আওয়ামী লীগে ৬ যোগ্যতায় মনোনয়ন

৪ ভাদ্র ১৪২৫, রবিবার ১৯ আগস্ট ২০১৮ , ১:১৮ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগে ৬ যোগ্যতায় মনোনয়ন


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১১ পিএম, ২৬ মে ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ০৪:৪০ পিএম, ২৮ মে ২০১৮ সোমবার


আওয়ামী লীগে ৬ যোগ্যতায় মনোনয়ন

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে অর্জন করতে হবে ৬টি যোগ্যতা। আগামী নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতাপূর্ণ সংসদ নির্বাচন চায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সেই নির্বাচনে জয়লাভ করতে প্রার্থী ঠিক করার সময় মনোনয়নপ্রত্যাশীর ৬টি গুণ আছে কিনা তা যাচাই করবে দলটি।

মনোনয়নপ্রত্যাশীর শুধু অর্থবিত্ত থাকলেই হবে না, তাকে এলাকায় জনপ্রিয় ও জনসম্পৃক্ত হতে হবে। দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকা বাধ্যতামূলক। থাকতে হবে ব্যক্তিগত ইমেজ, দলের জন্য ত্যাগী হওয়া চাই, তাকে হতে হবে শিক্ষিত ও ভদ্র। সরকারি ও বেসরকারি এবং দলীয় জরিপে যিনি এগিয়ে থাকবেন তিনিই পাবেন দলীয় মনোনয়ন। দলের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশ প্রতিদিনের একটি খবর মতে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে এটা অনেকটাই নিশ্চিত। সে কারণে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসতে প্রতিটি সংসদীয় আসনে সবচেয়ে জনপ্রিয় ও গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিকে দলীয় মনোনয়ন দেবে ক্ষমতাসীন দলটি। প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব একটা টিমের বিভিন্ন সংস্থার এবং দলীয় জরিপে যার প্লাস পয়েন্টের পরিমাণ বেশি তিনিই ‘যোগ্য’। তাকেই দলীয় টিকিট দেওয়া হবে। টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসতে চ্যালেঞ্জের নির্বাচনে মুখ দেখে কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হবে না। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কয়েক দফা দলীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও দলের সংসদীয় দলের বৈঠকে এমপিদের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, কারও মুখ দেখে এবার মনোনয়ন দেওয়া হবে না। একই সঙ্গে কাউকে পাস করানোর দায়িত্ব তিনি নেবেন না। নিজ যোগ্যতায় প্রার্থীকে বিজয়ী হয়ে আসতে হবে। এ জন্য তিনি নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে গণসংযোগ ও নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকরা জানান, অতীতের যে কোনো নির্বাচনের চেয়ে এবার বড় চ্যালেঞ্জের নির্বাচন। টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থেকে আবার ভোটের মাধ্যমে সরকার গঠন করা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কঠিন। অতীতে এমন ঘটেনি। তাই প্রার্থী মনোনয়নের বিষয়টিকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হবে। কমপক্ষে ৬টি গুণ থাকতেই হবে।

নারায়ণগঞ্জ-১ তথা রূপগঞ্জ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে বর্তমান এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী, বাংলাদেশ সেক্টর কমান্ডার ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বাংলার প্রথম সেনাপ্রধান ও সাবেক এমপি মেজর জেনারেল (অব.) কেএম সফিউল্লাহ (বীর উত্তম), রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূইয়া, কায়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম।

নারায়ণগঞ্জ-২ তথা আড়াইহাজার আসনে বর্তমান এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইকবাল পারভেজ রয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৩ তথা সোনারগাঁও আসনে আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি আবদুল্লাহ আল কায়সার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী মাহফুজুর রহমান কালাম মনোনয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের বর্তমান এমপি শামীম ওসমান আছেন এগিয়ে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী খোকন সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য আনিসুর রহমান দিপু, শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ ও জেলা যুবলীগের সভাপতি আবদুল কাদির রয়েছেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ