সামনে অনেক খেলা হবে : শামীম ওসমান (ভিডিও)

সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:২৪ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রবিবার



সামনে অনেক খেলা হবে : শামীম ওসমান (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, যে ব্যক্তি বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা পরিচালনা করেছেন। সকল ভয়ভীতিকে উপেক্ষা করে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার করে বাঙালী জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন তার সন্তান আজকের আমাদের আইনমন্ত্রী। যিতি সততা, জ্ঞান ও ভালো আচরণের মধ্য দিয়ে শুধু জাতীয় সংসদ নয় সাধারণ মানুষের কাছেও জনপ্রিয়। আমি তাকে মন্ত্রী হিসেবে বলবো না আমার বড় চাই হিসেবে বলবো। আপনাকে উদ্দেশ্য করে বলছি, আজকের সকল সমস্যাই আপনি শুনেছেন এসব আপনি সমাধান করে দিবেন। নারায়ণগঞ্জের সকল আইনজীবীরা কোন লোভ লালসার কাছে কখনো মাথা নত করেনি।

২৩ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গনে জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী কমিটির অভিষেক ও নতুন ডিজিটাল বার ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে তিনি এসব কথা বলেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

ওই অনুষ্ঠান বর্জন করেছিল বিএনপি পন্থী আইনজীবীরা। বক্তব্যে শামীম ওসমান তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, এটি আপনাদের পেশা। আপনি বিএনপি করতে পারেন জামায়াত করতে পারেন কিন্তু আজকে দুই কোর্ট আলাদা হয়ে গেলে তো আপনাদের সমস্যা। আজকে আপনাদের এখানে থাকা উচিত ছিল। এখানে থেকে মন্ত্রীর সামনে আপনাদের দাবিগুলো তুলে ধরা উচিত ছিল কিন্তু আজকে আপনারা এখানে নাই। আর যেহেতু নাই আমি তাদের নিয়ে কিছু বলতে চাইনা তবে এতটুকু বলতে চাই, আপনাদের কাছে তারা কিন্তু ভোট চেয়েছে আর আপনাদের দাবির পক্ষে আজকে তারা এখানে নেই।

আইনমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, বড় ভাই আজকে যদি আপনি এই সমস্যাগুলোর সমাধান করে দিয়ে না যান আমরা লজ্জা পাবো। আমি জানি ভাইয়া আপনি আমাদের লজ্জা দিবেন না। আপনি পারবেন কারণ ওই সংসদে আমি যাকে মায়ের মত ভালোবাসি সেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩ জনকে ছোট ভাইয়ের মত স্নেহ করেন আপনি তাদের একজন। আপনার কথা আমার নেত্রী ফেলবে না আমি জানি। শুধু বারের সমস্যা না, যদি অন্য যে সমস্যাগুলো আছে সেগুলো যদি আপনার মাধ্যমে আমরা তুলে ধরি আমি বিশ্বাস করি এগুলি আমরা সমাধান করতে পারবো।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে এমপি বলেন, অনেকেই স্বপ্ন দেখছেন দেশে কিছু একটা ঘটবে। ডক্টর ফক্টর সব এক হয়েছে, কিভাবে কি করছে কে জানে। কেউ সকাল বিকাল মিটিং করে, কেউ সাদা চামড়াদের কাছে তোয়াজ করে, কেউ জাতিসংঘে গিয়ে কান্নাকাটি করে, কেউ বাংলাদেশে মঞ্চ করে নানা কথা বলে আবার কেউ কবিতা আবৃতি করেন। ‘দাদা তুমি কল্পতরু, আমরা তোমাদের কেনা গরু, যদি দাও একটু ভূষি তাতেই আমরা খুশি।’

তিনি বলেন, জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি যারা ২০১৩, ১৪, ১৫ সালে মানুষকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মেরে জনবিচ্ছিন্ন হয়েছে তারা অনেকদিন পরে একটু আশার আলো দেখছেন। কারণ তাদেরই একজন মহামান্য রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী উপর থেকে হাত বাড়িয়েছে আর তারা সেই হাত ধরে কিছু একটা খোঁজার চেষ্টা করছেন। আর তাকেই একদিন আপনারা মারার চেষ্টা করেছিলেন আর আমার শ্রদ্ধেয় বদরুদ্দোজা চৌধুরী দৌড়ে দৌড়ে শেষ পর্যন্ত রেললাইন দিয়ে পালিয়ে পালিয়ে মোটরসাইকেল দিয়ে গিয়ে পালাতে পেরেছিলেন। সেদিন যদি সে মারা যেতেন তাহলে আজ কে আপনাদের হাত বাড়িয়ে দিতো আর কে আপনাদের আশার আলো দেখাতো। তবে হাতটা বাড়িয়ে যদি ১০তলা বিল্ডিং হয় আর তিন তলায় গিয়ে যদি শ্রদ্ধেয় বদরুদ্দোজার মনে পড়ে যায় আরে বেটা তোরাই তো সেই তারেক রহমানের দল, যারা আমাকে শুধু মারতেই চেষ্টা করে নাই, আমার বাড়িতে রাতের বেলায় আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল। আর মনে পড়ে যদি রাষ্ট্রপতি সাহেব আবার হাত ছেড়ে দেয় তবে আপনাদের মাজা তো এমনিতেই ভাঙ্গা এবার বুঝি আর সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারবেন না।

শামীম ওসমান বলেন, আমরা জানি সামনে অনেক খেলা হবে। নরপশুরা ঘাতকরা থাবা দেবে বাংলাদেশের মানচিত্রে। নারায়ণগঞ্জের বাইতুল আমানে আমার দাদার বাসায় বসে আওয়ামীলীগ তৈরী হয়েছিল, প্রথম সংবিধান লেখা হয়েছিল। আমি এই নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা। যদি কেউ মনে করেন কোন সাম্রাজ্যবাদী শক্তির সাথে বসে আবারো সন্ত্রাস আগুন দিয়ে ক্ষমতায় যাবেন তাহলে নারায়ণগঞ্জের মানুষ তা রুখে দাঁড়াবে। আমরা প্রস্তুত আছি। যারা ষড়যন্ত্র করে দেশ ও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে, যারা পদ্মা সেতু বন্ধ করে দেয় দেশে ও বিদেশে বসে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়না কেন আমার প্রশ্ন।

সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েলের সভাপতিত্ব ও সেক্রেটারী মোহসীন মিয়ার সঞ্চালনায় ওই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাখেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বেগম বাবলী, জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমান, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সালহে শেখ মুহাম্মদ জহিরুল হক, যুগ্ম সচিব (প্রশাসন-১) বিকাশ কুমার সাহা, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান প্রমুখ।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও

আরো খবর