বছরান্তেই এমপিদের সম্পদের পাহাড়ে হতবাক নারায়ণগঞ্জবাসী

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৮ পিএম, ৫ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার



বছরান্তেই এমপিদের সম্পদের পাহাড়ে হতবাক নারায়ণগঞ্জবাসী

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি সংসদীয় আসনে ৬১ জন সম্ভাব্য প্রার্থীর মধ্যে ৪৭ জনের মনোনয়ন বৈধ রয়েছে। তাদের মধ্যে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা এমপিদের সম্পদের পাহাড় দেখা গেছে তাদের হলফনামায়। এমপিদের এ সম্পদের পাহাড়ের খবরে হতবাক সকলে।

শামীম ওসমান
নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএএলএলবি। তার নামে এখন পর্যন্ত দায়েরকৃত মামলা সংখ্যা ১৭টি। ৩টি মামলায় বেকসুর খালাস, খালাস ৪টি, রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে প্রত্যাহার হয়েছে ৪টি, বাতিল হয়েছে ১টি, হাইকোর্ট কর্তৃক স্থগিত হয়েছে ৩টি ও অপর দুটি মামলায় তিনি অব্যাহতি পেয়েছেন। হলফনামায় তিনি নিজেকে একজন ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। তার ৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স জেড এন কর্পোরেশন, জেড এন শিপিং লাইনস লিমিটেড, মাইশা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড ও শীতল ট্রান্সপোর্ট লিমিটেড। নিজের বাড়ি, দোকান ও অন্যান্য খাত থেকে বাৎসরিক আয় করেন ৪ লাখ ৪৭ হাজার ৬৬৪ টাকা। ব্যবসা থেকে তার বাৎসরিক আয় ২২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। শেয়ারের সঞ্চয়পত্র ও ব্যাংক থেকে জামানত সুদ থেকে তার বাৎসরিক আয় ১৩ লাখ ৬৩ হাজার ৬৮১ টাকা। জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে সম্মানী পান ২২ লাখ ৪৭ হাজার ৩২৫ টাকা। তার স্ত্রী সালমা ওসমান লিপি ব্যবসা থেকে বছরে আয় করেন ২২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। এছাড়া শেয়ারের সঞ্চয়পত্র ও ব্যংক থেকে জামানত সুদ থেকে তার স্ত্রীর বাৎসরিক আয় ১৬ লাখ ৫৫ হাজার ৩৪ টাকা করে। তার নিজ নামে নগদ অর্থ রয়েছে ১০ লাখ ৮২ হাজার ৫৭০ টাকা। স্ত্রীর নামে রয়েছে ১৩ লাখ ৬০ হাজার ৮২০ টাকা। এছাড়া তার উপর নির্ভরশীলদের নামে ৬৫ লাখ ১২ হাজার ৬৩৪ টাকা রয়েছে। তার বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমান প্রায় ৪ কোটি ৬৪ লাখ ৩০ হাজার ৬৮২ টাকা। স্ত্রীর নামে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৬৫২ টাকা। নির্ভরশীলদের নামে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত কোনো টাকা নেই। তার সাথে থাকা লাইসেন্সকৃত পিস্তলের মূল্য ৩৫ হাজার টাকা।

নজরুল ইসলাম বাবু
নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে নজরুল ইসলাম বাবুর শিক্ষাগত যোগ্যতা এম.এস.এস (রাষ্ট্রবিজ্ঞান)। তার নামে দায়েরকৃত মোট মামলার সংখ্যা ৯টি। হলফনামা অনুযায়ী তিনি ব্যবসা কৃষিখাত থেকে আয় ১০ হাজার ২০০ টাকা। বাড়ি ভাড়া ও দোকান ভাড়া থেকে নিজ নামে আয় না থাকলেও স্ত্রীর নামে আয় রয়েছে ১ লাখ ৪৮ হাজার ৫শ টাকা। মৎস্য চাষ হতে আয় ১২ লাখ ৫০ হাজার ৬০০ টাকা। শেয়ার, সঞ্চয়পত্র/ ব্যাংক আমানত নিজ নামে ১৯ হাজার ৬৪৩ টাকা, স্ত্রীর নামে ৪৪ হাজার ৮৩৬ টাকা। তার স্ত্রী চিকিৎসা পেশা হতে আয় করে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা। তিনি নিজে সংসদ সদস্য হিসেবে সম্মানী ভাতা পান ৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা। তার স্ত্রী আয় করে ৩ লাখ ৯৩ হাজার টাকা। নগদ টাকা রয়েছে ১৯ লাখ ২৫ হাজার ৬৮৪ টাকা এবং স্ত্রীর নামে রয়েছে ১০ লাখ ৫৭ হাজার ৪৩৫ টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জমাকৃত অর্থের পরিমাণ ১৩ লাখ ১৯ হাজার ৪২৩ এবং স্ত্রীর নামে আছে ১৭ লাখ ৩১ হাজার ৪৪৬ টাকা। শেয়ারের মূল্য ৫ লাখ ৪২ হাজার ৭শ টাকা। স্ত্রীর নামে শেয়ারের মূল্য ৬ লাখ ১২ হাজার ৪৭৭ টাকা। বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়পত্রের মূল্য ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। নিজস্ব টয়োটা ল্যান্ড ক্রজার জীপ গাড়ির মূল্য ১ কোটি ৬ লাখ ৪০ হাজার ৪০৩ টাকা। ৬ লাখ ১২ হাজার ১৮৬ হাজার টাকা সমমূল্যের স্বর্ণলংকার সহ ৩৫ ভরি স্বর্ণালংকার রয়েছে যার মূল্য জানা নেই। স্ত্রীর নামে ৫২.২৩ ভরি স্বর্ণালংকার আছে যার মূল্য জানা নেই। ইলেকট্রিক সামগ্রীর মূল্য ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা। আসবাবপত্র ৪ লাখ ১১ হাজার টাকা। স্ত্রীর নামে আছে ২ লাখ ১৩ হাজার টাকা। অকৃষি জমির মূল্য আছে ২ কোটি ৬ লাখ ৯৫ হাজার ৭২০ টাকা। স্ত্রীর নামে আছে ৯৫ লাখ ৬২ হাজার টাকা। দালান সহ জমির মূল্য ৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা। স্ত্রীর নামে আছে ৩৯ লাখ ৩১ হাজার টাকা। বাড়ি, এপার্টমেন্ট  ও অর্জনকারী সময়ে আর্থিক মূল্য ৮১ লাখ টাকা। অন্যান্য খাতে আয় ৪১ লাখ টাকা।

সেলিম ওসমান
নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে জাতীয় পার্টির এমপি সেলিম ওসমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চ মাধ্যমিক। তার নামে মামলা সংখ্যা ৮ টি। হলফনামা তিনি নিজেকে একজন ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। ৫ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ্য করেছেন। কৃষিখাত থেকে সেলিম ওসমানের বাৎসরিক আয় ৫৩ লাখ ৪০ হাজার ৪৯০। বাড়ি, দোকান ভাড়া ও অন্যান্য খাতে বাৎসরিক আয় ২লাখ ৬৮হাজার টাকা। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাৎসরিক আয় ৬০ লাখ, শেয়ার ও সঞ্চয়পত্রে প্রাপ্ত সুদ থেকে আয় ৬ লাখ ৭১ হাজার ৩২৯ টাকা। এছাড়া জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে হিসেবে সম্মানী ভাতা ২২ লাখ ২ হাজার টাকা। কৃষিখাত থেকে তার স্ত্রীর বাৎসরিক আয় ৪৬ লাখ ৮০ হাজার ৯৪০ টাকা, বাড়ি ভাড়া থেকে ৪ লাখ ৯৮ হাজার টাকা, ব্যবসা খাত থেকে ৬০ লাখ টাকা, শেয়ার ও সঞ্চয়পত্রে প্রাপ্ত সুদ থেকে ৭ হাজার ২৮৮ টাকা আয় করেন। তার কন্যা ব্যবসা খাত থেকে ৬০ লাখ এবং শেয়ার ও সঞ্চয়পত্রে প্রাপ্ত সুদ থেকে ৫০ হাজার ৩১১ টাকা আয় করেন।

লিয়াকত হোসেন খোকা
নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে লিয়াকত হোসেন খোকা হলফনামায় স্বশিক্ষিত হিসেবে উলে¬খ করেছেন নিজেকে। হলফনামা অনুযায়ী তার পেশা ব্যবসা। তার ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে কালীনবাজার চারারগোপ যাবতীয় কাচা পাকা ফলের আড়ৎ ও মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় লাবিবা ট্রেড লিংক আইউব প¬াজা। তার ব্যবসা থেকে বাৎসরিক আয় ১০ লাখ ৪৭ হাজার ৪৪০ টাকা ও স্ত্রীর ব্যবসা হতে আয় ১১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। ব্যাংকে সুদ ও শেয়ার থেকে তিনি আয় করেন ৬১ হাজার ৬৩৪ টাকা ও তার স্ত্রী আয় করেন ১ লাখ ২৩ হাজার ৮১৪ টাকা। এছাড়া জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে তার বাৎসরিক আয় ২২ লাখ ৪৩ হাজার ১৭৫ টাকা। অস্থাবর সম্পত্তির ভেতর তার নিকট নগদ অর্থ ব্যবসা থেকে রয়েছে ৮১ লক্ষ ৬ হাজার ২৮৮ টাকা ও ব্যবসা বহির্ভূত সম্পত্তি ১৭ লক্ষ ৫ হাজার ৭৫০ টাকা। এছাড়া একই ভাবে তার স্ত্রীর নিকট ব্যবসা থেকে নগদ অর্থ ৫৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯৬৫ টাকা। তার নামে ব্যাংকে জমাকৃত অর্থ রয়েছে ৪ লাখ ৯৮ হাজার ৯৪২ টাকা, তার স্ত্রীর নামে ৯ লাখ ৪ টাকা ও তার উপর নির্ভরশীলদের নামে ১৫ লাখ ৮৮ হাজার ৯৮৫ টাকা রয়েছে। তার নামে শেয়ার রয়েছে ৮ লাখ টাকার ও তার স্ত্রীর নামে শেয়ার রয়েছে ২ লাখ টাকার। লিয়াকত হোসেন খোকার নিজের কোন গাড়ি নেই। তার স্ত্রীর একটি গাড়ী রয়েছে যার বাজার মূল্য ২৪ লাখ ৩৫ হাজার ২৯ টাকা। স্বর্ণালংকার তার নিকট উপহার হিসেবে রয়েছে ৩০ ভরি ও তার স্ত্রীর নিকট উপহার হিসেবে রয়েছে ৮৪ ভরি। ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রাংশ তার নামে রয়েছে প্রায় ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার ও তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকার। এছাড়া অন্যান্য আসবাবের ভেতর তার নামে রয়েছে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পত্তি ও তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকার সম্পত্তি। লিয়াকত হোসেন খোকার সৈয়দপুরে ৮ শতাংশ জমি রয়েছে যার মূল্য ২০ লাখ টাকা। তার নিজস্ব কোন বাড়ি নেই তবে তার স্ত্রীর শেয়ারে একটি ৩ তলা বাণিজ্যিক ভবন রয়েছে যার মূল্য ২০ লাখ ৭২ হাজার ৬৭৯ টাকা।

গোলাম দস্তগীর গাজী
নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের এমপি গোলাম দস্তগীর গাজীর শিক্ষাগত যোগ্যতা বি.এসসি। হলফনামায় বাড়ি ও অন্যান্য ভাড়া থেকে বাৎসরিক আয় ২লাখ ৫৯হাজার ২০০টাকা। ব্যবসায় থেকে তার বাৎসরিক আয় ৩৪কোটি ৭১লাখ ৯হাজার ৫৩৭টাকা। শেয়ার, সঞ্চয়পত্র ও ব্যাংক আমানত আছে  ২কোটি ৫১লাখ ৮৮হাজার ৫৪৮টাকা। বোর্ড মিটিং ফি ও সংসদ সদস্য হিসেবে প্রাপ্ত ভাতা হিসেবে বাৎসরিক ২৩লাখ ৯২হাজার ৭১৫টাকা। তার কাছে নগদ টাকা আছে ৮কোটি ১১লাখ ২৫হাজার ৮৮৮টাকা। তার স্ত্রীর নামে আছে ১২লাখ ২৮হাজার ২৯৬টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে তার নামে জমা আছে ৩২কোটি ৫৫লাখ ৯৯হাজার ৩১৯টাকা এবং স্ত্রীর নামে ৬কোটি ৬৭লাখ ৪২হাজার ১০৮টাকা। পরিবহন খাতে তার সম্পত্তির পরিমাণ ১কোটি ৯৩লাখ ১৩ হাজার ৫৫৭টাকা। তার নিজের নামে স্বর্ণ ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতু রয়েছে ১লাখ ১৪হাজার টাকা এবং তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ২৪হাজার টাকা মূল্যের সম্পত্তি। তার নামে ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী রয়েছে ১৬লাখ ২০হাজার টাকার। তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ৩লাখ টাকার। আসবাবপত্র রয়েছে ১৫লাখ টাকার এবং তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ২লাখ ৫০হাজার টাকার। এবং অন্যান্য সম্পত্তির পরিমাণ ৬৯৬কোটি ৭লক্ষ ৬৪হাজার ৮৫৩হাজার টাকা তিনি আর হলফ নামায় উল্লেখ করেন। এছাড়া তার নামে জমি রয়েছে ৫ কোটি ৭৯লাখ ৮১হাজার ৪৫৮টাকা মূল্যের এবং তার স্ত্রীর নামে রয়েছে ৪কোটি ৬৩লাখ ৭০হাজার ৩৮০টাকা মূল্যের। তার নামে দালানকোঠা রয়েছে ১ কোটি ৩৭লাখ ৩০হাজার টাকা মূল্যের। তার স্ত্রীর নামে বাড়ি রয়েছে ৩কোটি ৮৭লক্ষ ৫৮হাজার ১১টাকা মূল্যের। তার নামে বিভিন্ন ব্যাংক ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ঋণের পরিমাণ ৫৭৮কোটি ৮৮লাখ ২৬হাজার ৯৬টাকা যা তিনি তার হলফ নামায় উল্লেখ করেছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও