২৮ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

UMo

শোকের মাসে আ.লীগ নেতা কাউন্সিলরকে গণসংবর্ধনায় সমালোচনার ঝড়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫৫ পিএম, ১৩ আগস্ট ২০১৮ সোমবার


শোকের মাসে আ.লীগ নেতা কাউন্সিলরকে গণসংবর্ধনায় সমালোচনার ঝড়

চলছে শোকের মাস। একদিন পরই জাতির শোকাবহ বেদনাবিধুর দিন। অথচ মঙ্গলবার ১৪ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে ২নং বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এক আওয়ামীলীগ নেতা কাউন্সিলরকে গণসংবর্ধনা দিতে যাচ্ছে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। ওই গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজক হলেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী আর আমন্ত্রিত অতিথিদের বেশীরভাগই আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা। আর শোকের মাসে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজনের নামে উৎসবের আয়োজন করায় উঠেছে বিরূপ সমালোচনার ঝড়। খোদ সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারাও বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিনকে জেলার শ্রেষ্ঠ কাউন্সিলর হিসেবে সম্প্রতি ক্রেষ্ট প্রদান করে নারায়ণগঞ্জ জেলা সমিতি। এ উপলক্ষ্যে গোদনাইলের ধনকুন্ডা, বাড়ীপাড়া, মদিনাবাগ, মধুঘড় এলাকাবাসীর ব্যানারে মঙ্গলবার ১৪ আগষ্ট বিকেল ৪টায় গোদনাইল ২নং বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আয়োজন করা হয়েছে এক বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের। ওই অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করবেন গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহআলম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের সভাপতি এবং নাসিকের ২নং প্যানেল মেয়র ও ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল বারী। এছাড়া আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দের তালিকায় নাম রয়েছে সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড মোঃ শাহজাহান ভূইয়া জুলহাস, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা জাতীয় পার্টির সভাপতি কাজী মহসীন, যুদ্ধকালীন ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল মতিন, ৮নং ওয়ার্ড কমান্ডের কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান সাউদ, সহকারী কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা এহসান কবির রমজান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের অর্থ সম্পাদক আব্দুল মজিদ সাউদ, গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আবুল হোসেন মেম্বার, যুগ্ম সম্পাদক ইদ্রিস আলীসহ অনেকে। তবে দাওয়াতপত্রে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি মোঃ কামাল হোসেন এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবদলের সভাপতি ও মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মমতাজ উদ্দিন মন্তুর নাম থাকলেও ওই দাওয়াতপত্রে তাদের দলীয় পরিচয় উল্লেখ করা হয়নি। মোঃ কামাল হোসেনের নামের সঙ্গে উল্লেখ করা হয়েছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার। আর মমতাজ উদ্দিন মন্তুর নামের সঙ্গে লেখা রয়েছে বিশিষ্ট যুবনেতা।

এদিকে শোকের মাসে যেখানে একদিন পরে ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জেলা জুড়েই নানা ধরনের কর্মসূচী পালনের আয়োজন চলছে সেখানে ১৪ আগষ্ট মঙ্গলবার বিকেলে গোদনাইলের ২নং বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কাউন্সিলর ও আওয়ামীলীগ নেতাকে বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা নিয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরূপ সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কারণ এই আগষ্ট মাসের শুরু থেকেই নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে শোক দিবসের কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে। শোকের মাসের কারণে অনেক আওয়ামীলীগ নেতা যেখানে তাদের জন্মদিন কিংবা অন্য কোন উৎসব পালন করেন না সেখানে এই ধরনের ব্যপক আয়োজনের মাধ্যমে বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের নামে উৎসবের আয়োজন করায় ক্ষুব্দ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। তবে শুধু স্থানীয় আওয়ামীলীগই নয় থানা আওয়ামীলীগের নেতারাও বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে জানতে বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানটির সভাপতি গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহআলমের মুঠোফোনে কল করা হলে তিনি বলেন, তারা কোন উৎসব করবেন না শুধু কাউন্সিলরকে ফুল দিবেন।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল বারী মুঠোফোনে জানান, আমি এ বিষয়ে ইউনিয়নের সেক্রেটারী মোঃ শাহআলমকে বলেছিলাম শোকের মাসে এ ধরনের অনুষ্ঠান না করতে। কারণ বিষয়টি খারাপ দেখায়। কিন্তু সে বলেছে কেউ কিছু মনে করবে না। মূলত পরদিন জাতির জনকের শাহাদাৎ বার্ষিকীর অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে একইস্থানে প্যান্ডেল করতে হবে। তাই এক খরচেই দু’টি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে বলে শুনেছি।

গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের সভাপতি এবং নাসিকের ২নং প্যানেল মেয়র ও ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতির মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান জানান, গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারীর জ্ঞান বুদ্ধি মনে হয় কমে গেছে। তারা দুইজনেই মনে হয় আওয়ামীলীগ খুব ভাল বোঝে। এজন্যই এই অবস্থা। আর সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের সভাপতির অবস্থা হয়েছে ঢাল নেই তলোয়ার নেই নিধুরাম সরদার। সে একাই যুবলীগ করে। আর একদিন পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী। শোকের মাসে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান তারা কিভাবে আয়োজন করে। আর কয়েকদিন পরে অনুষ্ঠানের আয়োজন করলে কি এমন ক্ষতি হতো। ওই অনুষ্ঠানের বিষয়ে আমাকে কিছু জানানো হয়নি।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ