৭ শ্রাবণ ১৪২৫, সোমবার ২৩ জুলাই ২০১৮ , ৬:১৫ পূর্বাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জ ছাত্রলীগের পদ আকড়ে বয়স্করা


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৫:০৪ পিএম, ১৭ জুন ২০১৮ রবিবার | আপডেট: ০৫:৫১ পিএম, ১৮ জুন ২০১৮ সোমবার


নারায়ণগঞ্জ ছাত্রলীগের পদ আকড়ে বয়স্করা

নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি হলেও এখনো থানা কমিটিতে বহাল আছে  ছাত্রনেতারা যাদের অনেকেরই বয়স চল্লিশোর্ধ। দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রলীগের থানা পর্যায়ের কমিটিগুলোতে বয়স্ক ছাত্রনেতারা আসীন হওয়ায় তৃনমূল ও নবাগত নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ। দীর্ঘদিনেও নতুন কমিটি গঠন করতে না পারায় জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তৃনমূলের নেতাকর্মীরা।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র। ২৯ এপ্রিল ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এস আর সোহাগ ও সেক্রেটারী জাকির হোসেন আগামী ১ বছরের জন্য এসব কমিটি অনুমোদন দেন।

কমিটিতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হয়েছেন আজিজুর রহমান আজিজ ও সেক্রেটারী হয়েছেন আশরাফুল ইসমাইল রাফেল। তাঁদের মধ্যে আজিজ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রাফেল জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি পদে ছিলেন।

অপরদিকে মহানগর ছাত্রলীগের মহানগরের সভাপতি করা হয়েছে আহবায়ক পদে থাকা হাবিবুর রহমান রিয়াদকে। আর সেক্রেটারী হয়েছেন যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্বে থাকা হাসনাত রহমান বিন্দুকে।

২০১১ সালের জুনে সাফায়েত আলম সানিকে সভাপতি ও মিজানুর রহমান সুজনকে সাধারণ সম্পাদক করে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি গঠন করা হয়। অপরদিকে ২০১৫ সালে ৪ সদস্যের মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

জানা গেছে, ২০০৩ সাল ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১১ সালের জুন মাস পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে ছিলেন সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু ও সাধারণ সম্পাদক জি এম আরাফাত।

দলীয় সূত্র জানায়, সানি-সুজনের কমিটি রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁ থানা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করতে সমর্থ হলেও ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ ও বন্দর থানা ছাত্রলীগের কমিটিতে এখনও নিপু-আরাফাতের কমিটির নেতারাই আসীন রয়েছেন। আড়াইহাজার থানা ছাত্রলীগের কমিটি কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক ঘোষণা করা হলেও সেখানে জেলা ছাত্রলীগের কোন প্রাধান্য ছিলনা। এমনকি ওইসময়ে আড়াইহাজার থানা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে উপস্থিত থাকতেও দেখা যায়নি।

এদিকে ফতুল্লা, বন্দর ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের কমিটিতে এখনো ১৪ বছর আগের কমিটির নেতারাই আসীন রয়েছেন। তারা বিভিন্ন স্থানে ও অনুষ্ঠানে নিজেদের ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন। বর্তমানে ফতুল্লা ছাত্রলীগের সভাপতি পরিচয় দানকারী আবু মুহাম্মদ শরীফুল হক ও সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দানকারী আব্দুল মান্নান দু’জনেই চল্লিশোর্ধ।

একই অবস্থা সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আহবায়ক বর্তমান কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল এবং বন্দর থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালামের। ওই তিনটি কমিটির নেতাদের প্রায় সকলেই চল্লিশোর্ধ। যদিও ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ২৯ বছর পার হয়ে গেলে কোন নেতাই ছাত্রলীগের কমিটিতে থাকতে পারবেন না।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ