৪ উপজেলায় প্রার্থী চূড়ান্ত

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৪:৩৯ পিএম, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সোমবার

৪ উপজেলায় প্রার্থী চূড়ান্ত

দিন যাওয়ার সাথে সাথে ঘনিয়ে আসছে উপজেলা নির্বাচন। এবারের উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অবশেষে সদর উপজেলা ছাড়াই নারায়ণগঞ্জের ৪টি উপজেলার আওয়ামীলীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ৩ ফেব্রুয়ারী রোববার ছিল আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য মনোনীত প্রার্থীদের তালিকা প্রেরণের শেষ দিন। যার সূত্র ধরে এদিন নারায়ণগঞ্জের ৫টি উপজেলার মধ্যে আগেরবারের মতো এবারেও সদর উপজেলাকে বাদ রেখেই বাকী ৪টি উপজেলার সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে।

সূত্র বলছে, এবারের উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ প্রত্যেক জেলা ও সংশ্লিষ্ট উপজেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে ৩ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে সম্ভাব্য দলীয় প্রার্থীর তালিকা তৈরি করে কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশনা দিয়েছিলেন। আর এই তালিকা প্রণয়নের দায়িত্ব পেয়েছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ ও সংশ্লিষ্ট উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

তারই ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের চেয়াম্যান পদে ৩ জনের তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। এরা হলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান, বন্দর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ ও মদনপুর ইউপি চেয়ারম্যান ন্দর থানা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আব্দুস সালাম।

সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের ৪ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নামে কেন্দ্রে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তারা হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও এফবিসিসিআই এর পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ৩ জনকে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রাখা হয়েছে। তারা হলেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান ভূইয়া, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা ও আওয়ামীলীগ নেতা তাবিবুল কাদির তমাল। এছাড়া আড়াইহাজার উপজেলায় শুধুমাত্র একজনকেই আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে তালিকা করা হয়েছে। তিনি হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহজালাল।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল রূপগঞ্জ উপজেলার সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যাপারে সত্যতা নিশ্চিত করলেও আড়াইহাজার উপজেলার ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিতে পারেনি। তবে আড়াইহাজার উপজেলায় আওয়ামীলীগের সভাপতি নিজেই নিজের প্রার্থীতার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের ৫টি উপজেলার মধ্যে ৪টি উপজেলার আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা প্রণয়ন করা হলেও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার প্রার্থী নির্ধারণ করা হয়নি। কারণ এবারের নির্বাচনেও সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সর্বশেষ গত ২১ জানুয়ারী ইসি থেকে পাওয়া তথ্যে অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জের ৪টি উপজেলার নাম পাওয়া গেলেও সেখানে সদর উপজেলার নেই।

প্রসঙ্গত নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের জানুয়ারীতে অনুষ্ঠিত হয় সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। সে নির্বাচনে বিএনপির আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরবর্তীতে সদর উপজেলার কিছু এলাকা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন গঠন হওয়ায় ওই সব এলাকা বাদ দিয়ে উপজেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮ (২০০৯ সনের ৩০ জুন সংশোধিত) এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার সদর উপজেলা পুনর্গঠন করে। ২০১৪ সালের ৪ মার্চ এ সংক্রান্ত একটি গেজেট প্রকাশ করা হয়।

এদিকে কয়েকটি এলাকা বাদ দিয়ে উপজেলা গঠন হওয়ায় গত বছর ৬ এপ্রিল উচ্চ আদালতে একটি রিট করা হয়। যার পিটিশন নং- ৩০৮৯। আদালতে রিট করার পেছনের কারিগর বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান এ কথা আড়ালে আবঢালে স্বীকার করেছেন অনেক বিএনপি নেতা। এবারের উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ জটিলতার অবসান ঘটার সম্ভাবনা দেখা দিলেও শেষ মুহূর্তে সেই সম্ভাবনা মিইয়ে গেছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও