৪ কার্তিক ১৪২৫, শনিবার ২০ অক্টোবর ২০১৮ , ২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

UMo

পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জে লাভবান গিয়াসউদ্দিন


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৫০ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার


পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জে লাভবান গিয়াসউদ্দিন

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের ক্ষমতাসীন দলের এমপি শামীম ওসমান ও বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জ দেয়ার রাজনীতিক পরিস্থিতি অনেটা উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। তবে এই দুজনের কেউই এখনো একত্রে না বসলেও একজন আরেকজনকে পালাক্রমে চ্যালেঞ্জ দিয়েই চলেছেন। কিন্তু কেই সেই চ্যালেঞ্জের সম্মুখিন হচ্ছেনা। তবে এই চ্যালেঞ্জের ফলে দীর্ঘ দিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন সবদিক দিয়ে লাভবান হচ্ছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে শামীম গিয়াসের পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জ পরিস্থিতিকে বেশ উত্তপ্ত করছে। তবে এই চ্যালেঞ্জের ফলে দীর্ঘদিন আলোচনার বাইরে থাকা বিএনপি নেতা গিয়াসউদ্দিন এমপি শামীম ওসমানের জনপ্রিয়তার উপর ভর করে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছেন। এছাড়া গিয়াসউদ্দিন শামীম ওসমানের কাছে ফ্যাক্ট হিসেবে গণ্য হচ্ছে যা আসন্ন নির্বাচনে বেশ প্রভাব ফেলবে।

১০ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্যকে উদ্দেশ্য করে শামীম ওসমান বলেন, যেভাবে সম্পদ লুট করেছেন, সেই হিসাবে বেশীদিন টিকবেন না। যদি আপনি আমার ২০ ভাগের ১ ভাগ উন্নয়নও করে থাকেন, তবে রাজনীতি ছেড়ে দিব। আপনি আসেন, সাহস থাকলে এক মঞ্চে উঠেন কে কত উন্নয়ন করেছেন জনগণের কাছে প্রকাশ করি। মঞ্চে শুধু আপনার সাথে বিএনপির লোক থাকবে। আর আমি থাকবো একা।

গত ৫ অক্টোবর সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পশ্চিম পাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের মাঠে কর্মীসভায় শামীম ওসমান সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনের ব্যাপক সমালোচনা করে বলেছিলেন, ‘আপনি অন্য এলাকার কোনো কাজ করেন নাই। তাই বলে নিজের এলাকার উন্নয়নও করবেন না! আসলে তিনি উন্নয়ন করবেন কি, তিনি তো শুধু খাই, খাই আর খাই করেই পার করেছেন ৫ বছর। এই যে রেবতী মোহন স্কুল। এই স্কুলে সারাজীবন উনিই চেয়ারম্যান ছিলেন। উনিই সব কিছু। অথচ উনি এই স্কুলের জন্য কিছুই করলেন না। আমি আইসা এই স্কুলে ৪ থেকে সাড়ে ৪ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করে দিলাম।’

এমপি শামীম ওসমানের সামলোচনার প্রেক্ষিতে ৭ অক্টোবর গিয়াসউদ্দিনও পাল্টা জবাব দেন। একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল নারায়ণগঞ্জ টুডেতে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় গিয়াসউদ্দিন বলেছেন, শামীম ওসমান আসলে একজন কাপুরুষ। তিনি (শামীম ওসমান) বলে বেড়ান ৭ হাজার ৪শ কোটি টাকার কাজ করেছেন। এত টাকার উন্নয়ন তিনি কোথায় করলেন? আমি বিশ্বাস করি এর হিসেব তিনি নিজেও দিতে পারবেন না। বলার জন্য তিনি এসব বলে বেড়াচ্ছেন যা গলাবাজি ছাড়া আর কিছু নয়। উনি নিজেকে খুব চালাক ভাবেন আর সাধারণ মানুষকে বোকা মনে করেন। আসতে তিনি নিজেই বোকার স্বর্গে বাস করছেন। এখনকার মানুষ যথেষ্ট সচেতন। তারা ভালো মন্দের নির্ণয় করতে জানেন। তারা বুঝেন শামীম ওসমানের গলাবাজিটা। তাই এই জনগণই সময় হলে শামীম ওসমানের এমন গলাবাজির জবাব দিয়ে দিবেন।”

গিয়াসউদ্দিন চ্যালেঞ্জ করে বলেন, “আমার ৫ বছরে আমি যতটুকু কাজ করেছি সেই কাজের উপর দাঁড়িয়েই তিনি মিথ্যা বলে বেড়ান। আমার কাজের উপর দাঁড়িয়েই তিনি শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। আমার কাজের উপর দাঁড়িয়েই তিনি সভা সমাবেশ করেন। ফতুল্লা সিদ্ধিরগঞ্জের মানুষ জানেন, তিনি কতটুকু কাজ করেছেন আর আমি কতটুকু করেছি। তিনি যদি বেশি কাজ করে থাকেন তাহলে নিশ্চয় জনগণ তাকে বেশি ভালোবাসবেন? তাহলে এত ভয় কেন? দিক না সুষ্ঠু একটা নির্বাচন আর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করুক, তখনই প্রমাণ হবে জনগণ কাকে বেছে নেয় আর কাকে ছুড়ে ফেলে দেয়।”

একদিন পর ৮ অক্টোবর সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলা এলাকাতে ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কর্মীসভায় গিয়াসউদ্দিনকে উদ্দেশ্য করে শামীম ওসমান পাল্টা চ্যালেঞ্জ করে বলেন, ‘আপনি ভয় পাইয়েন না। আমি পুলিশের হাতে পায়ে ধরে বলবো আপনাকে যেন গ্রেফতার না করে। আমি একা থাকবো স্টেজে। আপনি আপনার লোক নিয়ে থাইকেন। আসেন একটা চ্যালেঞ্জ নেই। ৯৬ থেকে ২০০১ আর ২০০৮ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত আমি কি করছি আ আপনি কি করছেন। সমান সমান হওয়ার দরকার নাই। আপনি যদি আমার কাজের ৫ ভাগের ১ ভাগও করে থাকেন তাহলে আমি আর নির্বাচন করবো না।’’

আসন্ন নির্বাচনের আগে এমপি শামীম ওসমান উন্নয়ন প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অনেকটা বিদ্রুপ করে বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিনকে নিয়ে মন্তব্য করেছেন। আর সেই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন তাকে। এদিকে শামীম ওসমানও পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন। এভাবে পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে দিন অতিক্রম হলেও এখন পর্যন্ত কেউ কারো চ্যালেঞ্জের সম্মুখিন হতে দেখা যায়নি। তবে এসব চ্যালেঞ্জের ফলে গিয়াসউদ্দিন অনেকটাই লাভবান হয়েছে। একদিকে ক্ষমতাহীন দলের নেতা হওয়ার সুবাদে আলোচনার বাইরে থাকলেও এই চ্যালেঞ্জের ফলে বেশ ঘটা করে আলোচনায় উঠে আসছেন। অন্যদিকে এমপি শামীম ওসমান যাকে ফ্যাক্ট মনে করছেন তিনি যে ওসমান শিবিরে ভীতির কারণে পরিণত হতে পারে এটাও অনেকটা স্পষ্ট হচ্ছে। সব মিলিয়ে রাজনীতির দিক দিয়ে গিয়াসউদ্দিন এগিয়ে গেছেন।

এতে বিশ্লেষকেরা বলছেন, ‘কোন হেভিওয়েট নেতা যদি বিরোধী দলীয় কোন নেতাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় তাতে করে সেই নেতা আলোচনায় উঠে আসাটা স্বাভাবিক। এমপি শামীম ওসমান গিয়সউদ্দিনের সমালোচনা করতে দিয়ে তাকে ফেক্ট বানিয়ে ফেলেছেন। শামীম ওসমান নিজে হিরো হতে গিয়ে অন্যজনকে হিরো বানিয়েছেন। কেননা শামীম ওসমান নিজে হিরো হতে গিয়ে গিয়াসউদ্দিনের কড়া সমালোচনা করেন। পরবর্তীতে গিয়সউদ্দিন সেই সমালোচনার কড়া জবাব সহ চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়। এতে করে গিয়সউদ্দিন সুযোগের সদব্যবহার করেছেন বলা চলে। তাকে করে গিয়সউদ্দিন অনেকটা লাভবান হয়েছেন।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ