মুখে বলে গরীব, বাস্তবে খোকা ও স্ত্রী কোটিপতি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:৩০ পিএম, ৫ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার



মুখে বলে গরীব, বাস্তবে খোকা ও স্ত্রী কোটিপতি

লিয়াকত হোসেন খোকা নারায়ণগঞ্জ-৩ তথা সোনারগাঁও আসনের এমপি। ২০১৪ সালে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংসদ নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়েই বদলে যায় তার পরিচয়। আকষ্মিক বেশ কিছু সম্পদেরও মালিক হয়েছেন তিনি। খোকা প্রায়শই বলেন তিনি নিজের সম্পত্তি বিক্রি করে উন্নয়ন করেছেন। কিন্তু হলফনামা বলে ভিন্ন তথ্য। নিউজ নারায়ণগঞ্জের পাঠকদের জন্য তার ২০১৪ সালের ও ২০১৮ সালের হলফনামায় উল্লেখিত সম্পদের বিবরণ তুলে ধরা হলো-

২০১৮ সালে হলফনামায় উল্লেখিত তার সম্পদের বিবরণ

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে লিয়াকত হোসেন খোকা হলফনামায় স্বশিক্ষিত হিসেবে উল্লেখ করেছেন নিজেকে। হলফনামা অনুযায়ী তার পেশা ব্যবসা। তার ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে কালীরবাজার চারারগোপ যাবতীয় কাচা পাকা ফলের আড়ৎ ও মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় লাবিবা ট্রেড লিংক আইউব প্লাজা। তার ব্যবসা থেকে বাৎসরিক আয় ১০ লাখ ৪৭ হাজার ৪৪০ টাকা ও স্ত্রীর ব্যবসা হতে আয় ১১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। ব্যাংকে সুদ ও শেয়ার থেকে তিনি আয় করেন ৬১ হাজার ৬৩৪ টাকা ও তার স্ত্রী আয় করেন ১ লাখ ২৩ হাজার ৮১৪ টাকা। এছাড়া জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে তার বাৎসরিক আয় ২২ লাখ ৪৩ হাজার ১৭৫ টাকা। অস্থাবর সম্পত্তির ভেতর তার নিকট নগদ অর্থ ব্যবসা থেকে রয়েছে ৮১ লক্ষ ৬ হাজার ২৮৮ টাকা ও ব্যবসা বহির্ভূত সম্পত্তি ১৭ লাখ ৫ হাজার ৭৫০ টাকা। এছাড়া একই ভাবে তার স্ত্রীর নিকট ব্যবসা থেকে নগদ অর্থ ৫৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯৬৫ টাকা। তার নামে ব্যাংকে জমাকৃত অর্থ রয়েছে ৪ লাখ ৯৮ হাজার ৯৪২ টাকা, তার স্ত্রীর নামে ৯ লাখ ৪ টাকা ও তার উপর নির্ভরশীলদের নামে ১৫ লাখ ৮৮ হাজার ৯৮৫ টাকা রয়েছে। তার নামে শেয়ার রয়েছে ৮ লাখ টাকার ও তার স্ত্রীর নামে শেয়ার রয়েছে ২ লাখ টাকার। লিয়াকত হোসেন খোকার নিজের কোন গাড়ি নেই। তার স্ত্রীর একটি গাড়ী রয়েছে যার বাজার মূল্য ২৪ লাখ ৩৫ হাজার ২৯ টাকা। স্বর্ণালংকার তার নিকট উপহার হিসেবে রয়েছে ৩০ ভরি ও তার স্ত্রীর নিকট উপহার হিসেবে রয়েছে ৮৪ ভরি। ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রাংশ তার নামে রয়েছে প্রায় ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার ও তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকার। এছাড়া অন্যান্য আসবাবের ভেতর তার নামে রয়েছে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পত্তি ও তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকার সম্পত্তি। লিয়াকত হোসেন খোকার সৈয়দপুরে ৮ শতাংশ জমি রয়েছে যার মূল্য ২০ লাখ টাকা। তার নিজস্ব কোন বাড়ি নেই তবে তার স্ত্রীর শেয়ারে একটি ৩ তলা বাণিজ্যিক ভবন রয়েছে যার মূল্য ২০ লাখ ৭২ হাজার ৬৭৯ টাকা।

২০১৪ সালে হলফনামায় উল্লেখিত তার সম্পদের বিবরণ

শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে খোকা নিজেকে ‘স্বশিক্ষিত’ উল্লেখ করেছেন। বর্তমানে কোন মামলা না থাকলেও অতীতে নারায়ণগঞ্জ যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে একটি মামলায় তিনি খালাস পেয়েছেন। খোকা নিজের পেশা হিসেবে চাকরিজীবি উল্লেখ করে বাৎসরিক বেতন উল্লেখ করেছেন মাসে ২০ হাজার টাকা করে বছরে ২ লাখ ৪০ হাজার। গত অক্টোবর হতে চাকরি শুরু হয়েছে। তবে কোন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন সেটা উল্লেখ করা হয়নি। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি নাসিম ওসমান তার ভাই সেলিম ওসমানের উইডজমে নির্বাহী পরিচালক হিসেবে চাকুরী করেও বছরে ২৪ লাখ টাকা বেতন তুলেন।

খোকা দোকান ভাড়া হতে বছরে ৩ লাখ ৫ হাজার ২৮০টাকা উপার্যন করেন। তিনি এসব দোকান হতে অগ্রীম নেওয়ার জন্য ১৬ লাখ ৩ হাজার ৫৭১ টাকা ঋণ আছে।

তার কাছে এখন ২ লাখ টাকা নগদ রয়েছে। ব্যাংকে জমা আছে আরো ১ লাখ টাকা। খোকার যৌথ মালিকানায় ৮শতাংশ জমির মধ্যে ৭ ভাগের এক ভাগ, ১৫ শতাংশ জমির মধ্যে ৭ ভাগের একভাগ ও মার্কেটে ১৭ শতাংশ জমির মধ্যে ৭ ভাগের একভাগ মালিকানা আছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও