২৯ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮ , ৫:০৭ পূর্বাহ্ণ

UMo

১৭ আগস্ট জাতীয় সন্ত্রাস বিরোধী দিবস ঘোষণার দাবি ওয়ার্কার্স পার্টি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:০৭ পিএম, ১৭ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার


১৭ আগস্ট জাতীয় সন্ত্রাস বিরোধী দিবস ঘোষণার দাবি ওয়ার্কার্স পার্টি

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যান মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপির উপর ১৯৯২ সালের ১৭ আগস্ট হামলার বিচার দাবি করে নারায়ণগঞ্জে সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশ থেকে ১৭ আগস্টকে জাতীয় সন্ত্রাস বিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষণার দাবি করেন ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ।

শুক্রবার (১৭ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির আয়োজনে সমাবেশে জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ সহ ১৪ দলীয় জোটের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমাবেশ শেষে নেতৃবৃন্দ মিছিল করেন।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক হিমাংশু সাহার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড বশিরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় কমিটির বিকল্প সদস্য কমরেড জাকির হোসেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রোকনউদ্দিন আহমেদ, জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি ও মহানগর ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি এ বি সিদ্দিক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মহানগর কমিটির সভাপতি মোসলে উদ্দিন, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা এইচ রবিউল চৌধুরী।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বশিরুল ইসলাম বলেন, ‘এই মাস শোকের মাস। এই মাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছে। এই মাসে আমাদের প্রাণ প্রিয় নেতা রাশেদ খান মেননকে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমন করা হয়েছিল। এই মাসেই আওয়ামীলীগের সভানেত্রীসহ আরো অনেকের উপর হামলা করা হয়েছিল। এই দিবসটিকে আমরা সন্ত্রাস বিরোধী দিবস হিসেবে পালন করছি। আমরা এই দিবসটিকে জাতীয় সন্ত্রাস বিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষণা চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা পেয়েছি, সার্বভৌমত্ব পেয়েছি। কিন্তু যুদ্ধ এখনো শেষ হয় নাই, আমাদের মুক্তিযুদ্ধ অসমাপ্ত রয়ে গেছে। কারণ স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো এদেশে পাকিস্তানের শাসন কায়েম করার জন্য ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। এখন এই ১৪ দল ও তার নেতৃবৃন্দ ক্ষমতায় না থাকে তাহলে ক্ষমতায় আসবে বিএনপি-জামাত সরকার। তাহলে আবার এদেশে বোমাবাজি চলবে, জ্বালাও-পোড়াও চলবে, সাম্প্রদায়িকতা তৈরি হবে। তখন প্রগতিশীলদের রাজনীতি করা কঠিন হয়ে পড়বে। তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সন্ত্রাস থেকে এদেশের জনগণকে মুক্ত করতে হবে। একই ভাবে এই সরকারের প্রয়োজন দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার। কেননা দুর্নীতি আর উন্নয়ন পাশাপাশি চলতে পারে না।’

কেন্দ্রীয় কমিটির বিকল্প সদস্য জাকির হোসেন বলেন, ‘এই মাস যেমন শোকের মাস, তেমনি সন্ত্রাসের মাস। বিভিন্ন কারণে সন্ত্রাস হতে পারে। সামাজিকভাবে, রাজনৈতিকভাবে, ব্যক্তিগতভাবে সন্ত্রাস তৈরি হয়। অনেক সময় রাষ্ট্রও সন্ত্রাস তৈরি করে। সন্ত্রাসের পেছনে কারণ হচ্ছে সম্পদ, ক্ষমতা। সম্পদ ও ক্ষমতাই সন্ত্রাস তৈরি করে। এই সন্ত্রাস কেবল জাতীয়ভাবেই নয় রয়েছে আন্তর্জাতিকভাবেও। এই ধরুণ, অস্ত্র তৈরি করা হয়। কিন্তু যুদ্ধ না থাকলে তো এই অস্ত্র বিক্রি হবে না। তাই তৈরি হয় আইএস, আল কায়দা। এই সন্ত্রাস তৈরি করে পুজিবাদী সমাজ। যতোদিন পুজিবাদী সমাজ থাকবে ততোদিন এই সন্ত্রাস থাকবে। এদেশে কেবল সন্ত্রাস উচ্ছেদ করতে পারে শ্রমজীবী মানুষ।’

সভাপতির বক্তব্যে হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমাদের নেতা রাশেদ খান মেননের উপর হামলা করা হয়। এছাড়া আরো অনেক নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা করা হয়। সেই হামলার এক বছর পর ১৯৯৩ সাল থেকে বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টি এই সন্ত্রাস বিরোধী দিবস পালন করে আসছে। আমরা এই দিনটিকে জাতীয়ভাবে সন্ত্রাস বিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষণা চাই।’

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ