১০ আশ্বিন ১৪২৫, বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৭:৪৬ পূর্বাহ্ণ

ক্ষমতা মানে প্রতিপক্ষকে জেল খাটানো : নারায়ণগঞ্জে জোনায়েদ সাকি


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩৩ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার


ক্ষমতা মানে প্রতিপক্ষকে জেল খাটানো : নারায়ণগঞ্জে জোনায়েদ সাকি

গণসংহতি আন্দোলনের ১৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সদস্য কর্মী শুভানুধ্যায়ী সম্মিলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে সাধু পৌলের গীর্জার পেছনে গণসংহতির নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে এই সম্মিলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মিলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, দেশের অরাজক পরিস্থিতিতে উত্তরনের জন্য সংবিধানের পরিবর্তনের বিকল্প নেই। দেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে হবে। বিচার বিভাগ ও আইন বিভাগের মাঝে ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে হবে। বর্তমানে এই দেশে ক্ষমতা হাতে পাওয়া মানেই প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীদের মামলা হামলা করে কয়েকবছর জেল খাটানো। আর পরবর্তীতে আবার ক্ষমতার পরিবর্তনে একই চিত্র দেখা দেয়। এইভাবে একটি দেশ দীর্ঘদিন চলতে পারেনা।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পরিবার হত্যাকান্ডের বিচার বহুবছর পর হলেও বাকি সকল বিচার যেন স্বার্থের সাথে জড়িয়ে আছে। ত্বকী হত্যার ব্যাপারটি এতটাই জলজ্যান্ত যে পুরো ঘটনা নারায়ণগঞ্জ শহরের সবাই জানে কিন্তু সেখানে বিচার হচ্ছে না। কারন সেখানে রাজনৈতিক স্বার্থ জড়িয়ে আছে। তাহলে বলা যায় শাসন ব্যাবস্থা নির্ধারিত যখন অন্যায় নিজেদের বিরুদ্ধে হয় সেক্ষেত্রে তারা কঠোর ব্যবস্থা নেন। কিন্তু অন্য কারো বিরুদ্ধে যদি অন্যায় সংগঠিত হয় আর অন্যায়কারী পক্ষের লোক তাহলে সেখানে বিচার বলে কিছু থাকে না। ধীরে ধীরে ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে বিচার থামিয়ে দেয়া হয়।

সাকি বলেন, আজকে ড. কামাল হোসেন ও বলছেন সংবিধান সংস্কার করতে হবে। দেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে হবে। বিচার বিভাগ ও আইনবিভাগের মাঝে ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে হবে। জনগনের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। একবার বেশী ভোট পেলে ৫ বছরের জন্য মালিক হওয়ার প্রবনতা বাদ দিতে হবে। বিরোধী পক্ষ থেকে যদি কেউ মেয়র বা চেয়ারম্যান হয় তাহলে তার ভোগ করতে হয় ২/৩ বছরের কারাদন্ড অথবা মামলায় জর্জারিত হয়ে পলাতক, অথচ সে একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি।

তিনি শ্রমিকদের বেতনের নুন্যতম মজুরীর পরিমানের সমালোচনা করে বলেন, সরকারের কাছে প্রশ্ন রইল ঢাকা, চট্টগ্রাম কিংবা নারায়ণগঞ্জে ৮ হাজার টাকায় কিভাবে একটা পরিবার চলতে পারে তা তারা দেখিয়ে দিয়ে যাক। শ্রমিকের সৃষ্ট সম্পদে ব্যবসায়ীরা ধনী থেকে ধনী হচ্ছেন যা চীন ভারত কে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। আর শ্রমিকের বেতন ৮হাজার টাকাতেই বেধে দেয়া হচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সমন্বয়ক তরিকুল সুজন বলেন, গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলায় দীর্ঘদিন ধরে মানুষের অধিকার আদায়ে কাজ করে চলছে। মানুষের ন্যায্য অধিকার আদায় করতে গিয়ে একাধিকবার বাধার সম্মুখীন হতে হলেও তাতে দমে থাকেনি। আন্দোলন সংগ্রামে নারায়ণগঞ্জে প্রথম কাতারে ছিল গণসংহতি আন্দোলন ও ছাত্র ফেডারেশনের নেতাকর্মীরা। নারায়ণগঞ্জে গণসংহতির কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সমগীত, গায়েন সহ অপরাপর সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের অবদান অনস্বীকার্য। বর্তমানে গনসংহতির কার্যক্রম মহানগরের পাশাপাশি ফতুল্লা সিদ্ধিরগঞ্জ ও বন্দরে কার্যক্রম চলছে দ্রুতগতিতে।

সম্মিলনে জেলা সমন্বয়ক তরিকুল সুজনের সভাপতিত্বে ও নির্বাহী সমন্বয়ক অঞ্জন দাসের সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সাংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, কবি আরিফ বুলবুল, ফতুল্লা থানার আহ্বায়ক জেলা গণসংহতির রাজনৈতিক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান খান রিচার্ড, জেলা নারী সংহতির আহ্বায়ক পপি রানী সরকার, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার আহ্বায়ক জাহিদুল আলম আল জাহিদ, বন্দর থানার আহ্বায়ক এমদাদ হোসেন, গানের দল গায়েনের শাহীন মাহমুদ, সমগীতের অমল আকাশ, জেলা ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি শুভ দেব ও সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস জামান।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ