৬ কার্তিক ১৪২৫, সোমবার ২২ অক্টোবর ২০১৮ , ৬:২১ পূর্বাহ্ণ

UMo

আবারও মিইয়ে যাচ্ছে এস এম আকরামের সম্ভাবনা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫৩ পিএম, ২৪ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার


আবারও মিইয়ে যাচ্ছে এস এম আকরামের সম্ভাবনা

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে আওয়ামীলীগের সাবেক এমপি এসএম আকরামের নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন চেয়ে একটি পোস্টার মাসখানেক আগে বেশ আলোচনায় থাকলেও এখন সেটা মিইয়ে যেতে শুরু করেছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মূলত আকরাম ওই পোস্টারিং করে আওয়াজ দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর পক্ষে তেমন কোন জোরালো কথা ও বক্তব্য না আসায় এখন তিনি আবারও ব্যাকফুটে যেতে চলেছেন।

এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরাও স্ব স্ব কাজে ব্যস্ত। আকরামের পক্ষ নিয়েও কেউ এগিয়ে আসেনি। ফলে আকরামও চলে গেছেন অনেকটা ব্যাকফুটে।

২০১৪ সালের ২৬ জুন উপ নির্বাচনে ১৬ হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন লাঙলের সেলিম ওসমানের কাছে। এর পর থেকেই নারায়ণগঞ্জে পদচারণা কম ছিল আকরামের। তবে এক মাস আগে তিনি আবারও নৌকার পক্ষে তার ছবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুন দেখা যায়।

নারায়ণগঞ্জ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় এস এম আকরামের নামে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে নৌকা প্রতিকে ভোট চেয়ে পোস্টারিং করা হয়েছিল। আর সেটা নিয়ে নতুন করে আলোচনা সৃষ্টি হয় নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও ভোটারদের মাঝে। এতে করে আকরাম অনুসারী অনেক অনুগামীরা ফের চাঙ্গা হয়ে উঠে। কিন্তু এক মাস না যেতেই আবারও মিইয়ে গেছেন তিনি।

জানা গেছে, ‘আকরাম ২০১১ সালের ৩১ অক্টোবর অনেকটা অভিমানে আওয়ামী লীগ ছেড়ে যোগ দিয়েছিলেন নাগরিক ঐক্যে। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তিনি সবসময় সোজা সাপটা কথা বলেন। ১৯৯৬ হতে ২০০১ সাল পর্যন্ত এমপি ও ২০০২ সালের ২৭ মার্চ এস এম আকরামকে আহবায়ক করে ৬৩ সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দেয়া হয়। কিন্তু ২০১১ সালের ৩১ অক্টোবর দল ও পদ দুটিই ছাড়েন আকরাম। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ২৬ জুন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন আকরাম। ওই নির্বাচনে নির্বাচিত জাতীয় পার্টির প্রার্থী সেলিম ওসমান পান ৮২ হাজার ৮৫৫ ভোট। আর আনারস প্রতীকের এস এম আকরাম পেয়েছিলেন ৬৬ হাজার ১১৪ ভোট।

এর আগে একটি সাক্ষাৎকারে নির্বাচন প্রসঙ্গে এস এম আকরামের বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডাকলে অবশ্যই যেতে হবে। তার ডাকে সাড়া দেয়া প্রত্যেক নাগরিকের বক্তব্য। সে হিসেবে তিনি যেটা বলবেন সেটা আমাকে করতে হবে। তাকে আমি অনেক সম্মান করি। আওয়ামীলীগের ফিরে আসার বিষয়টি যখন সময় আসবে তখন বলা যাবে। রাজনীতিতে নানা মেরুকরণ থাকে। এ বিষয়ে আপাতত কোন মন্তব্য না করাই ভালো। নির্বাচন যদি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়, তাহলে নির্বাচন করার ইচ্ছা রয়েছে।

এদিকে শহরের বিভিন্ন স্থানে এস এম আকরামের মনোনয়ন প্রত্যাশা করে পোস্টারিংয়ের ঘটনায় ঢাকার এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমার কিছু শুভানুধ্যায়ী আমার ছবি ব্যবহার করে নানান প্রচরাণা চালাচ্ছে এটা আমি শুনেছি। সে বিষয়ে আমার মত দেয়ার কিছু নেই আবার দ্বিমত করারও কিছু নেই। রাজনীতিতে শেষ বলে কিছু নেই। বড় দুই দলের শাসনইতো দেখেছি এখন ভিন্ন কিছু হলেই ভাল হয়। আমরা চেষ্টা করছি যুক্ত ফ্রন্টের সপাশাপাশি জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন, কমিউনিস্ট পার্টি,  বাসদসহ আরো কিছু দল মিলে ভিন্ন একটি জোট করার।

আগামী সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে নৌকা প্রতিকের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, জেলা যুবলীগ সভাপতি আবদুল কাদির। এদের মধ্যে সবাই নৌকা প্রতিকে ভোট চেয়ে বিভিন্ন সময়ে নগরীজুড়ে পোস্টারিং করেছেন। এছাড়াও বর্তমান সাংসদ সেলিম ওসমান লাঙল প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন বলে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে জোড় প্রচারণা রয়েছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ