২৯ কার্তিক ১৪২৫, মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮ , ১:৪২ অপরাহ্ণ

UMo

আশাহত নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ!


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১৯ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ মঙ্গলবার


ছবিগুলো আসনকেন্দ্রীক

ছবিগুলো আসনকেন্দ্রীক

নারায়ণগঞ্জে কেন্দ্রীয় নেতাদের সফর বাতিলকে কেন্দ্র করে জেলার নেতাকর্মীরা অনেকটা আশাহত হয়েছেন। আসন্ন নির্বাচনের আগে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সফর যখন দলের তৃণমূলের জন্য টনিক হিসেবে কাজ করে তখন কেন্দ্রীয় নেতাদের সফর আকষ্মিকভাবে বাতিলের ফলে দলের নেতাকর্মীরা অনেকটা আশাহত হয়েছেন।

এছাড়া এই জেলায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা লাঞ্ছিত, বঞ্চিত সহ নির্যাতিত হয়ে আসছে বলে নানা অভিযোগ করে আসছে; যেকারণে সব সময় নৌকার জোরালো দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু তাতেও কোন আশানুরূপ ফলাফল দৃশ্যমান হচ্ছে বলে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে ফের সবকটি আসনে নৌকার দাবি সহ নানা দাবিতে সরব হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সফর বাতিলের মধ্য দিয়ে সেই দিক দিয়েও তারা আশাহত হয়েছে। এই আশাহত বিষয়টি রাজনীতিতে বেশ নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘তৃণমূল সব সময় কেন্দ্রের দিকে তাঁকিয়ে থাকে। আর যখন কেন্দ্রীয় নেতারা তৃণমূলের সাথে সাক্ষাৎ সহ নানা কারণে সফরে আসে তখন দলের নেতাকর্মীরা অনেকটা উজ্জীবিত হয়ে উঠে। কিন্তু হঠাৎ করে কেন্দ্রীয় নেতাদের সফর বাতিলে উজ্জীবিত নেতাকর্মীরা অনেবটা আশাহত হয়ে অনেকটা দূরত্ব তৈরে করে যা রাজনীতির জন্য বেশ নেতিবাচক বিষয়। আসন্ন নির্বাচনের আগে এরুপ নেতিবাচক বিষয় কোনভাবে দলটির জন্য শুভকর নয়।’

জানা গেছে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জে নৌকা ভোট চাইতে ২৩ অক্টোবর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের আসার কর্মসূচী থাকলেও সেটা আকস্মিকভাবে বাতিল করা হয়েছে। তাঁর সাথে থাকার কথা ছিল সাংগঠনিক টিমের সদস্য ও আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিপু মনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সহ শীর্ষ নেতাদের।

শহরের ২নং রেল গেটস্থ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ওই সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে বিশেষ চেয়ার থেকে শুরু করে সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছিল। তোমধ্যে নারায়ণগঞ্জে নৌকা ভোট দেয়ার দাবিতে পোস্টার ও ফেস্টুন ছাপিয়ে প্রধান প্রধান পয়েন্টে সাটিয়েছিল সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘২৩ অক্টোবর পার্টি সেক্রেটারী ওবায়দুল কাদের নারায়ণগঞ্জ আসবেন তিনি জানিয়েছিলেন। আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছিল। কিন্তু এদিন হঠাৎ করে একনেকের সভা আহবান করা হয়েছে। ওই সভাতে ওবায়দুল কাদেরের থাকতে হবে। বিষয়টি আমাদের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হক নওফেল জানিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে আমাদের মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন কথা বলেছেন। ২৩ অক্টোবরের কর্মসূচী স্থগিত করা হয়েছে।’

নির্বাচনী বছরের শুরু থেকেই নৌকার দাবিতে রব তোলে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। তারা বিভিন্ন সময় বলে আসছে, ‘আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন সময় নির্যাতিত, বঞ্চিত, লাঞ্ছিত, নিষ্পেষিত হচ্ছে। এতে করে তারা জেলার ৫ টি আসনে নৌকার দাবি করে আসছে। তবে জাতীয় পার্টি দলটি আসন্ন নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের সঙ্গে মহাজোটে থাকলে জেলার ৫ টি আসনের মধ্যে ২ টি আসন হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। আর যদি এরুপ হয় তাহলে ফের তাদের অভিযোগগুলো আরো দৃশ্যমান হবে বলে দাবি করছেন নেতাকর্মীরা।

এদিকে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাবর্ষিকীর অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টিকে বন্ধু দল বলে সম্মোধন করে তাদের নিয়ে আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই খবরে জাতীয় পার্টি দলটির মনোনয়ন প্রত্যাশী ও নেতাকর্মীরা বেশ সরব হয়ে ওঠে। এমনকি জেলায় দুটি আসনের পাশাপাশি আরো কয়েকটি আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী দেয়ার দাবি জানায় দলটি। এতে করে আওয়ামীলীগে শিবিরে হতাশার চিত্র দেখা যায়। এছাড়া আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা দ্বন্দ্ব কোন্দলের চিত্র দেখা যায়।

এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় নেতারা নারায়ণগঞ্জে ভোট চাইতে সফর করার কথা ছিল। আর সেই সফরে দলের নেতাকর্মীরা ফের নৌকার জোরালো দাবি জানানোর কথা ছিল। এর পাশাপাশি দলের নানা সমস্যা ও দ্বন্দ্ব কোন্দল নিয়েও নানা অভিযোগ ও শলা পরামর্শ করার কথা ছিল। আর নানা দাবি নিয়ে হাজির হওয়ার কথা ছিল দলের নেতাকর্মীদের। কিন্তু শেষ সময়ে তীরে এসে তরী ডুবানোর মত ঘটনা ঘটেছে। সকল আয়োজন সত্ত্বেও শেষ মুহূর্তে কেন্দ্রীয় নেতাদের সফর বাতিল করা হয়। এতে করে দলের নেতাকর্মীরা অনেকটা আশাহত হয়েছে।


দলের নেতাকর্মীরা বলছেন, ‘জেলার ৫টি আসনে নৌকার দাবি সহ জেলায় দলের নেতাকর্মীরা নির্যাতিত ও বঞ্চিত হওয়ার বিষয়ে নানান দাবি নিয়ে আমরা কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে কথা বলতে চেয়েছিলাম। ভেবেছিলাম, তাদের আগমনের মধ্য দয়ে জেলার নেতাকর্মীদের নানার দাবিগুলো সম্পন্ন হবে। আর আমাদের সকল সমস্যাগুলো অনেকটা লাগব হবে। কিন্তু সেটা আর হলনা। উল্টো আমাদেরকে আশাহত হতে হয়েছে। দলের নেতাকর্মীরা প্রকাশ্যে অনেকে না বললেও তারা ঠিকই আশাহত হয়েছে। এতে করে দলের নেতাকর্মীরা আরো নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়তে পারে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আসন্ন নির্বাচনের আগে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের আগমন যে কোন জেলার জন্য জাদুকরী টনিক হিসেবে কাজ করে। আর সেই টনিকের ফলে দলের নেতাকর্মীরা কয়েকগুণ সরব হয়ে উঠে। কিন্তু এই সফল তৃণমূলের জন্য যতটা ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে সফল বাতিল ঠিত ততটাই নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ