৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ২২ নভেম্বর ২০১৮ , ৫:৩৭ অপরাহ্ণ

rabbhaban

নৌকা ডুবানোর চেষ্টা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৭ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার


ছবিগুলো আসন কেন্দ্রীক

ছবিগুলো আসন কেন্দ্রীক

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনেই মহাজোটের রয়েছে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী। এসব প্রার্থীদের মধ্যে অনেকেই মনোনয়ন রেসে এগিয়ে থাকলেও মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেকে তাতে বড় ধরনের বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তবে বর্তমান এমপিরা মনে করছেন এসব প্রার্থীরা তাদের জন্য বাধা না বরং এক ধরনের ডিস্টার্ব। মনোনয়নের নাম ঘোষণার আগে এ এসব কর্মকান্ড দলের ভেতরে ও বাইরে নানা ধরনের জটিলতার সৃষ্টি করবে। ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শামীম ওসমানের মনোনয়ন নিশ্চিত ঘোষণা দিয়েছেন মন্ত্রী শাজাহান খান। আর পরদিন সেটা সত্য না জানিয়ে গেলেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

আওয়ামী লীগের নেতাদের মতে, নিজ দলের ভেতরে নিজেদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ নিয়ে বিপাকে পড়তে পারে আওয়ামী লীগ ও নৌকার প্রার্থীরা। তারা চেষ্টা করছে নিজ দলের নৌকাই ডুবিয়ে দিতে। কারণ বর্তমান এমপি প্রার্থীদের বিরুদ্ধে প্রচারণা যখন করছেন অপর মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তখন আওয়ামী লীগের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। আর বর্তমান এমপিদের বিরুদ্ধেই প্রচারণায় নৌকারও দুর্নাম করা হচ্ছে।

রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টদের মতে, আগামী নির্বাচনের আগে দলের ভেতরে এ ধরনের প্রতিযোগিতা বন্ধ না হলে ভোটে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হতে পারে। কারণ এখন যারা মনোনয়ন রেসে আছেন তাদের কেউ মনোনয়ন না পেলে হয়তো ভোটের ময়দান থেকেও সরে যেতে পারে। তখন প্রতিপক্ষ শিবির এতে লাভবান হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা তৈরি করে সে হিসেবে কাজ এগিয়ে চলেছেন। তিনিই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত ঘোষণা দিবেন। মনোনয়নের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী ব্যতিত আর কেউ জানে না। কিন্তু মন্ত্রীরা এসে যদি কারো নাম বলে আবার পরদিন সেটার পাল্টা বক্তব্য দেওয়া হয় তাহলে সেটা আত্মঘাতি হবে। কারণ এতে আমাদের দলের ভেতরের কোন্দল প্রকাশ পাবে। সে কারণে এগুলো ভেতরের ক্ষেত্রে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান বর্তমান সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী। তবে সেখানে গাজীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন কায়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম। ইতোমধ্যে তাদের পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে দলের সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবুর পাশাপাশি নৌকার মাঝি হতে চান কেন্দ্রীয় যুবলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইকবাল পারভেজ। এর মধ্যে বাবুর বিরুদ্ধে সরাসরি মাঠে নেমেছেন পারভেজ। প্রতিনিয়ত তিনি বক্তব্য রাখছেন বাবুর বিরুদ্ধে।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির লিয়াকত হোসেন খোকা আশা করছেন, এবারও মহাজোটগত অথবা দলীয় প্রার্থী হয়ে সংসদে যাবেন। তবে এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে মাঠে কাজ করছেন সাবেক সংসদ সদস্য কায়সার হাসনাত এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম। তাদের মধ্যে কালাম ও কায়সারের মধ্যে কোন বাদানুবাদ না থাকলেও খোকা ও কায়সারের মধ্যে বাদানুবাদ আছে।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা এ কে এম শামীম ওসমান এবারও প্রার্থী হবেন এটা প্রায় নিশ্চিত। তবে কেন্দ্রয় শ্রমিকলীগের শ্রম ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ মনোনয়ন চাইবেন বলে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এই আসনে এমপি শামীম ওসমান মনোনয়নের প্রাথমিক ১০০ জনের তালিকাতে রয়েছেন- নৌ মন্ত্রী শাজাহান খানের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে গত ১০ সেপ্টেম্বর দলটির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ তুলে পাল্টা বক্তব্য দিয়েছেন। নৌ মন্ত্রী এমপি শামীম ওসমানের মনোনয়ন ইস্যুতে গ্রীন সিগন্যাল দিলেও বিপরীত মেরু মেয়র আইভীর পাশে অবস্থান করা কেন্দ্রীয় নেতা নওফেল এর প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা মন্তব্য করলেন। এতে করে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের দ্ইু মেরুর দ্বন্দ্ব বিভক্তিতে নতুন করে প্রকাশ্যে ভাগ বসাতে শুরু করেছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। যেকারণে নারায়ণগঞ্জের দুই মেরুর দ্বন্দ্বের আগুন জেলার গন্ডি পেরিয়ে রাজধানীর কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে বর্তমান এমপি সেলিম ওসমান। তার বিপরীতে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মাঠে রয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া ও আব্দুল কাদির, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা ও সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের দাবী জাতীয় পার্টির কারণে তারা নির্যাতিত। এ অবস্থার পরিত্রাণের জন্য আওয়ামী লীগের নৌকা প্রার্থী দিতে হবে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ