দিপু ভূইয়ার বাজিমাত

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৬:৫৩ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার



দিপু ভূইয়ার বাজিমাত

রাজধানী ঢাকার পাশ্ববর্তী অঞ্চল হিসেবে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। জাতীয় সংসদীয় আসন হিসেবে এর সংখ্যা ২০৩ ও জেলা ভিত্তিক নারায়ণগঞ্জ-১। রাজনৈতিক কোন কর্মসূচি পরিপূর্ণ ভাবে সফলের জন্য নারায়ণগঞ্জের দিকেই নজর থাকে সকল দলের। আর তাই নারায়ণগঞ্জের অন্যান্য উপজেলার থেকে গুরুত্বও বেশি থাকে রূপগঞ্জের। জাতীয় নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে রূপগঞ্জ হয়ে উঠেছে উৎসবমুখর। নির্বাচনী কর্মকান্ড ও বিএনপির নেতাকর্মীদের সর্বক্ষনিক যোগাযোগ রেখে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন ইতোমধ্যে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকারী বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপু।

১৩ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয় থেকে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন মোস্তাফিজুর রহমান দিপু। আর এজন্য সকাল থেকেই প্রবীন ও নবীন বিএনপির নেতাকর্মীদের ভীর ছিল দলের কার্যালয়মুখী। ধানের শীষের স্লোগানে মুখোরীত করে রাখে মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপুর নেতাকর্মীরা। ফলে কার্যালয়ের সামনে উৎসবমুখোর পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

এর আগে তিনি নেতাকর্মীদের বিশাল বহর নিয়ে রূপগঞ্জ থেকে কেন্দ্রীয় কার্যালয় অভিমুখে রওনা করেন। এরপর শীর্ষ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে রূপগঞ্জের তরুন সমাজের আইকন হিসেবে পরিচিত মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু মনোনয়ন সংগ্রহণ করেন।

অন্যদিকে মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপুর তুলনায় নিরবে নিস্তবে ও নেতাকর্মী বিহীন অনেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।

তৃণমূলের নেতাকর্মীদের দাবি, মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপু না হলেও রূপগঞ্জের কৃষক, দিনমজুর, শ্রমিক, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতাকর্মী সহ প্রায় সকলেই তাকে দিপু ভূইয়া নামে ডাকতেও বলতে ভালোবাসেন। দিপু ভূঁইয়াও খুব সহজেই সাধারণ মানুষকে কাছে টানে বলে রূপগঞ্জে অবস্থান থাকলে মানুষের ভীড় থাকতে দেখা যায়। বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার পর আন্দোলন করতে গিয়ে একাধিক মামলার আসামী হয়েছেন। আবার নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়েই জামিন নিয়েছেন। এছাড়াও কারাবন্দি নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নেওয়া ও তাদের পরিবারে সাহায্য সহযোগিতা প্রেরণ করেও তাদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। ফলে নির্বাচনী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহে নেতাকর্মীরা নিজ উদ্যোগে অংশগ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত টানা দুই বছর ক্ষমতার বাইরে থাকায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ছিলেন হতাশ। ২০০৮ সালে পরাজয় ও ২০১৪ সালে বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করায় নিস্তব্দ হয়ে পরে তৃণমূলের কর্মীরা। কিন্তু ২০১৮ সালের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার ঘোষণা আসার পরই তারা তাদের মনোনীত প্রার্থীদের নিয়ে উৎসবে মেতে উঠে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও