৩ আশ্বিন ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ১০:২৫ অপরাহ্ণ

জাহাঙ্গীরের ইন্তেকাল, খোরশেদের কারাগারে:বিবৃতিতে কার্পণ্য বিএনপির


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫৫ পিএম, ১১ জুন ২০১৮ সোমবার


জাহাঙ্গীরের ইন্তেকাল, খোরশেদের কারাগারে:বিবৃতিতে কার্পণ্য বিএনপির

নারায়ণগঞ্জে দীর্ঘদিন ধরেই কারাবন্দী থাকলেও বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দিতেও কার্পণ্য করছে জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতারা। কারাবন্দী নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নেয়াতো দূরের কথা তাদের মুক্তির বিষয়ে বিবৃতি দেয়া নিয়েও দ্বৈত আচরণ দেখা যায় বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে। অনুগামী নেতাদের ক্ষেত্রে বিবৃতি দিতে দেখা গেলেও রাজপথে সক্রিয় নেতাকর্মীদের ক্ষেত্রে তাদের এহেন দ্বৈত আচরণে ক্ষুব্দ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যমে এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশও করেছেন অনেকেই।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ শহর বিএনপির সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম গত ৯ জুন রাতে মারা গেলেও কোন ধরনের বিবৃতি দিতে দেখা যায়নি মহানগর বিএনপিকে। এর আগে মহানগর যুবদলের সভাপতি ছিলেন জাহাঙ্গীর। রাজনীতিতে তাঁর অবদান ও মামলার শিকার হলেও দেয়নি মহানগর বিএনপি কোন বিবৃতি।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারী জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির সেক্রেটারী কাজী মনিরুজ্জামানকে সভাপতি ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে সেক্রেটারী করে জেলা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। একইদিন মহানগর বিএনপির সভাপতি পদে সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও সেক্রেটারী পদে এটিএম কামালের নাম ঘোষণা করা হয়। পরদিন ১৪ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ২৬ সদস্যের ও মহানগর বিএনপির ২৩ সদস্যের আংশিক কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। এদিকে জেলা ও মহানগরের আংশিক কমিটি গঠনের পর থেকেই নারায়ণগঞ্জে কোন্দলে দ্বিধাবিভক্ত নেতাকর্মীরা। বরং কোন কোন এলাকায় ত্রিধাবিভক্তও রয়েছে নেতাকর্মীরা। বিশেষ করে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মনোনয়ন ইস্যুতে বিএনপির মধ্যে কোন্দল বেড়েছে কয়েকগুন। ৫টি আসনের মধ্যে প্রায় সবক’টিতেই বিএনপি এখন ৩ ভাগে বিভক্ত। শীর্ষ নেতাদের মনোনয়ন যুদ্ধের কারণে ত্রাহি দশা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের।

জানা গেছে, ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদন্ড হয়েছে। ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ মো. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন। খালেদার বড় ছেলে তারেক জিয়াসহ অন্য পাঁচ আসামিকে দেয়া হয়েছে ১০ বছরের কারাদন্ড। বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে তাঁকে ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। একইসঙ্গে সাজাপ্রাপ্তদের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জে এক সপ্তাহের ব্যবধানে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৭টি থানায় ১৩টি নাশকতার মামলা দায়ের করে পুলিশ। গ্রেফতার হয়েছে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী। বেশ কিছুদিন পূর্বে ওই সকল নাশকতার মামলায় বেশীরভাগ বিএনপি নেতাকর্মী উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন। তবে এখনো কারাগারে রয়েছেন মহানগর যুবদলের আহবায়ক ও নাসিকের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ সহ বেশ কিছু নেতাকর্মী।

এদিকে গেল বছরে জেলা ও মহানগর বিএনপির আংশিক কমিটি গঠনের পর থেকেই বিএনপি নেতাদের মধ্যে মনোনয়ন যুদ্ধকে কেন্দ্র করে রেষারেষির জের ধরে বিএনপি নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দিতেও কার্পণ্য দেখা যাচ্ছে জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে। বিশেষ করে অনুগামী নেতাকর্মী না হলে তাদের মুক্তির বিষয়ে বিবৃতি দিতে দেখা যায়না শীর্ষ নেতাদের। এর আগে দেখা গেছে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদের মুক্তির বিষয়ে বিবৃতি দেয়া হলেও তার সঙ্গে থাকা অন্য কারাবন্দী নেতাকর্মীদের কারো নামই উল্লেখ ছিলনা বিবৃতিতে। এছাড়া বিগত দিনে অনেক নেতাকর্মী দীর্ঘদিন কারাবন্দী থাকলেও তাদের বিষয়েও কোন বিবৃতি দিতে দেখা যায়নি। সম্প্রতি জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুকুল ইসলাম রাজীব সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকে এ বিষয়টি তুলে ধরে ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতাদের প্রতি বর্তমান দুঃসময়ে আরো উদার মনোভাব হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ