১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:০২ অপরাহ্ণ

UMo

মামলার ভারে নুহ্য বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০৫ পিএম, ৮ নভেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার


মামলার ভারে নুহ্য বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

সারাদেশ জুড়েই বইছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাওয়া। যার সূত্র ধরে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নিয়ে চলছে আলাপ আলোচনা। তবে এই আলাপ আলোচনায় বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশীরা জায়গা করে নিতে পারছেন না। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসলেও মামলার ভারে ন্যুব্জ হয়ে পরেছেন বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। একই সাথে তাদের নেতাকর্মী সমর্থকরাও বিভিন্ন মামলায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে।

জানা যায়, ২৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রায় বছর দুয়েক আগে থেকেই নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজ নিজ সংসদীয় এলাকায় প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে তাদের সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সংসদীয় এলাকয় ব্যানার ফেস্টুন সাটিয়ে নিজেদেরকে নতুনভাবে পরিচিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সূত্র বলছে, টানা দুই মেয়াদ ধরেই বাংলাদেশ জাতীয়বাতী দল বিএনপি ক্ষমতার বাইরে রয়েছে। ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পরাজয়ের মধ্যে দিয়ে প্রথমবার এরপর ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে টানা দ্বিতীয়বার ক্ষমতার বাইরে থেকে যায় বিএনপি। ফলে দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকায় বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা দিন দিন দূর্বলের দিকে যেতে থাকে। দলীয় কর্মসূচিতে রাজপথে দেখা মিলে না নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের।

তাই এবার আর ক্ষমতার বাইরে থাকতে চান না বিএনপি। সেই লক্ষ্যে নিয়ে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নির্বাচনী মাঠে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা বিগত দিনের ব্যর্থতাকে চাপিয়ে নতুন করে সরব হয়ে উঠার চেষ্টা করেন। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দায়ের করা একের পর এক মামলায় বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরাসহ নেতাকর্মীরা ভোটের মাঠে সরবতা দেখাতে পারছেন না।

তাদের বিরুদ্ধে আনা হচ্ছে গায়েবী ককটেল কিংবা প্রেট্টোল বোমা বিস্ফোরনের অভিযোগ। যেসব মামলায় আসামী হচ্ছেন প্রবাসী কিংবা মৃতব্যক্তিরা। আর এসব মামলায় ফেরারী আসামী হয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন প্রত্যাশীদেরকে দিন যাপন করতে হচ্ছে। ফলে নির্বাচনী এলাকার নেতাকর্মীদের সাথে তাদের নিয়মিত যোগাযোগ হচ্ছে না।

প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় ১১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে নারায়গঞ্জ সদর থানায় ৩টি, সোনারগাঁয়ে ৩টি, রূপগঞ্জে ১টি, সিদ্ধিরগঞ্জে ২টি ও ফতুল্লা থানায় ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসব মামলায় ৩ শতাধিক বিএনপির নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়েছে। আর গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন অর্ধশতাধিক।

এর আগে গত কয়েক মাসের ব্যবধানে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় মোট ৪৫টি মামলায় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়েছিল। গ্রেফতার করা হয়েছিল প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে। একই সাথে নির্বাচনী বছরের শুরুতে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে নাশকতার আশঙ্কায় মামলা দিয়ে বিএনপি দলের নেতাকর্মীদের জেলে ঢুকানো হয়।

এ সময় জেলার ৭ টি থানায় মামলায় বিএনপির প্রায় কয়েক হাজার নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়। এর পর শুরু হয় ধরপাকড়। দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা থেকে শুরু করে অনেক নেতাকর্মীকে জেলে পাঠানো হয়। কখনো কখনো পুলিশের লাঠির আঘাতও হজম করতে হয়। ওই ধরপাকড়ের রেষ না কাটতে কাটতেই ২১আগষ্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে কেন্দ্র করে ফের শুরু হয় ধরপাকড় আর একের পর এক মামলা। এভাবে একের পর এক মামলা আর ধরপাকড় চলমান রয়েছে।

ফলশ্রুতিতে অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা দিক দিয়ে এগিয়ে থাকলেও পিছিয়ে রয়েছেন বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। তাদেরকে বেশিরভাগ সময়েই আদালতে বারান্দায় কিংবা সংসদীয় এলাকার বাইরে সময় পার করতে হচ্ছে। সেই সূত্র ধরে সংসদীয় এলাকার নেতাকর্মীদের সাথেও তাদের নিয়মিত যোগাযোগ হচ্ছে না। এমনকি অনেক সময় তাদের পরিবারের সাথেও যোগাযোগ হচ্ছে না।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ