ছাত্রলীগ নামলে আপনারা কিন্তু ফেরত যেতে পারবেন না : শামীম ওসমান

৫ ভাদ্র ১৪২৫, সোমবার ২০ আগস্ট ২০১৮ , ৩:১৫ অপরাহ্ণ

ছাত্রলীগ নামলে আপনারা কিন্তু ফেরত যেতে পারবেন না : শামীম ওসমান


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩২ পিএম, ১৫ মে ২০১৮ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৩:৩২ পিএম, ১৫ মে ২০১৮ মঙ্গলবার


ফাইল

ফাইল

নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রতিনিয়ত যানজট নিরসনে আবারো মাঠে নেমেছেন প্রভাবশালী এমপি ও আওয়ামী লীগ নেতা শামীম ওসমান যিনি এর আগেও কয়েকবার এ উদ্যোগ নিয়েছিলেন।  অন্যবারের মত এবারও ছাত্রলীগের জেলা ও মহানগর কমিটির নেতারা মাঠে নামেন।  তবে এবার শামীম ওসমান রাস্তায় নেমে যানজটের জন্য ট্রাফিক পুলিশের উদাসীনতাকে দায়ী করে তাদের তুলোধুনো করেছেন।  সেই সঙ্গে নিয়ম ভেঙে কেন শহরে অবাধে ট্রাক প্রবেশ করছে এবং কেন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হলো না সে কৈফিয়তও চান পুলিশের কাছে।

ওই সময়ে শামীম ওসমান বলেন, যানজট সৃষ্টির জন্য যারা দায়ী ও ছাত্রলীগ যখন মাঠে তখন হঠাৎ করে শহরে অবাধে ট্রাক প্রবেশ করতে দেওয়া হলো সেটার কারণ পুলিশ প্রশাসনকে খুঁজে বের করতে হবে।  নতুবা আমি এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।

১৫ মে মঙ্গলবার বিকেলে তিনি শহরের চাষাঢ়ায় শহীদ জিয়া হলের সামনে দাঁড়িয়ে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের যানজট নিরসনে মাঠে থাকার বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করতে এসে ট্রাক প্রবেশের বিষয়টি তুলে ধরেন।

যানজট নিরসনে এমপি শামীম ওসমান বলেন, ‘যানজট নিরসনের আজকে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এই মহৎ উদ্যোগ নিয়ে মাঠে নেমেছে।  এই উদ্যোগটা নেয়ার কথা নারায়ণগঞ্জের পুলিশ প্রশাসনের।  আমি যতদূর জানি ছাত্রলীগের নেতারা অফিসিয়ালী নারায়ণগঞ্জের প্রশাসনকে দাওয়াত দিয়েছিল এই কাজের উদ্বোধন করার জন্য এবং সহযোগিতা করার জন্য।  কিন্তু আমার ধারণা এটা হয়তো ছাত্রলীগের প্রোগ্রাম হওয়ায় তারা আসতে পারে নাই।  অনেকেই ভাবছে আগামী নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকারের পরিবর্তন হবে।

ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক শরফুদ্দিনকে তিনি জিজ্ঞাসা করেন, ‘নারায়ণগঞ্জ শহরে ট্রাক প্রবেশের সময় কখন? জবাবে ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ শহরে সর্বসম্মতিক্রমে ট্রাক প্রবেশের সময় হচ্ছে সকাল ৮টা থেকে।  যে ট্রাকগুলোতে মালামাল থাকবে তার নির্দিষ্ট একটা পাস থাকবে।  সেটাও সীমিত আকারে ৩০টা করে প্রবেশ করবে।  নিতাইগঞ্জ খাল ঘাট, থানা পুকুর পাড় মাঠ, ইয়ার্ন মার্চেন্টে সকল স্থানে ৩০টি করে গাড়ি প্রবেশ করবে এবং সার ঘাট আছে সেখানে ২০টা গাড়ি প্রবেশ করবে।  এই ট্রাকগুলোর ৩০টি খালি হওয়ার পর পর্যায়ক্রমে অন্য ৩০ টা প্রবেশ করবে।’

পরে এমপি শামীম ওসমান বলেন, ‘যদি এটাই ট্রাক প্রবেশের নিয়ম হয়। তাহলে আমি ডানদিন ও বামদিকে খালি ট্রাক কেন দেখতে পারছি।  তাহলে কি পুলিশ প্রশাসন চাচ্ছেন ছাত্রলীগের নেতারা যে প্রয়াস করছেন তা সফল না হোক, এটাই চাচ্ছেন ? ছাত্র সমাজ যেটা করতে পারলো আমরা সেটা করতে পারলাম না, এমন কোন ব্যাপার আছে কিনা ? খালি ট্রাক প্রবেশের ব্যাপারে আপনি আইনের কর্মকর্তা হিসেবে কয়টা খালি ট্রাক এ পর্যন্ত প্রবেশ করেছে।  আর কয়টার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন প্রশ্ন রইল আপনার কাছে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে হঠাৎ করে যখন ছাত্র সমাজ যানজট নিরসনে মাঠে নেমেছে তখনই হঠাৎ করে পুলিশ প্রশাসন লোক আজকে আসেন নাই।  আর হঠাৎ করে তখনি খালি ট্রাক শহরে প্রবেশ করা শুরু করেছে।  এটা আমি আপনার কাছে কৈফিয়ত চাই জনগণের সামনে।’

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ছাত্রলীগ ভাইয়েরা আপনারা হতাশ হবেনা।  আগামীকাল (বুধবার) আমি আপনাদের সাথে এখানে থাকবো।  নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী সহ তোলারাম কলেজের শিক্ষকেরা পর্যন্ত সকল শ্রেনি পেশার লোকেরা আজকে কষ্ট করে মানুষের সেবা করতে মাঠে নেমেছে।  কিন্তু এই প্রচেষ্টাকে নষ্ট করতে চায় আমি আগামীকাল দেখতে চাই।  এবং পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রশাসন আপনারা এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।  সরকারী ও বেসরকারী যত কর্মকর্তা কেউ আখের গোছানের জন্য এখানে আসবেন না।  যদি আখের গোছানোর জন্য কেউ আসেন তাহলে আমি আখের গোছাতে দেবনা।  তা না হলে আজকে এভাবে ট্রাক ঢুকার কথা না।  আগামীকাল আমি মাঠে থাকবো, দেখি নারায়ণগঞ্জের মানুষকে কষ্ট দেয়ার জন্য কে কোথা থেকে ট্রাক পাঠাচ্ছে, কেন পাঠাচ্ছে, কি উদ্দেশ্যে পাঠাচ্ছে।  হঠাৎ করে শহরে কেন শত শত ট্রাক ঢুকালো।  পুলিশ প্রশাসন কেন নিরব ভূমিকা পালন করলো।  আমি প্রয়োজনে আমি আইজি সাহেব, হোম মিনিস্টার ও প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলবো।  আমি জানি কখন কার বিরুদ্ধে কখন কিভাবে ব্যবস্থা নিতে হয়।  পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দিচ্ছি, অবৈধভাবে যদি আর একটা ট্রাক ঢুকে তাহলে ছাত্রলীগ যদি হাজার হাজার ছেলে নিয়ে মাঠে নামে তাহলে আপনারা কিন্তু ফেরত যেতে পারবেননা।

তিনি আরো বলেন, ‘অনেকে মনে করেছেন আগামী নির্বাচনে সরকার হয়তো বদলাতে পারে।  সময় শেখ হাসিনার আছে এবং সময় শেখ হাসিনার থাকবে।  নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগ ছিল, আওয়ামীলীগ আছে, আওয়ামীলীগে থাকবে।  এ ব্যাপারে যদি কোন সন্দেহ থাকে তাহলে ট্রান্সফার নিয়ে অন্যত্র চলে যান।’

এসময় চাষাঢ়া গোল চত্বরে কয়েকটি খালি ট্রাকের পাশ চেক করা হয় এমপি শামীম ওসমানের নির্দেশে।  আর সেসব খালি ট্রাকে চেক করে পাশ পাওয়া যায়নি।  এতে এমপি বলেন, আমার মনে হয় যারা ট্রাক থেকে পয়সা তুলে খান তাদের উদ্দেশ্য ছাত্রলীগ যাতে এই মহৎ উদ্দেশ্যে সফল না হতে পারে।

পুলিশ কর্মকর্তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘এতগুলো খালি ট্রাক পাস ছাড়া কিভাবে শহরে ঢুকলো।  এমন কিছু কইরেননা যাতে আপনাকে প্রত্যাহার করা না পর্যন্ত আমি সব গাড়ি বন্ধ করে দিব। সব গাড়ি বন্ধ হয়ে যাবে।  যে খালি ট্রাক পাঠাচ্ছে এবং যে কয়টা খালি ট্রাক ঢুকেছে সেগুলোর বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেন।  আপনি অ্যাকশন না নিলে আমি এমপি শামীম ওসমান আপনার বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিব।  আমি কোন দল বুঝিনা, নো আওয়ামীলীগ, নো বিএনপি, নো জাতীয় পার্টি।  আমাদের সরকার পরিষ্কার রাখতে হলে সবাইকে কাজ করতে হবে।  এটা আমাদের শহর আমরা কারো হাতে জিম্মি হয়ে থাকতে রাজিনা।  ব্যবস্থা গ্রহণ করে না হয় আমরা আপনাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এই কাজটি কে করাচ্ছে সেটাও আমি জানি, এই কাজটি কেন করাচ্ছে তাও আমি জানি।  এবং এই কাজটিতে পুলিশ কেন সহযোগিতা করতে আমি জানি।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘এই শহরে একটা নিয়ম হয়েছে ব্যবসায়ী থেকে, সিটি করপোরেশন থেকেছ।  সকাল ৮ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত কোন খালি ট্রাক প্রবেশ করবেনা।  এবং ঢুকলে নির্দিষ্ট পাস সহ ঢুকবে।  সাধারণ মানুষ যদি যানজট নিরসন করতে পারে তাহলে যারা দায়িত্বে আছে তারাতো প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ে।  আর যারা নেতাগিরি করে, যারা ট্রাক সমিতির নেতাগিরি করে, যারা মানতি তুলে খায় তাদেরও ইনকাম বন্ধ হয়ে যায় তারা ভাই ভাই।  চাঁদাবাজ চাঁদাবাজ সব সময় ভাই ভাই হয়। দুইটাই ধান্দাবাজ।  কালকের মধ্যে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে কোথায় কি করতে হয় আমি জানি।  আমি জনগনের লোক, জনগণ নিয়ে আছি।  জনগণ নিয়ে থাকবো।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ