৭ আশ্বিন ১৪২৫, শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৫:৫৫ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে যাদের সম্ভাবনা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:১৪ পিএম, ৯ জুলাই ২০১৮ সোমবার


নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে যাদের সম্ভাবনা

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি আসনের মধ্যে ইতিমধ্যে দুটি আসনে প্রায় নিশ্চিত হওয়া গেছে। নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনটিতে থাকছে আওয়ামীলীগের দুজন প্রার্থী। অন্যদিকে আবারো সম্ভাবনা রয়েছে এ জেলায় জাতীয়পার্টির বর্তমান দুই এমপির। মহাজোট ভাঙ্গছেনা সেটা প্রায় নিশ্চিত। আর মহাজোট থাকলে নারায়ণগঞ্জের দুটি আসনে আবারো মহাজোটের প্রার্থী হতে যাচ্ছে জাতীয়পার্টির দুজন এমপি। তবে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে রয়েছে দ্বিধাদ্বন্ধ।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ-১(রূপগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি হিসেবে রয়েছেন গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক। এ আসনে আওয়ামীলীগের কোন্দল ও গ্রুপিং এর কারনে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ও ঘটনায় হত্যাকান্ডের ঘটনাও ঘটেছে। যা আওয়ামীলীগের দুটি পক্ষ জড়িত। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্থানীয় এমপির সঙ্গে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শাহজাহান ভূইয়ার বিরোধ সৃষ্টি হয়। একাধিকবার দুজনের সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে। এরই মাঝে এ আসনে নৌকা প্রতীকের পক্ষে কাজে নেমেছেন কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিক। শাহজাহান ভূইয়া ও রফিকুল ইসলাম রফিক একজোট হয়ে মাঠে নেমেছেন। তাদের সমর্থকদের সঙ্গেও একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ফলে এ আসনে কে মনোনয়ন পাবেন সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেন না।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে আওয়ামীলীগের এমপি রয়েছেন নজরুল ইসলাম বাবু। তিনি আগামী নির্বাচনেও এ আসন থেকে মনোনয়ন চাইবেন। তার মনোনয়ন অনেকটাই নিশ্চিত। যদিও এ আসনে নৌকার পক্ষে কাজ করছেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল পারভেজ। আলোচনায় রয়েছেন সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভূইয়া ও সাবেক রাষ্ট্রদূত মমতাজ হোসেন। গত বছর এ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে আলমগীর সিকদার লোটনকে ঘোষণা করে যান জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরীক দল জাতীয়পার্টি থেকে এখানে এমপি হিসেবে রয়েছেন লিয়াকত হোসেন খোকা। এ আসনে আবারো মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে তাকে দেখা যেতে পারে। কারন এখানকার আওয়ামীলীগের একাংশ ও জাতীয়পার্টি চায় আবারো খোকাকে এমপি হিসেবে। যদিও আসনে আওয়ামীলীগের শক্ত মনোনয়ন প্রত্যাশি হিসেবে রয়েছেন সাবেক এমপি আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি মাহফুজুর রহমান কালাম। আলোচনায় রয়েছেন গত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পাওয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে একক মনোনয়ন প্রত্যাশি হিসেবে রয়েছেন বর্তমান এমপি একেএম শামীম ওসমান। তার প্রতিদ্বন্ধি শক্ত কোন প্রার্থীও এ আসনে নেই। আর শামীম ওসমান মানেই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ। ফলে এ আসনে শামীম ওসমান আগামী জাতীয় নির্বাচনেও মনোনযন পাচ্ছেন সেটা প্রায় নিশ্চিত।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ-৫(শহর-বন্দর) আসনে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরীক দল জাতীয়পার্টির এমপি হিসেবে রয়েছেন একেএম সেলিম ওসমান। আবারো এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে দেখা যেতে পারে সেলিম ওসমানকেই। কারন গত বছর এখানে এরশাদ এসে সে রকম ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এখানেও আওয়ামীলীগের একাংশ ও জাতীয়পার্টির পুরো অংশের নেতারা সেলিম ওসমানকে এমপি হিসেবে দেখতে চান। সেই সঙ্গে এখানকার বিএনপির নেতারাও দাবি করছেন এ আসনে সেলিম ওসমানকেই দরকার। যদিও এখানে আওয়ামীলীগের বেশকজন মনোনয়ন প্রত্যাশি রয়েছে। গত বছর এখানে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এসে বলেছিলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে গিয়ে জানাবো এখানে সেলিম ওসমান জনপ্রিয়।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ