নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে যাদের সম্ভাবনা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:১৪ পিএম, ৯ জুলাই ২০১৮ সোমবার

নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে যাদের সম্ভাবনা

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি আসনের মধ্যে ইতিমধ্যে দুটি আসনে প্রায় নিশ্চিত হওয়া গেছে। নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনটিতে থাকছে আওয়ামীলীগের দুজন প্রার্থী। অন্যদিকে আবারো সম্ভাবনা রয়েছে এ জেলায় জাতীয়পার্টির বর্তমান দুই এমপির। মহাজোট ভাঙ্গছেনা সেটা প্রায় নিশ্চিত। আর মহাজোট থাকলে নারায়ণগঞ্জের দুটি আসনে আবারো মহাজোটের প্রার্থী হতে যাচ্ছে জাতীয়পার্টির দুজন এমপি। তবে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে রয়েছে দ্বিধাদ্বন্ধ।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ-১(রূপগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি হিসেবে রয়েছেন গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক। এ আসনে আওয়ামীলীগের কোন্দল ও গ্রুপিং এর কারনে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ও ঘটনায় হত্যাকান্ডের ঘটনাও ঘটেছে। যা আওয়ামীলীগের দুটি পক্ষ জড়িত। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্থানীয় এমপির সঙ্গে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শাহজাহান ভূইয়ার বিরোধ সৃষ্টি হয়। একাধিকবার দুজনের সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে। এরই মাঝে এ আসনে নৌকা প্রতীকের পক্ষে কাজে নেমেছেন কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিক। শাহজাহান ভূইয়া ও রফিকুল ইসলাম রফিক একজোট হয়ে মাঠে নেমেছেন। তাদের সমর্থকদের সঙ্গেও একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ফলে এ আসনে কে মনোনয়ন পাবেন সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেন না।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে আওয়ামীলীগের এমপি রয়েছেন নজরুল ইসলাম বাবু। তিনি আগামী নির্বাচনেও এ আসন থেকে মনোনয়ন চাইবেন। তার মনোনয়ন অনেকটাই নিশ্চিত। যদিও এ আসনে নৌকার পক্ষে কাজ করছেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজ। আলোচনায় রয়েছেন সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভূইয়া ও সাবেক রাষ্ট্রদূত মমতাজ হোসেন। গত বছর এ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে আলমগীর সিকদার লোটনকে ঘোষণা করে যান জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরীক দল জাতীয়পার্টি থেকে এখানে এমপি হিসেবে রয়েছেন লিয়াকত হোসেন খোকা। এ আসনে আবারো মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে তাকে দেখা যেতে পারে। কারন এখানকার আওয়ামীলীগের একাংশ ও জাতীয়পার্টি চায় আবারো খোকাকে এমপি হিসেবে। যদিও আসনে আওয়ামীলীগের শক্ত মনোনয়ন প্রত্যাশি হিসেবে রয়েছেন সাবেক এমপি আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি মাহফুজুর রহমান কালাম। আলোচনায় রয়েছেন গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পাওয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে একক মনোনয়ন প্রত্যাশি হিসেবে রয়েছেন বর্তমান এমপি একেএম শামীম ওসমান। তার প্রতিদ্বন্ধি শক্ত কোন প্রার্থীও এ আসনে নেই। আর শামীম ওসমান মানেই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ। ফলে এ আসনে শামীম ওসমান আগামী জাতীয় নির্বাচনেও মনোনযন পাচ্ছেন সেটা প্রায় নিশ্চিত।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ-৫(শহর-বন্দর) আসনে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরীক দল জাতীয়পার্টির এমপি হিসেবে রয়েছেন একেএম সেলিম ওসমান। আবারো এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে দেখা যেতে পারে সেলিম ওসমানকেই। কারন গত বছর এখানে এরশাদ এসে সে রকম ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এখানেও আওয়ামীলীগের একাংশ ও জাতীয়পার্টির পুরো অংশের নেতারা সেলিম ওসমানকে এমপি হিসেবে দেখতে চান। সেই সঙ্গে এখানকার বিএনপির নেতারাও দাবি করছেন এ আসনে সেলিম ওসমানকেই দরকার। যদিও এখানে আওয়ামীলীগের বেশকজন মনোনয়ন প্রত্যাশি রয়েছে। গত বছর এখানে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এসে বলেছিলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে গিয়ে জানাবো এখানে সেলিম ওসমান জনপ্রিয়।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও