১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০৫ অপরাহ্ণ

UMo

রূপগঞ্জে বিএনপির তরুণ প্রার্থীতে ভরসা রাখছেন ভোটার নেতাকর্মীরা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৬:৩৫ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার


রূপগঞ্জে বিএনপির তরুণ প্রার্থীতে ভরসা রাখছেন ভোটার নেতাকর্মীরা

 নারায়ণগঞ্জ-১(রূপগঞ্জ)  আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেতে শীর্ষ মহলেও লবিং চলছে। তবে পুলিশের দায়ের করা হাফ ডজন মামলার আসামি হয়ে প্রার্থীরা এখন এলাকা ছাড়া রয়েছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীর সমর্থিত নেতাকর্মীরা এলাকায় প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। দিন যতই এগুচ্ছে প্রার্থীদের মাঝে যুদ্ধ ততই বাড়ছে। তবে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে তৃণমূলের আস্থা বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপুর প্রতি। তিনি প্রার্থী হলে জয় নিশ্চিত এমনটাই আশা করছেন সাধারণ ভোটাররা।

বিএনপির কেন্দ্রিয় সূত্রে জানা গেছে, রূপগঞ্জ আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের নাম।

এদিকে কাজী মনিরুজ্জামান বিগত দিনগুলোতে কেন্দ্রিয় কর্মসূচি পালন করতেন তাঁর ব্যক্তি মালিকানাধীন ম্যাক সুয়েটার গার্মেন্টস হলরুমে। জনবহুল কোনো এলাকায় সভা সমাবেশ বা দলীয় কর্মসূচি পালন করতে না পারায় সাধারণ ভোটাররাও কাজী মনিরুজ্জামানকে ভুলতে বসেছেন। তাছাড়া কাজী মনিরের কোনো কর্মী নেই। যারা তাঁর সাথে রয়েছেন তারা সকলেই নিজেকে নেতা পরিচয় দিয়ে থাকেন।

অপরদিকে ব্যক্তি হিসেবে মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু একজন রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তাঁর বাবা ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। এক চাচা ছিলেন সংসদ সদস্য। অপর চাচা ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপুর রূপগঞ্জের সর্বমহলে সুপরিচিতি রয়েছে। উপজেলার ভুলতা, গোলাকান্দাইল, মুড়াপাড়া, কাঞ্চন ও ভোলাবতে রয়েছে ভোট ব্যাংক। দিপু ভুঁইয়ার মালিকানাধীন গাউছিয়া মার্কেটে রূপগঞ্জের প্রায় ১০ হাজার পরিবারের লোকজন ব্যবসা করছেন। তাদের কাছে দিপু ভূইয়া মাথার মুকুট। দিপু ভূইয়ার ভালোবাসা ও ব্যবহারের কাছে সাধারণ মানুষ পরাজিত। এমন ব্যক্তিত্ব রূপগঞ্জে আর দ্বিতীয়টি নেই।

গাউছিয়া মার্কেটের ব্যবসায়ী মনির হোসেন, মাসুদ ভুঁইয়া, ইসমাইল হোসেন, আবু তালেব জানান, আমরা কোনো দল বা মার্কা চিনি না। আমরা দিপু ভুঁইয়ার সাথে আছি এবং থাকবো। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা জানান, দিপু ভুঁইয়া ভালো লোক। তিনি শিক্ষানুরাগী। তিনি নির্বাচন করলে তাকে ভোট দেয়াটা আমাদের কর্তব্যে পড়ে।

কাজী মনিরুজ্জামান বিগত দিনে রূপগঞ্জ থানা, কাঞ্চন ও তারাব পৌরসভাসহ প্রতিটি ইউনিয়নে পকেট কমিটি গঠন করায় ত্যাগী নেতারা দল ত্যাগ করেছেন। গত ৫ বছরে কাজী মনিরের গঠন করা বিএনপির ৪০ ভাগ নেতাকর্মী আওয়ামী লীগ যোগদান করেছেন। এই নেতা তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছ থেকে এখন বিচ্ছিন্ন রয়েছেন। বিগত দিনে কাজী মনিরের দল ত্যাগ করার বিষয়টিও এলকায় বেশ আলোচিত।

কাজী মনিরুজ্জামান বলেন, পুলিশ ও আওয়ামী লীগের নেতারা বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে কোণঠাসা করে রেখেছে। রাস্তায় বের হলেই পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে। তাই নিরাপদে থেকে দলীয় কর্মসূচি পালন করতে হচ্ছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলা মামলার ভয় দেখিয়ে দল ত্যাগ করতে বাধ্য করছে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠন।

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু বলেন, বিএনপির দুর্দিনেও দলের জন্য কাজ করেছি। যত কঠিন সময়ই আসুক দল ছেড়ে যাবো না। মনোনয়নের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদি। বিএনপির হারানো এ আসনটি পুনরুদ্ধার করবই ইনশাল্লাহ। তবে এই মুর্হুতে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ২১ আগষ্টের গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফরমায়েশী মামলার রায় বাতিল আন্দোলনই মুখ্য বিষয়।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ