৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার ২০ নভেম্বর ২০১৮ , ৬:২২ অপরাহ্ণ

rabbhaban

তারেক জিয়া ইস্যূতেও ব্যর্থ নারায়ণগঞ্জ বিএনপি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:২৫ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৮ শনিবার


তারেক জিয়া ইস্যূতেও ব্যর্থ নারায়ণগঞ্জ বিএনপি

দীর্ঘদিন ধরে দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে কোন ভূমিকা রাখতে পারছে না নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। একের পর এক ইস্যূ তৈরি হলেও প্রায় সকল কর্মসূচিতেই নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেন। মূলদলের পাশাপাশি অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝেও স্থবিরতা চলে এসেছে। কোন কিছুতেই যেন তাদের রাজপথে ফিরানো সম্ভব হচ্ছে না।

সূত্র বলছে, ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই টানা দুই মেয়াদ ধরে ক্ষমতার বাইরে রয়েছে বিএনপি। ২০০৮ সালে প্রথম দফা এরপর ২০১৪ সালের দশম জতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতার বাইরে থেকে যায় বিএনপি।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, এই দুই দফা ক্ষমতায় বাইরে থেকে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি দিন দিন নিস্ক্রীয় সংগঠনে পরিণত হয়েছে। দলীয় কোন আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে কর্মসূচি পালন করা তো দূরের কথা এমনকি এর ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারেন না। প্রথম দফায় ক্ষমতা হারানো পর কিছু সময়ের জন্য রাজপথে নেতাকর্মীদের দেখা মিললেও দ্বিতীয় দফায় তাদের আর রাজপথে তেমন দেখা মিলছে না।

দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা হারানোর পর দলের গতি ফিরিয়ে আনার জন্য ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে নবীন ও তরুণ নেতৃত্বকে প্রাধান্য দেয়া হয়। কিন্তু তারাও নেতাকর্মীদেরকে দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে ফিরাতে ব্যর্থ হয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি হয়েছে ঘরকুণে আর জেলা বিএনপি হয়েছে শহর ছেড়ে গ্রামের দিকে ঝুঁকছে।

একই সাথে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একের পর এক হামলা-মামলায় নেতাকর্মীরা হয়ে পড়েছেন ঘরছাড়া। দলীয় কোন আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে কর্মসূচি পালন করা তো দূরের কথা কর্মসূচির ধারে কাছেও ঘেষতে পারেন না। গ্রেফতারের ভয়ে শীর্ষ নেতাকর্মীদের থাকতে হয় কর্মসূচির বাইরে। কর্মসূচি পালনকালে তাদের নেতাকর্মীর সংখ্যাও কম থাকে। ফলে তাদের আন্দোলন সংগ্রামও তেমন জোরদার হয় না।

এরই মধ্যে গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। এই রায়কে ঘিরেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা তেমন কোন জোড়ালো আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেননি। শুধুমাত্র নামকাওয়াস্তেই কর্মসূচি পালন করে গেছেন। তাদের দলীয় প্রধান মাসের পর মাস কারাভোগ করলেও আন্দোলন সংগ্রামে নিস্ক্রীয়ই থেকে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি।

সর্বশেষ গত ১০ অক্টোবর বুধবার ২১ আগস্ট চালানো গ্রেনেড হামলা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত। এই মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, হারিছ চৌধুরী, সাবেক সাংসদ কায়কোবাদসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন দেওয়া হয়েছে।

দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে রায়কে ঘিরেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা তেমন কোন আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি। মূলদলের পাশাপাশি অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদেরকেও রাজপথে দেখা মিলেনি। যে অঙ্গসংগঠনগুলোই কর্মসূচি পালন করেছে নামেমাত্র কর্মসূচি পালন করেছেন।

গ্রেনেড হামলায় রায়কে প্রত্যাখান করে কেন্দ্রীয় বিএনপি ৭ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল। এই সাতদিন ব্যাপী কর্মসূচির প্রথম দিন ১১ অক্টোবর ছিল ঢাকাসহ সারা দেশের মহানগর জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। কেন্দ্রীয় ঘোষিত এই কর্মসূচি নারায়ণগঞ্জের কোথাও জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীদের দেখা মিলেনি। বিএনপির নেতাকর্মীরা শুধুমাত্র মুখে আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই আন্দোলন করে যাচ্ছেন। বাস্তবে এর কোন প্রতিফলন দেখা যায়নি।

এছাড়া বাকী ৬ দিনের কর্মসূচি ছিল অঙ্গসংগঠনের। এদের মধ্যে ১৩ অক্টোবর ছাত্রদলের সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল, ১৪ অক্টোবর যুবদলের সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল, ১৫ অক্টোবর সেচ্ছাসেবক দলের সারা দেশে বিক্ষোভ। ১৬ অক্টোবর বিএনপি ঢাকাসহ সারা দেশে কালো পতাকা মিছিল করবে। এ ছাড়া ১৭ অক্টোবর মহিলা দল ঢাকাসহ সারা দেশে মানববন্ধন ও ১৮ অক্টোবর শ্রমিক দল ঢাকাসহ সারা দেশে মানববন্ধন করবে।

এসকল অঙ্গসংগঠনের কর্মসূচি শুধুমাত্র কিছু সময়ের জন্য যুবদল আর স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতকার্মীদের দেখা মিলেছি। বিএনপি ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত ছাত্রদলের দেখা মিলেছে জেলা সদরের বাইরে। আর জেলা ছাত্রদলের দেখা মিলেনি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ