আওয়ামী লীগের দিকে তাকিয়ে কায়সার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৯ পিএম, ৬ ডিসেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার



আওয়ামী লীগের দিকে তাকিয়ে কায়সার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে নৌকা প্রতিকের দাবী নিয়ে সরব ছিলেন আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। দল থেকে মনোনয়নের প্রত্যাশায় মনোনয়ন ফরমও সংগ্রহ করেছিলেন তিনি। তবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ তার সেই দাবীকে মূল্যায়ন না করে লাঙল প্রতিকের জন্য এই আসনটিতে কোন প্রার্থী দেয়া হয়নি।

তারপরেও হাল ছাড়েননি আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। তিনি স্বতন্ত্র থেকেই জেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। তার বিশ্বাস শেষ পর্যন্ত দল তাকেই মনোনয়ন দিবে। আর সেই আশায় এখনও কেন্দ্রের দিকে তাকিয়ে আছেন আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। যদিও দুই এক দিনের মধ্যেই সেই অপেক্ষার সমাপ্তি ঘটে যাবে।

সূত্র বলছে, প্রাচীন ইতিহাস সমৃদ্ধ ১০ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভার সমন্বয়ে সোনারগাঁও উপজেলা নিয়ে গঠিত নারায়ণগঞ্জ-৩ আসন। স্বাধীনতার পরবর্তী সময় থেকে এই আসনটি বিএনপির আসন হিসেবেই পরিচিত ছিল। পরবর্তীতে ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির অভিজ্ঞতা সম্পন্ন সংসদ সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেজাউল করিমকে পরাজিত করে আসনটি দখলে নেন আওয়ামীলীগের তরুণ প্রার্থী আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত।

পরবর্তীতে ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভাতিজা কায়সার হাসনাত ও চাচা মোশারফ হোসেনের দ্বন্দ্বে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনটিতে মহাজোট থেকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকাকে মনোনয়ন দেয়া হয়। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় সহজেই এই আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে যান লিয়াকত হোসেন খোকা। জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য থাকায় সংসদীয় এলাকায় বিগত ৫ বছরে আওয়ামীগের অনেক নেতাকর্মীদেরই বিভিন্ন কাজে ব্যাঘাত ঘটেছে বলে অভিযোগ নেতাকর্মীদের।

আর তাই এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শুরু থেকেই নৌকা প্রতিকের দাবী নিয়ে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা সরব ছিলেন। বিভিন্ন সভা সমাবেশে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী দেয়ার জন্য জোর দাবী জানিয়ে আসছিলেন। একই সাথে নৌকা প্রতিকের দাবী নিয়ে আওয়ামীলীগের প্রায় ১৫ জন মনোনয়নপ্রত্যাশী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। কিন্তু বাছাইপর্বে গিয়ে কাউকেই দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়নি।

ফলে সহজেই অনুমেয়, গত সংসদ নির্বাচনের মতো এবারের সংসদ নির্বাচনেও এই আসনটি জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতিকের বর্তমান সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকাকেই ছাড় দেয়া হচ্ছে। একই সাথে জাতীয় পার্টি থেকেও তাকেই মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

এদিকে শেষ পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের নৌকা প্রতিকের সকল মনোনয়নপ্রত্যাশী হাল ছেড়ে দিলেও লাঙল প্রতিককে সহজে ছাড় দিতে চাচ্ছেন না নৌকা প্রতিকের দাবীদার আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্রও জমা দিয়েছেন। তার বিশ্বাস শেষ পর্যন্ত তাকেই আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী হিসেবে তাকেই মনোনয়ন দেয়া হবে। আর সেই আশা নিয়েই এখন পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে সরব রয়েছেন আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত।

এরই মধ্যে দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী দুই একদিনের মধ্যেই চূড়ান্ত সিন্ধান্ত চলে আসবে। সেই সূত্র ধরে আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাতের অপেক্ষারও সমাপ্তি ঘটে যাবে। একই সাথে নৌকা প্রতিকের দাবীদার অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরাও তার দলে ভিড়েছেন। আর সেই সুবাধে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কায়সার হাসনাতের সম্ভাবনাই প্রবল রয়েছে।

এর আগে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে গিয়ে কায়সার হাসনাত বলেছিলেন, আমি এ আসন থেকে আওয়ামীলীগের একজন মনোনয়ন প্রত্যাশী। সোনারগাঁও আসনে এখনো মহাজোটের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়নি। এখানে মহাজোটের প্রার্থী স্থগিত রাখা হয়েছে। সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের ঘাঁটি। সোনারগাঁবাসীর একটাই চাওয়া এখানে নৌকা প্রতিক। নৌকা ছাড়া এখানকার আওয়ামীলীগ অন্য কোন মার্কা মেনে নিবে না।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

এই বিভাগের আরও