্তমান বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে আমার ভূমিকার কারণে কোন কোন মহল এ হতাকান্ডটি ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ