প্রস্তুত না জেলা বিএনপি, মাঠে থাকবে মহানগর

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫৬ পিএম, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার

প্রস্তুত না জেলা বিএনপি, মাঠে থাকবে মহানগর

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর প্রথম সারাদেশব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি। নির্বাচন পরবর্তী সময়ে তাদের এই কর্মসূচি রাজনৈতিক অঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা বহন করবে। তবে কেন্দ্রীয় বিএনপির এই কর্মসূচি পালনে প্রস্তুত নয় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। প্রতিবারের মতো এবারও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা দলীয় কর্মসূচি থেকে পিছু হঠছেন।

বিএনপি দলীয় সূত্র বলছে, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ও সারাদেশে বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে ৯ ফেব্রুয়ারি দেশব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হবে। যার ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদেরও কর্মসূচি পালনের কথা। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতাকর্মীরা কর্মসূচি পালনে প্রস্তুত নয়। এমনটাই উঠে এসেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ।

প্রতিবাদ কর্মসূচির ব্যাপারে অধ্যাপক মামুন মাহমুদ নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমরা এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। দলের নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়ার পর বলা যাবে কর্মসূচি পালন হবে কি হবে না। আমাদের নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির অনেক নেতাকর্মী এখন পর্যন্ত জামিন পায় নাই। ফলে কর্মসূচি পালনের ব্যাপারে আমাদের নেতাকর্মীরা প্রস্তত না। বিভিন্ন রাজনৈতিক মামলা থাকার কারণে আমরা এখনও কর্মসূচি পালনের ব্যাপারে প্রস্তুতি নিতে পারছি না।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল নিউজ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমরা কর্মসূচি পালনের জন্য প্রস্তুত রয়েছি। বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে কর্মসূচির ব্যাপারে জানিয়ে দেয়া হবে। আর এই কর্মসূচির মাধ্যমেই পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের চেনা যাবে। দলের বিপদের সময় বুঝা যায় দলের প্রতি কোন নেতার কি রকম ভালবাসা আছে।

তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, নির্বাচনী ব্যর্থতা ঢাকার জন্য বিএনপির জন্য এই কর্মসূচি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যার সূত্র ধরে নির্বাচন পরবর্তী সময়ে এই কর্মসূচি বিএনপির সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের জন্যই অন্যতম গুরুত্ব রয়েছে। আর তাই এই কর্মসূচিকে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের জন্য প্রথম পরীক্ষা হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। এই কর্মসূচির সফলতার উপর ভিত্তি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের ভবিষ্যত নির্ধারিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

জানা যায়, দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে ক্ষমতার বাইরে রয়েছে বিএনপি। আর এই ক্ষমতার বাইরে থাকাবস্থায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা একের পর এক ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে আসছেন। দলীয় আন্দোলন সংগ্রামসহ কোন কর্মসূচিতেই নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদেরকে জাগানো সম্ভব হয়নি। সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের তেমন কোন ভূমিকা রাখতে দেখা যায়নি। শুধুমাত্র মনোনীত প্রার্থীদেরকেই মাঝে মাঝে সংশ্লিষ্ট এলাকায় দেখা মিলেছে। তাদের ছাড়া অন্য কোন নেতাকর্মীদেরকে তেমন কোন ভূমিকা রাখতে দেখা যায়নি। এমনকি শীর্ষ পদে থাকা নেতারাও নিস্ক্রীয় ভূমিকা পালন করেছেন।

এমনকি গত বছরের শুরুতে ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। এই রায়কে ঘিরেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা তেমন কোন জোড়ালো আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেননি। পরবর্তীতে গত ৩০ অক্টোবর সেই সাঁজা বেড়ে ১০ বছর হওয়াতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির আন্দোলন জমেনি। একই সাথে গত ১০ অক্টোবর বুধবার ২১ আগস্ট চালানো গ্রেনেড হামলা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। এই রায়কে ঘিরে নেয়া কর্মসূচিগুলোতেও ফ্লপ মেরেছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এরকম পরিস্থিতি চলাকালিন অবস্থায়ই ঘনিয়ে আসে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করলেও এবারের নির্বাচনকে বিএনপি আন্দোলনের অংশ হিসেবেই অংশগ্রহণ করে। এই নির্বাচনকে ঘিরেও নারায়নগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা জোড়ালো ভূমিকা রাখতে পারেনি। সেই নির্বাচনের পর এবার ঘোষণা করা হয়েছে নতুন কর্মসূচি। দীর্ঘদিন পর এই কর্মসূচিতেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি তাদের পূর্বের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চলেছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও