নারায়ণগঞ্জকে গলা টিপে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে : সেলিম ওসমান

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:৩৭ পিএম, ১৭ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার



নারায়ণগঞ্জকে গলা টিপে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে : সেলিম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, আপনারা প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে মনে করবেন চেঞ্জ অর ডাই। পরিবর্তন করো নয়তো মরো। আমি সেলিম ওসমান আমার কি হবে না হবে সেটি বড় কথা নয়। আমাকে দলে নেন বা না নেন আপনাদের দলের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে এই প্রত্যয় নিয়ে আপনাদের ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করতে হবে। আমি ৭৫ সালের আগ পর্যন্ত শহর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ছিলাম। একটা কথা মনে রাখবেন ওই সময় আমাদের স্লোগান ছিল ‘এক নেতা এক দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ আর এখন আপনাদের বলতে হবে ‘এক নেতা এক দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’।

শুক্রবার ১৭ আগস্ট সকাল ১১টায় চাষাঢ়ায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহর যুবলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে আয়োজিত দোয়ার পূর্বে আলোচনা সভায় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান সকলের প্রতি এ আহবান রাখেন।

উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে এমপি সেলিম ওসমান প্রশ্ন রেখে বলেন, কি আপনারা পারবেন তো সবাই ঐক্যবদ্ধ থেকে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বানাতে? পারবেন তো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে শেখ হাসিনার সৈনিক হতে? এ সময় উপস্থিত সকলে দুই হাত তুলে শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী বানাতে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এর আগে সকলের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, আপনাদের সবাইকে অনেক সতর্ক থেকে কাজ করতে হবে। অনেকেই পায়ে পারা দিয়ে ঝগড়া করতে চাইবে। অনেক উস্কানি দিবে। অনেকেই এই পবিত্র শহীদ মিনারে এসেও উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে থাকেন। ঝগড়া করার জন্য ফুটপাত থেকে হকার উঠিয়ে দিবে। যাতে করে আপনাদের ধৈর্য হারিয়ে কোন বিশৃঙ্খলা করে বসেন। মনে রাখবেন আপনারা যদি উত্তেজিত হয়ে নারায়ণগঞ্জে বিশৃঙ্খল কোন কিছু করে বসেন তাহলে আমরা প্রধানমন্ত্রী হারাবো। কারণ এই নারায়ণগঞ্জ সারা বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেয়, সারা দেশের চালিকা শক্তি এই নারায়ণগঞ্জ। নারায়ণগঞ্জের উপরই নির্ভরশীল সারা বাংলাদেশ। যার ফলে আমরা নারায়ণগঞ্জ থেকে অনেক কিছু হারিয়ে ফেলেছি। নারায়ণগঞ্জকে গলা টিপে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে বার বার। কেন নারায়ণগঞ্জকে ধ্বংস করার চেষ্টা করা হয়েছে জানেন আপনারা? এই নারায়ণগঞ্জ থেকেই ৬ দফা, ১১দফা, ৫২’র ভাষা আন্দোলন, ৭১’র মুক্তিযোদ্ধের সূত্রপাত হয়েছে। এসব আন্দোলনের নারায়ণগঞ্জ থেকেই শুরু হয়েছে। এমনকি ৭৫’র বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার পর ওই রাতেই সর্বপ্রথম নারায়ণগঞ্জ থেকেই আপনাদের প্রিয় নেতা প্রয়াত নাসিম ওসমান এবং বিকেএমইএ প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মঞ্জুরুল হক বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিশোধ নিতে দ্বিতীয়বারে মত যুদ্ধে অংশ নিয়ে ছিল।

নারায়ণগঞ্জ সারা বাংলাদেশের চালিকা শক্তি উল্লেখ করে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে লোক না গেলে পল্টনে মাঠ পূর্ণ হতো না। তাই স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির প্রথম টার্গেট এই নারায়ণগঞ্জ। অত্যন্ত সুপরিকল্পিত ভাবে তারা নারায়ণগঞ্জকে ধ্বংস করে দিতে চেয়েছিল। এতো কিছুর পরেও যখন নারায়ণগঞ্জকে ধ্বংস করতে পারে নাই তখনই ২০০১ সালে ১৬ জুন চাষাঢ়ায় আওয়ামীলীগ অফিসে বোমা মেরে নারায়ণগঞ্জের ২১জন কৃতি সন্তানকে হত্যা করেছে। আজকে যেখানে আপনারা বসে আছেন এখানেই ২১জন মানুষের তাজা রক্তে রঞ্জিত হয়ে ছিল। সেদিন মৃত্যু শয্যায় থেকেও শামীম ওসমান নিজেকে বাচাঁনোর কথা না বলে বলেছিলো শেখ হাসিনাকে বাঁচান। এরপর ঢাকায় ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বোমা হামলা চালানো হয়। অতত্রব আপনারা বুঝতেই পারছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো প্রধানমন্ত্রী বানাতে না পারলে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি ক্ষমতায় এসে দেশের কি অবস্থা করবে। আবারো শহীদের রক্তের বিনিময় অর্জিত লাল সবুজের পতাকা রাজাকারের গাড়িতে তুলে দিবে। ২০০১ সালের পর যা আপনারা নিজের চোখেই দেখেছেন। তাই এ অবস্থা যেন দেশে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করে শেখ হাসিনাকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে। তাহলে আগামী ৫ বছরে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ২৫ বছর এগিয়ে যাবে। আর স্বাধীনতা বিরোধ শক্তি ক্ষমতায় আসলে বাংলাদেশের অবস্থা কি হবে সেটা আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না।

বক্তব্যের শেষে সেলিম ওসমান ‘জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু’ জয় হউক শেখ হাসিনার স্লোগান দেন।

শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামীলীগে সহ সভাপতি চন্দন শীল, সহ সভাপতি রবিউল হোসেন, কমান্ডার গোপি নাথ দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল, মহানগর শ্রমিক লীগের সভাপতি কাজিম উদ্দিন, জেলা যুবলীগের সহ সভাপতি জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, শহর সেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাসানুল হাসান নিপু, সদ্য বিদায়ী সভাপতি সাফায়েত আলম সানি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসমাইল রাফেল প্রধান, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসনাত রহমান বিন্দু, মহানগর যুব মহিলা লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুইটি ইয়াসমিন, সহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ সহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও