২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৫১ অপরাহ্ণ

UMo

আওয়ামীলীগ বিএনপি জাপা মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা ৫৪


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৯ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ মঙ্গলবার


ছবিগুলো আসনকেন্দ্রীক

ছবিগুলো আসনকেন্দ্রীক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে দিন দিন নতুন নতুন মনোনয়ন প্রত্যাশী উদয় হচ্ছেন। এভাবে নির্বাচনের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংখ্যা দীর্ঘতর হচ্ছে। এ পর্যন্ত আওয়ামীলীগ, বিএনপি এবং জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংখ্যা ৫৪ গিয়ে পৌঁছেছে। আর অন্যান্য রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা শংকায় রয়েছেন। এক পা আগালে ফের তিন পা পিছিয়ে পড়ছেন।

সূত্র বলছে, আগামী ডিসেম্বরের শেষ দিকেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার আভাস দিয়েছেন। সেই হিসেবে দিন যতই যাচ্ছে ততই মনোনয়ন প্রত্যাশীদের জন্য সময় কমে আসছে।

জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রায় বছর দুয়েক আগে থেকেই মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নির্বাচনী মাঠে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। এই প্রচার-প্রচারণার ক্ষেত্রে সরকারী দল হিসেবে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা এগিয়ে রয়েছেন। অন্যান্য রাজনৈতিক দলের চেয়ে তাদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংখ্যাও বেশি। নারায়ণগঞ্জের ৫ টি আসনে তাদের সংখ্যা হচ্ছে ৩০ জন। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে ১০ জন।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের শরীক হিসেবে পিছিয়ে নেই জাতীয় পার্টিও। দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে সন্দেহ থাকলেও প্রচার-প্রচারণায় তারা আওয়ামীলীগের পাশাপাশি অবস্থান করছেন। প্রায় বছর দুয়েক আগে থেকেই নির্বাচনী মাঠে সরব রয়েছেন। তবে বিএনপির চেয়ে তাদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংখ্যা কম। নারায়ণগঞ্জের ৫ টি আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা হচ্ছে ৮ জন।

অপরদিকে দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা। নির্বাচনের অংশগ্রহণের বিষয়ে তারা ছিলেন অনিশ্চিত। তবে নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে তারা আওয়ামীলীগকে একা ছাড় দিতে চাচ্ছেন না। কিন্তু নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অসংখ্য মামলা থাকায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিয়মিত নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছেন না। তারপরেও তারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে তাদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংখ্যা হচ্ছে ১৬ জন।

এছাড়া আওয়ামীলীগ ও বিএনপির শরিক দলসহ বাম সংগঠনগুলোর মনোনয়ন প্রত্যাশীরাও মাঝে মাঝে ঘোষণা দিচ্ছেন প্রার্থী হওয়ার। আবার কিছুদিন পরে নিরবও হয়ে যাচ্ছেন। ফলে তাদের ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তাছাড়া আওয়ামীলীগ, বিএনপি এবং জাতীয় পার্টির আরও কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন যাদের ব্যাপারে নির্বাচনী এলাকায় তেমন কোন আলোচনা নেই।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ-১ (রুপগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান বর্তমান সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক ছাড়াও বাংলাদেশ সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য সাবেক সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল (অব.) কে এম সফিউল্লাহ বীরউত্তম, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূঁইয়া এবং কায়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম।

আসনটিতে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভূঁইয়া। জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী হচ্ছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র সহ সভাপতি ও যুবসংহতির সভাপতি সাইফুল ইলসাম।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবুর পাশাপাশি নৌকার মাঝি হতে চান কেন্দ্রীয় যুবলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইকবাল পারভেজ ও আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভুঁইয়া ও ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মমতাজ হোসেন।

অপরদিকে বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় রয়েছেন, সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আঙ্গুর ও বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ। এছাড়া বিএনপির ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মনোনয়ন প্রত্যাশী এ এম বদরুজ্জামান খসরুর মৃতুতে তার স্থলাভিষিক্ত হতে চান তার ছেলে সাবেক যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থবিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান সুমন।

অন্যদিকে গত ১১আগস্ট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আড়াইহাজারে একটি অনুষ্ঠানে এসে আগামী নির্বাচনে এখানে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় যুব সংহতির সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটনের নাম ঘোষণা করেন।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির লিয়াকত হোসেন খোকা ছাড়াও রয়েছেন জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদিকা অনন্যা হুসেইন মৌসুমী।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে মাঠে কাজ করছেন সাবেক সংসদ সদস্য কায়সার হাসনাত এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূইয়া ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিনা আক্তার, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা এএইচ এম মাসুদ দুলাল, অর্থনীতিবিদ আনোয়ারুল কবির ভূঁইয়া, শিল্পপতি বজলুর রহমান ও লন্ডন প্রবাসী ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম।

অন্যদিকে বিএনপির মনোনয়ন চেয়ে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ও সোনারগাঁও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আজহারুল ইসলাম মান্নান এবং নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা এ কে এম শামীম ওসমান এবারও প্রার্থী হবেন এটা প্রায় নিশ্চিত। তবে কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের শ্রম ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ মনোনয়ন চাইবেন বলে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া দলছুট নেতা খ্যাত কামাল মৃধা আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে কিছুদিন হাকডাক করে মিইয়ে গেছেন।

বিএনপির মনোনয়ন চান কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য গিয়াসউদ্দিন, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহ আলম, সহ সভাপতি আব্দুল হাই রাজু এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। এছাড়াও এই আসনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন খোকা মোল্লা।

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন বর্তমান এমপি সেলিম ওসমান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটিতে সদস্য হিসেবে স্থান পাওয়া সফল ব্যবসায়ী মো.জয়নাল আবেদীন ও প্রয়াত সংসদ সদস্য নাসিম ওসমানের সহধর্মীনি পারভীন ওসমান।

তার বিপরীতে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মাঠে রয়েছেন- সাবেক সংসদ সদস্য এস এম আকরাম, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া ও আব্দুল কাদির, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত ও জাতীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কর মাহমুদ।

বিএনপির পক্ষ থেকে এ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান এবং মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ