আবারও বিতর্কে বিঁধলো মহানগর বিএনপি

৫ ভাদ্র ১৪২৫, সোমবার ২০ আগস্ট ২০১৮ , ১২:৩৯ অপরাহ্ণ

আবারও বিতর্কে বিঁধলো মহানগর বিএনপি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪১ পিএম, ৮ আগস্ট ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০৩:৪১ পিএম, ৮ আগস্ট ২০১৮ বুধবার


আবারও বিতর্কে বিঁধলো মহানগর বিএনপি

কমিটি ঘোষণা হওয়ার প্রায় দেড় বছরের মধ্যেই বিভিন্ন বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির নেতারা। দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে কোনো ভূমিকা রাখতে না পারলেও তারা বিভিন্ন কর্মকান্ডের মাধ্যেমে নিজেদেরকে প্রায় সবসময় আলোচনায় রেখে যাচ্ছেন। মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকার দলীয় নেতাদের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারলেও নিজ দলীয় নেতার সাথে তাল মিলাতে পারছেন না।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক এমপি অ্যাডভোকে আবুল কালামকে সভাপতি ও এটিএম কামালকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর বিএনপির কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে বিতর্কিত অনেক নেতাকেই কমিটিতে স্থান দেয়া হয়। ফলে কমিটি গঠনের শুরু থেকেই দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন নেতারা। এই দুই গ্রুপের নেতারা এখন পর্যন্ত ঐক্যবদ্ধ হয়ে দলীয় কোন কর্মসূচি পালন করতে পারেন নি। এমনকি দলীয় পার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতেও তারা ঐক্যমতে পৌছতে পারেনি।

এদিকে গত ৮ এপ্রিল থেকে চিকিৎসার অজুহাতে দেশ ছেড়ে সুদূর আমেরিকায় বেশ খোশ মেজাজেই অবস্থান করছেন। এটিএম কামাল দেশে থাকাকালিন অবস্থায় মহানগর বিএনপির একটি অংশকে রাজপথে দেখা পেলেও বর্তমানে তিনি বিদেশে থাকায় মহানগর বিএনপি একটি ঘরকুনে সংগঠনে পরিণত হয়েছে। যদিও সাম্প্রতিক সময়ের কর্মসূচিগুলোতে ওই অংশটিকে রাজপথে সক্রিয় থাকতে দেখা যাচ্ছে। তবে এটিএম কামালের দীর্ঘদিনের অনুপস্থিতে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে সৃষ্টি হচ্ছে গ্রুপ উপগ্রুপ।

মহানগর বিএনপির একটি পক্ষের সমর্থনে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব দেয়া হয় সহ সভাপতি পদে থাকা অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ূন কবিরকে। স্বাভাবিকভাবে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করার কথা যুগ্ম সম্পাদক পদে থাকা ব্যক্তির। কিন্তু তাকে না দিয়ে সহ সভাপতি পদে থাক ব্যক্তিকে দায়িত্ব দেয়ার বিষয়টি নিয়ে মহানগর বিএনপিতে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। যা বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদেরাও মেনে নিতে পারছেন না।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী দিনের কর্মসূচি নির্ধারণ করার লক্ষ্যে গত ৪ আগষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীদের ডেকে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় নেতারা। এতে অলোচনার অন্যতম বিষয় ছিল মহানগর বিএনপির কার্যক্রম। অভিযোগ করা হয়, দলের সাংগঠনিক দুর্বলতা সৃষ্টি হচ্ছে। দলের নেতাকর্মীদের মধ্যেও বিভাজন তৈরী করা হচ্ছে ফলে এখানে দলের রাজনৈতিক পরিবেশ নষ্ট করছে দলের ও বাইরের একটি চক্র।

এর আগে বৈঠকে মহানগর বিএনপির ৫ জনের নামের তালিকা অনুযায়ী সেখানে নেতাকর্মীদের প্রবেশ করানো হয়। তবে এখানে দলের সহ সভাপতি সরকার হুমায়ুন কবিরের নাম না থাকলেও তিনি এটিএম কামালের নামের স্থলে নিজের নাম দেখিয়ে ঢুকে পড়েন। পরে সেখানে এটিএম কামালের খোঁজ করা হলে তিনি নেই জানা যায়। পরে জিজ্ঞাসা করা হয় তাহলে তার স্থলে কে প্রবেশ করেছেন। এসময় নিজেকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জাহির করে হুমায়ুন এটিএম কামালের স্থলে প্রবেশ করেছেন বলে জানালে সেখান তিনি থাকতে পারবেন না বলে তাকে জানিয়ে দেয়া হয়।

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুলকে দলীয় কোন কর্মসূচিতেই দেখা যায় না। তবে দলীয় কোন কর্মসূচিতে দেখা না গেলেও সরকারী দলের কর্মসূচিতে ঠিকই তিনি উপস্থিত থাকেন। তার সামনে দলীয় প্রতিষ্ঠাতাকে কুকুর বলে গালি দিলেও তিনি নিরবে হজম করেছেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ