ডিএনডি প্রকল্প নিয়ে সংসদে শামীম ওসমান

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৯ পিএম, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সোমবার

ডিএনডি প্রকল্প নিয়ে সংসদে শামীম ওসমান

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ডেমরা তথা ডিএনডি বাধের ভেতরে নারায়ণগঞ্জ অংশে জলাবদ্ধতা নিরসনে চলমান সরকারের মেগা প্রকল্পের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান। তিনি বলেছেন, ‘এটা শুধু আমার কিংবা নারায়ণগঞ্জবাসীর কাজ না। খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ নজরদারিতে প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ভালোবাসার একটি বহিঃপ্রকাশও এ প্রকল্প অনুমোদন ও কাজটি দেশ প্রেমিক সেনাবাহিনীকে দিয়ে করানোতে প্রকাশ পায়।’

১০ ফেব্রুয়ারী রোববার সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে ডিএনডি নিয়ে প্রশ্নটি তুলেন শামীম ওসমান যিনি কয়েক বছর ধরেই এ অঞ্চলের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য চেষ্টা করে আসছিলেন। অনেক কাঠখোড় পোহানোর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫৫৮ কোটি টাকার প্রকল্পের অনুমোদন প্রদান করেন। ২০১৭ সালের ৮ডিসেম্বর ডিএনডি প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন করা হয়। এর মেয়াদ আগামী ২০২০ সাল পর্যন্ত। ২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে প্রকল্পের মূল সমস্যা জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষ্যে কাজ করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

ডিএনডিতে মূলত অল্প বৃষ্টি হলেই জমতো পানি। গত অন্তত দেড় দশক ধরে এ বাধের ভেতরে ২০ লাখেরও বেশি মানুষ বর্ষা ও বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছিলেন।

শামীম ওসমান সংসদে বলেন, ‘ইতোমধ্যে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকা পরিদর্শন করেছেন এজন্য আমি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ওই সময়ে আমি পবিত্র ওমরা হজে ছিলাম যে কারণে আমি ছিলাম না। আপনাদের এ প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন নিশ্চয় এর গতি বাড়াবে। আমার প্রশ্ন ডিএনডি প্রকল্পের কাজ আরো আধুনিকায়তন হবে কী না আর আপনি সেনাবাহিনীকে কি ধরনের নির্দেশনা দিয়ে আসছেন যদি জানাতেন।’

জবাবে  পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক উত্তরে বলেন, ‘যথা সময়েই কাজটি সম্পন্ন হবে আশা করা যাচ্ছে। ইতোমধ্যে আমরা প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেছি।’

এখানে উল্লেখ্য গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ও উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম সিদ্ধিরগঞ্জে ডিএনডি প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করে বলেন, ডিএনডি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের ৩৭ভাগ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। জুলাই ২০২০ সালের মধ্যে প্রকল্পটির কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। আশা করছি নির্দিষ্ট সময়ের আগেই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। আগামী বর্ষাকে সামনে রেখে প্রকল্পের কাজ করা হচ্ছে। ডিএনডি অভ্যন্তরে ২২ লাখ মানুষকে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষার জন্য আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে পাম্পগুলো সচল করা হবে। যাতে করে এবছর ডিএনডি অভ্যন্তরে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি না হয়।

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, ডিএনডি এলাকাটি একটি ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। এই এলাকায় কাজ করতে গিয়ে বিভিন্ন রকম প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হচ্ছে সেনাবাহিনীর। এসব প্রতিবন্ধকতাগুলো নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা এসব সমস্যার সমাধান করছি। এসব বিষয় নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে যাতে কোন রকম উদ্বেগ তৈরি না হয়। আমাদের লক্ষ্য সঠিক সময়ে এই প্রকল্পের কাজ শেষ করা। এই প্রকল্পের কাজ শেষ হলে হাতিরঝিলের চাইতেও বড় এবং সুন্দর হবে ডিএনডি অভ্যন্তরের এলাকা। ডিএনডি অভ্যন্তরে প্রায় ৯৪ কিলোমিটার খাল আমরা উদ্ধার ও সংস্কার করছি। এসব খাল দিয়ে ওয়াটার বাস চলাচল করবে। যেভাবে প্রকল্পের পরিকল্পনা করা হয়েছিলো ঠিক সেভাবেই কাজ হচ্ছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও