৪ কার্তিক ১৪২৫, শুক্রবার ১৯ অক্টোবর ২০১৮ , ৬:১৮ অপরাহ্ণ

UMo

হেফাজত আমীরের বক্তব্য নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:৫৫ পিএম, ১২ মে ২০১৮ শনিবার


হেফাজত আমীরের বক্তব্য নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা

সাংবাদিক ও আইনজীবী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতে ইসলামীর আমীর মাওলানা আবদুল আউয়ালের মন্তব্য নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। খোদ হেফাজতের বন্ধুপ্রতিম দল হিসেবে পরিচিত বিএনপির নেতারাও কড়া সমালোচনা করছেন। তাঁরা বলছেন, হেফাজত নিজেরাও নানা সময়ে বিতর্কিত। এখন আবার হেফাজতের আমীরের এ ধরনের বক্তব্য সমুচীন না।

গত ১১ মে জুমআর নামাজের খুতবার আগে বয়ানে ডিআইটি জামে মসজিদের খতিব আবদুল আউয়াল বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে হকের সঙ্গে বাতিলের যুদ্ধ চলছে। এ যুদ্ধ আগে থেকেই চলে আসছে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে কিছু সাংবাদিক পয়সার বিনিময়ে বাতিলদের নিউজ করছে। আর কিছু উকিল মাথা বিক্রি করে এসব বাতিলের পক্ষে নিয়েছে।’

ওই বক্তব্যের পর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সিকদার বলেছেন, ‘যে দালাল হেফাজত ৫মে কথা ভুলে যায়, সেই দিন কোন কর্মসূচি দেয় না। তারা নাকি নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বালাবে। সাবধান শান্ত নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করার চেষ্টা করবেনা। দালালী করে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন, কিন্ত বিএনপির শতশত নেতাকর্মী মামলা খেয়েছে। সপ্তাহে ৪ দিন হেফাজতের মামলায় কোর্টে হাজিরা দিতে হয়। মিডিয়ায় লেখার কারণে আজ আপনি আউয়াল হয়েছেন, উকিল আছে বলেই আপনি আজ মুক্ত বাতাসে দাঁড়িয়ে আগুন জ্বালার মিথ্যা হুংকার দিতে পারছেন।’

প্রসঙ্গত নারায়ণগঞ্জ উলামা পরিষদের উদ্যোগে ১১ মে শুক্রবার জুমআর নামাজের পরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আল্টিমেটাম দেওয়া হয়। সেদিন হেফাজত নেতা মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান বলেন, এটাই আমাদের শেষ আল্টিমেটাম। অপরাধ করলো তারা আর মামলা হলো আমাদের নামে। যারা মামলা করেছে তারা নাপাক, মিথ্যাবাদী, বদমাশ, ভন্ড। তারা আমাদের যোগ্য না। দুই মিনিট সময় লাগবে না তাদের এইসব মাজার পূজা ও ভন্ডামী ধ্বংস করতে। তাই প্রশাসনকে বলছি তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনুন। অন্যথায় নারায়ণগঞ্জের তৈৗহিদী জনতা তাদেরকে পালানোর সুযোগ দিবে না। নারায়ণগঞ্জে দাও দাও করে আগুন জ্বলবে।

মুফতি কামাল উদ্দিন দায়েমী বলেন, আমরা রাজপথে আসতে চাইনি, তারপরেও আমাদেরকে রাজপথে আনতে বাধ্য করা হয়েছে। তারা মিথ্যা মামলা দিয়ে স্থির থাকতে পারবে না। ২৪ ঘন্টার মধ্যে মাওলানা আব্দুল আউয়াল সাহেবের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় নারায়ণগঞ্জে আগুন জ্বলবে। আমরা নারায়ণগঞ্জের শান্ত পরিবেশকে শান্ত করতে চাই না। দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তি দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত আনার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জে হেফাজতে ইসলামের আমির মাওলানা আবদুল আউয়াল ও হেফাজত নেতা মাওলানা জাকির হোসেন কাশেমীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ৯ মে বুধবার নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নারায়ণগঞ্জ জেলা ইসলামী ছাত্র সেনার সভাপতি রাহাত হাসান রাব্বি বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ