৭ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর ২০১৮ , ৭:৫৯ পূর্বাহ্ণ

UMo

ককটেল ছুড়লো প্যারালাইজড রোগী ও সৌদি প্রবাসী!


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪৩ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার


ছবি প্রতিকী

ছবি প্রতিকী

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এবার প্যারালাইজড রোগীর বিরুদ্ধে ককটেল ছুড়ে নাশকতার অভিযোগ আনা হয়েছে। শাহীন উদ্দিন শাহীন নামে উক্ত ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে প্যারালাইজড হয়ে বিছানায় রয়েছেন বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। তাকে দুজন লোক ধরে বিছানা থেকে উঠাতে হয় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

এ ছাড়াও মামলায় গাজী জহির নামে একজনকে আসামি করা হয়েছে যিনি গত ৪ বছর ধরে রয়েছেন সৌদি আরবে। সেখানে একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করছেন। তবে তার বিরুদ্ধেও পুলিশ নাশকতার পরিকল্পনা ও ককটেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ এনেছে মামলায়।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ৮৯ বিএনপি নেতাকর্মীর নামে বিস্ফোরক আইনে উক্ত মামলাট দায়ের করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) মামলাটি দায়ের করেন সোনারগাঁ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) তাহিদ উল্লাহ। 

মামলায় দুজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তারা হলেন সোনারগাঁ থানা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক এনামুল হক রবিন ও  পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবদল নেতা নূরন্নবী মাস্টার।

গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ৩টি জর্দার কৌটা, ৪টি ছোট লোহা, ২টি লাল কচটেপ মোড়ানো অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

মামলায় আসামিরা হলেন রিয়াজউদ্দিন আহমেদ, নজরুল ইসলাম বাবু, অ্যাডভোকেট সাদ্দাম, মোশারফ হোসেন, আলামিন, হামিদুল, নিজামউদ্দিন নিজাম, খাইরুল ইসলাম সজীব, আব্দুল মোতালেব, জাহেব আলী, মোক্তার হোসেম মিন্টু, সালাহউদ্দিন, রাহিম, গাজী জহির হোসেন, শাহীন উদ্দিন শাহীন, নজরুল ইসলাম বাচ্চু, হুমায়ন কবির রফিক, মহিউদ্দিন খান, ফারুল আহমেদ তপন, মোশারফ মেম্বার, নূরে ইয়াসিন নোবেল, হোসেন মেম্বার, মনির, চপল, মোস্তফা কামাল বাবুল, সাফিন আহমেদ, গাজী জুলহাস, নুরুজ্জামান, শামসুর রহমান মন্টু, মোবারক, মিঠু, ঋতু, টিটু, শামীম, খোকন মুন্সী, শাহ জালাল, জহিরুল ইসলামসহ অজ্ঞাত ৫০ জন।

মামলায় অভিযোগ আনা হয়, আসামিরা ২১ আগস্টের মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে বুধবার দুপুরে মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা আইয়ুব প্লাজার পশ্চিম দিকে ফুটপাতের সামনে বিভিন্ন অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে মিছিল করে ও ভাংচুর করে। এসময় তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ককটেলেরও বিস্ফোরণ ঘটায়।

সেখান থেকেই ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা বিভিন্ন সরকারি ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল বলেও মামলায় অভিযোগ আনা হয়।

সৌদী প্রবাসী গাজী জহির বলেন, ‘আমি ৪ বছর ধরে সৌদি আরব চাকরি করে দেশে টাকা পাঠাচ্ছি। আমি কিভাবে এই নাশকতার সাথে জড়িত হলাম তা বুঝলাম না। আর আমি কোথাও এমন কোন নাশকতার সংবাদও শুনিনি। এমন একটি মামলায় আমাকে জড়ানোয় আমি নিজেই বিস্মিত।’

শাহীন উদ্দিন শাহীনের আপন ভাই কাজল জানান, আমার ভাই দীর্ঘদিন ধরেই প্যারালাইজড হয়ে বিছানায় পড়ে রয়েছেন। তাকে আমরা চিকিৎসা করাচ্ছি। বিছানা থেকে নামতে উঠতে পারেনা সে, তাকে দুজন ধরে উঠাতে নামাতে হয়। এমন একজন ব্যক্তি ককটেল ছুড়বে একথা তো পাগলেও বিশ্বাস করবেনা। পুলিশের এ মামলায় কিভাবে তার নাম আসলো তা নিয়ে আমরাই হতবাক।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোরশেদ আলম মামলার সত্যতা নিশ্চিত করলেও এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ