৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার ২০ নভেম্বর ২০১৮ , ৬:২৯ অপরাহ্ণ

rabbhaban

কাজী মনির শিবিরে হতাশা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২০ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮ শনিবার


কাজী মনির শিবিরে হতাশা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির বর্তমান সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন কাজী মনিরুজ্জামান। জেলা বিএনপির শীর্ষ পদে দায়িত্ব পালন করেও বারবার তিনি তার যোগ্যতা প্রমাণে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেন। দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে ফিরেনি দলের গতি। তার বলয়ের নেতাকর্মীদের কাউকেই এখন পর্যন্ত যোগ্য পদে বসাতে পারছেন না তিনি। ফলে কাজী মনির শিবিরে বইছে এখন হতাশা।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান তিনি। সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর মাসের পর মাস অতিবাহিত হতে থাকলেও এখন পর্যন্ত জেলা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে পারেন নি তিনি। দলীয় আন্দোলন সংগ্রামেও নেতাকর্মীদের মাঝে চলে এসেছে নিস্ক্রীয়তা। জেলা বিএনপি আগের চেয়ে আর দূর্বল সংগঠনে পরিণত হয়েছে।

এদিকে কাজী মনিরুজ্জামান তার বলয়ের নেতাকর্মীদেরকেও এখন পর্যন্ত মূল বিএনপি কিংবা অন্য কোন অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ বসাতে পারেন নি। তিনি জেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের তিনটি কমিটি হয়েছে। এই তিন কমিটির কোন একটি সংগঠনেও তার পছন্দের লোককে মূল্যায়ণ করা হয়নি।

সর্বশেষ নবঘোষিত জেলা যুবদলের কমিটিতেও তার পছন্দের লোককে মূল্যায়ণ করা হয়নি। গত ১৯ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর যুবদলের আংশিক কমিটির অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র। নবঘোষিত এই কমিটিতে তার পছন্দের লোক হিসেবে পরিচিত আশরাফুল আলম রিপন ছিলেন সভাপতি পদপ্রার্থী। যিনি ২০০৭ সালের ঘোষিত যুবদলের কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। কিন্তু দল কাজী মনিরের সেই চাওয়া পূরণ করেনি।

অন্যদিকে জেলা যুবদলের সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে একেএম আমিরুল ইসলাম ইমনকে। যাকে কাজী মনিরুজ্জামান গত ৫ জুন ঘোষিত জেলা ছাত্রদলের কমিটিতে সভাপতি হিসেবে পাওয়ার জন্য দাবি করেছিলেন। কিন্তু কেন্দ্রীয় ছাত্রদল কাজী মনিরের সেই দাবি পূরণ করেনি। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি করা হয়েছে মশিউর রহমান রনিকে।

এর পরই গত ২৫ জুন রাতে ঘোষিত হয় নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি। যে কমিটিতে সভাপতি করা হয়েছে আনোয়ার সাদাত সায়েম এবং সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে মাহাবুব রহমানকে। এই কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া আনোয়ার সাদাত সায়েম দীর্ঘদিন ধরে জেলা বিএপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের সাথে ছিলেন। তার সাথে থাকা অবস্থায় সায়েমকে মূল্যায়ণ করা হয়নি।

পরবর্তীতে সায়েম কাজী মনিরের বলয় ত্যাগ করে কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলামের আজাদের বলয়ে ভিড়েন। আজাদের বলয়ে ভিড়ার সাথে সাথে বিএনপি আনোয়ার সাদাত সায়েমকে মূল্যায়ণ করে। ফলশ্রুতিতে তিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভিপতি হিসেবে তিনি দায়িত্ব পেয়ে যান। এখন পর্যন্ত আজাদের বলয়ে থেকেই সায়েম রাজনীতি করছেন।

এই পরিস্থিতিতে জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনির শিবিরে শুরু হয়েছে হতাশা। তার বলয়ের নেতাকর্মীদের ধারণা, কাজী মনিরের পক্ষে কাজ করলেও কাজী মনির নেতাকর্মীদের জন্য কোন কাজ করেন না। তাদের ব্যাপারে কেন্দ্রে কোন কিছু দাবি করেন তিনি কিংবা কেন্দ্রে তার মূল্যায়ণ নেই। যদি কাজী মনির নেতাকর্মীদের জন্য কাজ করতেন অথবা তার মূল্যায়ণ থাকলে তাহলে অবশ্যই তার পছন্দের নেতাকর্মীদের মূল্যায়ণ করা হতো। কিন্তু কেন্দ্রে তাকে মূল্যায়ণ করা হচ্ছে না।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ