বিএনপির দুঃসময়ে পাশে নেই হেফাজত জমিয়ত

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:২২ পিএম, ১০ জানুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার

বিএনপির দুঃসময়ে পাশে নেই হেফাজত জমিয়ত

দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি দলটি দুর্দিন যেন কিছুতেই কাটছেনা। তবে বিএনপি দলটির জোটে থাকা বন্ধু দল হিসেবে পরিচিত দলগুলো বিএনপি দলটির দুঃসময়ে তাদের পাশ কাটিয়ে ক্ষমতাসীনদের সমর্থন করে যাচ্ছে। হেফাজতে ইসলাম প্রকাশে ক্ষমতাসীনদের সমর্থন দিয়ে আসলেও জামায়াতে ইসলাম নিরব থেকে অনেকটা মৌন সমর্থন দিয়ে আসছে। এতে করে বিএনপি দলটি এক হয়ে বারবার বিপাকে পড়ছে।

বিএনপি দলটির সাথে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলটির বিরোধ রাজনৈতিক হলেও বিএনপি দলটির সাথে থাকা জোট দলগুলো মধ্যে জামায়াতে ইসলাম ও হেফাজতে ইসলামের সাথে তাদের অনেকটা দা কুমড়া সম্পর্ক তৈরি হয় নানা কারণে। তবে ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ দলটি ক্ষমতায় একে জামায়াতে ইসলামের নেতাকর্মীদের মানবতা বিরোধী সহ নানা অপরাধে শাস্তি দেয়া শুরু করে। এতে করে জামায়াতে ইসলাম দলটি বিভিন্ন সময় ফুঁসে উঠলেও সরকারের মসনদ টলাতে পারেনি। যেকারণে এর এক পর্যায়ে তারা নিরব ভূমিকা পালন করে। আর তাতে করে সরকার তাদের মৌন সমর্থন পেয়ে বিএনপি দলটিকে বেশ কাবু করে ফেলে।

অন্যদিকে হেফাজতে ইসলাম নামে একটি সংগঠন গত ২০১৩ সালে ক্ষমতাসীন আওামীলীগ দলটির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে বেশ আলোচিত হন। তবে শেষতক তারা সরকারকে কোনভাবে টলাতে না পেরে ব্যাকফুটে চলে যান। আর ভেতরে ভেতরে ক্ষমতার লোভে ক্ষমতাসীনদের সাথে আতাঁত করে চলে।  যার ফলশ্রুতিতে তারা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি দলটিকে সমর্থন না দিয়ে ক্ষমতাসীনদের সমর্থন দেয়। এমনকি প্রকাশে ক্ষমতাসীন দলটির প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দিয়ে তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন।

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ৫মে শাপলা চত্বরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্বারা বিতাড়িত হয়ে বৈরিতা পূর্ণ সম্পর্ক তৈরী হয় সরকারের সাথে। কিন্তু তার মাত্র কয়েক বছরের ভেতরেই বিভেদ ভুলে অন্তরঙ্গ সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে আওয়ামীলীগ ও হেফাজতে ইসলামের।

অনেকটা নাটকীয়ভাবে জন্ম হয় হেফাজতে ইসলামের। গনজাগরন মঞ্চের প্রতিপক্ষ গ্রুপ হিসেবে দ্রুতই আলোচনার শীর্ষে আসে তারা। মহাসমাবেশ ও অবরোধের ডাক দিয়ে পুরো ঢাকা নারায়ণগঞ্জ সহ সারাদেশ অচল করে দিতে সক্ষম হয়। এসময় সরকার ও আওয়ামীলীগের বিভিন্ন মহল থেকে তাদের যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের এজেন্ডা বাস্তবায়নকারী ও ক্ষমতা দখলে বহিরাগত চক্রান্তের অংশ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। প্রথম দিকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) এর কটুক্তি কারীর শাস্তির দাবী নিয়ে হাজির হলেও পরবর্তীতে বিতর্কিত নারীদের বিচরণ সীমিত, ভাষ্কর্য এবং এনজিও কর্মকান্ড বন্ধ সহ ১৩ দফা দাবী নিয়ে মাঠে নামে হেফাজত। এভাবে বহু কর্মসূচি দিলেও হেফাজত দলটি ক্ষমতাসীনদের টলাতে না পেলে চুপশে যায়।

তবে নির্বাচনী বছরের শুরু হেফাজত দলটিকে ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও এমপিদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলতে দেখা যায়। নারায়ণগঞ্জের সাংসদ শামীম ওসমান ও তার অনুগামীদের নেতাদের সাথে নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মঞ্চে দেখা গেছে হেফাজতে ইসলাম দলটিকে। এতে করে জনপ্রিয় হেফাজতে ইসলাম দলটির জনপ্রিয়তার ভাটা পড়তে থাকে। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আগে দলটি প্রকাশে ক্ষমতাসীনদের সাথে আঁতাত করে চলে। আর বিএনপি দলটিকে এড়িয়ে চলতে থাকে। এতে করে দলটির অবস্থান একেবারে স্পষ্ট হয়েছে।

এদিকে বিএনপি দলটির সাথে ২০ দলীয় জোটে থাকা জামায়াতে ইসলাম দলটি ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর থেকে কঠোর আন্দোলনে নামলেও তারা সরকারকে টলাতে পারেনি। এরপর ২০১৪ সালের দশম নির্বাচনে মহাজোট দলটি যখন বিনা ভোটে নির্বাচনে জয়লাভ করে তখনো জামায়াতে ইসলাম দলটি কঠোর আন্দোলন করে। এমনকি তাদের আন্দোলনে পুলিশ প্রশাসন পর্যন্ত ভীত হয়ে পড়ে। এসময় টানা ৯৩ দিনের অবরোধ কর্মসূচিতে বিএনপির সাথে জামায়াতে ইসলাম দলটির কঠোর আন্দোলন দেখা যায়। কিন্তু তাতেও ক্ষমতাসীনদের মসনব টলাতে না পেলে দলটি হামলা, মামলায় জর্জরিত হয়ে ব্যাকফুটে চলে যায়। এর পর ধীরে ধীরে দলটি একেবারে আত্মগোপনে চলে যায়। যদিও দলটি অনেক নেতাকে ততক্ষণে বিভিন্ন মামলায় জেলে পুরে দেয়া হয়। এরপর দলটি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরব ভূমিকা পালন করে। যদিও তারা জোট দল হিসেবে ২৫ জন প্রার্থী দিয়েছে। কিন্তু জামায়াতে ইসলাম দলটির নেতাকর্মীরা বিএনপি দলীয় প্রার্থীদের সমর্থন দেয়নি। বরং তারা নিরব ভূমিকা পালন করেছে। আর তাতে ক্ষমতাসীনদের মৌন সমর্থন দেয় দলটি। এতে করে বিএনপি দলটি একা হয়ে বেশ কোনঠাসা হয়ে পড়ে। আর তাতে করে সেই নির্বাচনে ভরাডুবির ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্টরা বলছে, ‘ক্ষমতাসীন দলটিকে টলাতে না পেরে জামায়াত ও হেফাজত তাদের সমর্থন দিয়ে যায়। আর সেই সমর্থনের কারণে বিএনপি দলটি একা হয়ে একেবারে দুর্বল হয়ে পড়ে। জোট দল হলে বিএনপি দলটিকে এসব বন্ধু দলের সমর্থনা ছাড়াই একা লড়াই করতে হয়েছে। আর দলটির দুর্দিন দেখে এসব দল কেটে পড়েছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও