আচরণ বিধির ধার ধারে না প্রার্থীরা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫১ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার



আচরণ বিধির ধার ধারে না প্রার্থীরা

নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে প্রায় ৫০ জন প্রার্থী মনোনয়নের প্রত্যাশী এর মধ্যে বিএনপির দলীয় প্রর্থীরা ছাড়া বাকী সবাই প্রচারনা শুরু করেছে আরো বছর খানিক আগে থেকেই। এদের কেউ কেউ আরো আগে থেকেই প্রচরণা করে আসছে।

এসব প্রার্থীদের প্রচারণায় ব্যনার, পোস্টার, দেয়াল লিখন, তোরণ, প্রবেশ দ্বার, মিউজিক, ভিডিওসহ হরেক রকমের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তফসিল ঘোষণা হওয়ার পর এসব আগের মতই প্রদর্শিত হচ্ছে। কোথাও বিন্দু মাত্র কমেনি। কোথাও কোথাও বাড়ার কথা শোনা যাচ্ছে। তবে এসব প্রচারণার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তার পরও এমন প্রচারণায় হতবাক ভোটাররা।

ভোটাররা বলছেন নির্বাচন কমিশন এর নিয়ম কেউ মানছে না। প্রার্থীরা অনেক আগে থেকেই এমন ভাবে পরিবেশ সৃষ্টি করেছে যে তাদের প্রচারনা চলছে। নির্বাচন কমিশনের কোন তোয়াক্কা করছেন না। আচরণ বিধির ধার ধারে না প্রার্থীরা। তারা তাদের মতই চলছে। নির্বাচন কমিশনও তাদের মতই চলছে। যার যার অবস্থানে অনড় রয়েছেন। কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না বলে মনে করেন ভোটাররা।

সৈকত নামের এক ভোটার বলেন, বাড়ি থেকে বের হওয়া থেকে শুরু করে বাড়ি ফেরা পর্যন্ত যে জায়গায় চোখ যায় সে জায়গায়ই দেখা যায় কোন না কোন প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চলছে। তোড়ন, ব্যানার, পোস্টার সব কিছুই রয়েছে এসব প্রচরনায়।

বিএনপির এক কর্মী ফরহাদ বলেন, প্রচরণায় একটি পক্ষ এগিয়ে আছে নয়, একটি পক্ষই করে যাচ্ছে। অপর পক্ষ রয়েছে সম্পূর্ণ বাইরে। তাদের কোন ভাবেই সুযোগ দেয়া হচ্ছে না বা করতে পারছে না। এজন্য নির্বাচন কমিশনকে কাজ করতে হবে। সবার জন্য সমান সুযোগ রাখতে হবে। আচরণ বিধি মেনে চলার বিষয়ে কঠোর হতে হবে।

নির্বাচন কমিশন একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন যেখানে আগামী ১৪ নভেম্বর এর মধ্যে নিজ দায়িত্বে সম্ভাব্য প্রার্থী বা প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা সংক্রান্ত সকল সামগ্রী অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন। অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরপরই সারাদেশেই সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে সেই নিষেধাজ্ঞার ধার ধারেননি সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার ১২ নভেম্বর বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ডে নৌকা প্রতীক নিয়ে গণমিছিল করেছেন স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা যেখানে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগ দলীয় বর্তমান এমপি শামীম ওসমানের অনুগামী হিসেবে পরিচিত সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। এসময় তারা নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে নানা ধরনের স্লোগানও দেন।

জানা গেছে, গত ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার পরদিন ৯ নভেম্বর ইসি সচিবালয়ে হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, আইন অনুযায়ী তফসিল ঘোষণার পর থেকে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা নিষিদ্ধ। সে জন্য আগামী শুক্রবারের মধ্যে জেলা, উপজেলা এবং সিটি করপোরেশন আওতাধীন এলাকায় যেখানে পোস্টার, ব্যানার, গেট, তোরণ এবং আলোকসজ্জা আছে, সেগুলো অপসারণের জন্য বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী এবং পৌরসভার মেয়রদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সম্ভাব্য কোন প্রার্থী যদি তাঁর প্রচার উপকরণ অপসারণ না করেন তবে তিনি নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত হবেন এবং আইন অনুযায়ী তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা প্রচারে নামতে পারবেন। এর আগ পর্যন্ত কোনো প্রার্থী বা রাজনৈতিক দল নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারবেন না। এ বিষয়ে প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এদিকে রাজনৈতিক দলের প্রচার প্রচারণা নিষিদ্ধ হলেও সোমবার বিকেলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ডে গণমিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাদ আসর নয়াআটি মুক্তিনগর বটতলা থেকে এ গণমিছিলটি ওয়ার্ডের মাদানীনগর, নিমাইকাশারী, সানারপাড়, বাগমারা ও আদর্শনগর ঘুরে পুনরায় বটতলা এসে শেষ হয়। এসময় তারা মিছিলে নেতাকর্মীরা নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আতাউর রহমান বলেন, প্রতীক বরাদ্দের আগ পর্যন্ত কোনো প্রার্থী বা রাজনৈতিক দল নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারবেন না। আগামী শুক্রবারের মধ্যে পোস্টার, ব্যানার, গেট, তোরণ এবং আলোকসজ্জা অপসারণ করতে হবে। কোন প্রার্থী কিংবা তাদের সমর্থকরা নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করলে আইন অনুযায়ী তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সিদ্ধিরগঞ্জে মিছিলের বিষয়টি আমাদের জানা নেই। এ বিষয়ে উর্ধ্বতনদের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নিব।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও