২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, শনিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৮ , ২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

rabbhaban

খালেদা জিয়া ইস্যুতেও চরম ব্যর্থ নারায়ণগঞ্জ বিএনপি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৫:০৬ পিএম, ১৭ জুন ২০১৮ রবিবার


খালেদা জিয়া ইস্যুতেও চরম ব্যর্থ নারায়ণগঞ্জ বিএনপি

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির বর্তমান কমিটির সকল নেতারাই নিজেদের অযোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে একেবারেই ব্যর্থ হয়েছে রাজপথে। দলের শীর্ষ পর্যায়ের একটি নেতাও দলের সর্বোচ্চ নেত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে একদিনও রাজপথে নামতে পারেনি। পারেনি অসুস্থ নেত্রীর জন্য একটি বড় করে রোগমুক্তির দোয়ার আয়োজন করতেও।

জানা যায়, গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া একটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন। তার মুক্তির দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন করছে দলটি। খালেদা জিয়ার সাজা হবার আগে গত ৫ ফেব্রুয়ারি তিনি নারায়ণগঞ্জের উপর দিয়ে সিলেট যান। তার সফর ও রায়কে কেন্দ্র করে গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে নারায়ণগঞ্জে ধরপাকড় শুরু করে পুলিশ। এতে দলের প্রায় অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী গ্রেফতার হন। সেই থেকেই গায়েব হয়ে যায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতারা।

গ্রেফতার হওয়া নেতাকর্মীদের অনেকেই জামিনে মুক্ত হয়ে বর্তমানে একেবারেই নীরব অবস্থায় রয়েছেন। আন্দোলনে মাঠে থেকে কারাগারকে বরণ করতে তাদের কোন আপত্তি নেই বলেও জানাচ্ছেন তারা তবে রাজপথে নামছেন না কেউই। তবে কারাগার থেকে বের হয়ে নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন অনেকে এবং পুনরায় কারাগার এড়াতে মুক্ত থাকছেন দলীয় কর্মসূচীগুলো থেকে।

স¤প্রতি দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে কারাগারে রয়েছেন। দল থেকে তার জামিন ও সুস্থতাও বিভিন্ন কর্মসূচীও পালিত হচ্ছে। চলতি রমজানে দেশের প্রায় সকল জেলায় প্রতিদিনই খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া ও ইফতার মহফিল অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে ভিন্নতা রয়েছে নারায়ণগঞ্জে। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির একজন নেতাও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যেমন রাজপথে নামেননি তেমনি তার সুস্থতা কামনা একদিনের জন্য একটি দোয়া মহফিলেরও আয়োজন করেনি।

দলের নেতাদের এমন কর্মকান্ডে প্রায় সকলেই হতাশ। হতাশ দলের তৃণমূলের সাথে সাধারণ মানুষ ও দলের সমর্থকরাও। জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান দলের কর্মসূচীগুলো পালন করেননা। সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ কারাগার থেকে বের হয়ে ঘরোয়াভাবে দলীয় কর্মসূচীগুলো পালনের চেষ্টা করছেন তবে তা তার ব্যক্তিগত কিংবা এককভাবে। সহ সভাপতি শাহ আলম তো কখনই রাজপথে নামেননি আর আজাস বিশ্বাসতো আওয়ামীলীগের একজন সংসদ সদস্যকে নিজের নেতা হিসেবেই প্রকাশ্যে জনসভায় আখ্যায়িত করেছেন। দলের সাংগঠনিক সম্পাদকদের কেউই তেমন সক্রিয় নয়, প্রায় সবাই নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন তবে জাহিদ হাসান রোজেল কেন্দ্রীয় কর্মসূচীগুলোতে মাঠে থাকার চেষ্টা করছেন।

সব মিলিয়ে বর্তমান জেলা বিএনপি কমিটির প্রায় সকল নেতারাই নেতৃত্ব প্রদানে ও রাজপথে নিজেদের যোগ্য হিসেবে প্রমান করতে না পারলেও অযোগ্য ও চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হিসেবে জেলা বিএনপির একটি কমিটির নজির রেখে যাচ্ছেন বলেই নেতাকর্মীদের অভিমত।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ