প্রার্থীদের আপিলে পালটে যেতে পারে সমীকরণ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৫ পিএম, ৫ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার



প্রার্থীদের আপিলে পালটে যেতে পারে সমীকরণ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলার মোট ৫টি আসনে ৬১ জন মনোনয়ন দাখিল করলেও বর্তমানে অনুমোদন পেয়েছে ৪৭টি। বাতিল হওয়া ১৪ প্রার্থীর ভেতর হেভিওয়েট প্রার্থী রয়েছেন বেশ কয়েকজন। নতুন করে আপিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ১০ প্রার্থী। আপিলের মাধ্যমে প্রার্থীতা ফিরে পেলে দুশ্চিন্তা দেখা দিতে পারে বৈধ প্রার্থীদের মাঝে। এছাড়া ভোটের মাঠেও আসতে পারে রদবদল।

গত ২ ডিসেম্বর মনোনয়ন যাচাই বাছাই করে রিটার্নিং কার্যালত হতে ঘোষণা কালে বাদ পরেন ১৪ মনোনয়ন প্রত্যাশী। বেশ কয়েকজন প্রার্থীর মনোনয়ন স্থগিত হলেও বিকেল নাগাদ তারা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পেয়ে যান। এদের ভেতর বিএনপি ও বিএনপি পন্থী মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন ৫জন। এদের ভেতর ৪জনই ইসি বরাবর আপিল করেছেন।

তারা হলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন ও তার ছেলে জিএম কায়সার ও বিএনপির প্রার্থী অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। তবে আপিল থেকে বিরত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ -৫ আসনের প্রার্থী মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

অন্যান্য জনপ্রিয় প্রার্থীদের ভেতর রয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের আওয়ামী পন্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কন্যা অনন্যা হুসাইন মৌসুমী।। এরা উভয়েই নির্বাচনে লড়াই চালিয়ে যেতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ বলে জানিয়েছেন গনমাধ্যমের সামনে।

তবে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে বিএনপির প্রার্থী শাহ আলম একক মনোনয়ন পেয়ে ফুরফুরে অবস্থায় রয়েছেন। আপিলের মাধ্যমে মামুন মাহমুদ প্রার্থীতা ফিরে পেলেও তাতে খুব একটা সমস্যা হবেনা তার। তবে গিয়াস কিংবা তার ছেলে প্রার্থীতা ফিরে পেলে হিসেব মিলাতে বেশ বেগ পোহাতে হবে বিএনপির। বিদ্রোহী প্রার্থীদের ব্যাপারে আওয়ামীলীগ কঠোর হুশিয়ারী দিলেও বিএনপি তেমনটা সতর্ক নয়। শাহ আলম ঠেকাতে বাপ বেটার প্রার্থীতা যুদ্ধ এই আসনে শাহ আলমের পাশাপাশি বেকায়দায় ফেলবে বিএনপিকে।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জের সবচেয়ে জটিলতায় রয়েছে সোনারগাঁও আসন। এই আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী না থাকায় কায়সার ও শফিকুল উভয়েই আওয়ামীলীগের ভোটারদের সমর্থন চাইছেন। কায়সার বৈধতা পেলেও শফিকুল পাননি। কোন কারণে তা ফিরে পেলে ভোটের মাঠে প্রভাব ফেলবে মহাজোটের প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকার উপর।

তবে ভোটের মাঠে বিভক্তিতে শুধু বিএনপি আওয়ামীলীগে একক নেই। যুক্ত হয়েছে জাতীয় পার্টিও। লিয়াকত হোসেন খোকাকে ঠেকাতে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের পালিত কন্যা অনন্যা হুসেইন ও মাঠে রয়েছেন। ১% ভোটার সংক্রান্ত কারণে প্রার্থীতা বাতিল হলেও তিনি আপিলের মাধ্যমে তা ফিরে পাবেন বলে আশাবাদী।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, আপিলের মাধ্যমে দলের হেভিওয়েট প্রার্থীরা মনোনয়ন ফিরে পেলে নতুন করে হিসেব কষতে হবে প্রার্থীদের। এছাড়া দলের বিশৃঙ্খলাও বাড়তে পারে বহুগুণে। প্রার্থীদের এমন বিদ্রোহী আচরণ নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে এর বড় প্রভাব পড়বে দলগুলোর উপরেই।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও