জেগে উঠবে নারায়ণগঞ্জ, জাগবে বাংলাদেশ : শামীম ওসমান

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৫৫ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮ শনিবার

জেগে উঠবে নারায়ণগঞ্জ, জাগবে বাংলাদেশ : শামীম ওসমান

আগামী ২৭ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের ডাকা সমাবেশকে কেন্দ্র করে যে কর্মী সভা হয়েছে সেটার সংবাদ প্রকাশ নিয়ে ব্যাখা জানানো হয়েছে।

২০ অক্টোবর শনিবার বিকেলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড এলাকায় নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল এমিউজম্যান্ট পার্কে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শামীম ওসমান। আগামী জাতীয় নির্বাচন ও ২৭ তারিখের জনসভা সফল করার লক্ষ্য এই আলোচনার সভা আয়োজন করা হয়।

এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করা ওই সভায় উপস্থিত অনেকেই বিষয়টি নিয়ে আপত্তি তুলেন। তাঁরা জানান, এটা ছিল এমপি শামীম ওসমানের সাথে আমাদের দলীয় অভ্যন্তরীণ সভা। সেখানে এমপি নিজেও কয়েকবার বলেছেন যেন বক্তব্য কোড না করা হয় এবং গণমাধ্যমে প্রকাশ করা না হয়। কারণ আমাদের দলের ভেতরেও অনেক কলাকৌশল থাকে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শামীম ওসমান মুঠোফোনে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘শনিবার মূলত আমাদের কর্মী সভা ছিল। ওই সভার শুরুতে আমি সবার উদ্দেশ্যে বলেছিলাম আজকে আমি অনেক কথা বলবো। কিন্তু এটা গণমাধ্যমের জন্য না। গণমাধ্যম যেন এগুলো কোড না করে। এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ সভা। এখানকার সব কথা প্রকাশ করা যাবে না। সে কারণে আমি সাংবাদিকদের আমন্ত্রনও করি নাই। তাই সাংবাদিকদের বলবো এ সভাটির সংবাদ প্রকাশ করবেন না। কিন্তু তার পরেও দেখলাম অনেক কথা প্রকাশ করা হয়েছে তা সঠিক না।’

তিনি আরো বলেন, ‘অনুষ্ঠানের শুরুতেই আমি বার বার সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে একই কথা বলেছিলাম যেন সংবাদটি প্রকাশ না করে। হয়তো অনেক সাংবাদিক সেটা খেয়াল করেনি কিংবা কেউ পরে প্রবেশ করেছে অনুষ্ঠানস্থলে। ফলে আমার অনুরোধ অনেকে শুনেনি।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘মূলত কর্মী সভাটি আয়োজন করেছি এ কারণে যেন ২৭ অক্টোবর আমরা কিভাবে অনুষ্ঠানস্থলে হাজির হবো সেটা জানাতে। আমি সভায় দলের নেত্রী ও দলের প্রতি আনুগত্য প্রকাশের তাগিদ দিয়েছি। নেতাকর্মীদের অভ্যন্তরীণ অনেক বার্তা আমাকে দিতে হয়েছে। এসব বার্তা কদাচিৎ দলের সিদ্ধান্তে আসে। আর আওয়ামী লীগ একটি বড় দল। গণতান্ত্রিক দল। সেখানে কর্মীসভায় প্রচুর নেতাকর্মী লোকজনের সমাগম হয়েছে। আমি কর্মীসভায় তাদের সঙ্গে অনেক তথ্য আদান প্রদান করেছিলাম। কিন্তু অনুমতি ছাড়া এগুলোর সংবাদ প্রকাশ করাটাও দোষনীয়।’

তিনি বলেন, ‘আমি কর্মীসভায় কোড করার মত বলেছি যে রাজাকারের কাছে হার মানবো না। চাওয়া পাওয়ার রাজনীতি করি না। আমি শেখ হাসিনাকে ভালোবাসি। এই কারণে ভালোবাসি, উনার চেয়ে বড় দেশপ্রেমিক দেখি নাই। উনার চেয়ে আল্লাহওয়ালা মানুষ দেখি নাই। উনি আমার কাছে মা। আমি আশা করি, আপনারা আমার চেয়ে বেশি তাকে ভালোবাসেন। আগামী ২৭ তারিখ মিটিং হবে। আপনারা সকলেই দুপুর ২টা বাজে চলে যাবেন। নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ মিটিং করতে চাই। এই মিটিং হলো ঘণ্টা বাজানোর মিটিং। বাংলাদেশে ঘন্টা বাজাবো আমরা, এই আমরা জেগে উঠেছি। সব কথা বলে খুলে বলতে পারছি না। সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে মাঠে নামবেন। নারায়ণগঞ্জে বিএনপি জামায়াতকে কোন ধরনের অরাজকতা করতে দিব না। অনেকক্ষণ ধৈর্য ধরেছি। জনগণের জন্য কাজ করেছি। আমরা নারায়ণগঞ্জে ঘণ্টা বাজাতে চাই, সারা বাংলাদেশকে মেসেজ দিতে চাই। যার যার দায়িত্ব নিয়ে হাজির হয়ে যাবেন। এই মিটিং নারায়ণগঞ্জের জন্য না। আমরা শুরু করবো। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা মাঠে নামলে তারা মাঠে নামার সুযোগ পাবে না। শুধু মাঠে নামিয়ে দিলেই চলবে।’

তিনি বলেন, জনগণের শক্তির সাথে কোনো শক্তি পারবে না।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, মহানগর শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান মুন্না, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও যুবলীগ নেতা এহসানুল হাসান নিপু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইলসাম রাফেল ও মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও