উপজেলা নির্বাচনকে জাতীয় পার্টির ড্যামকেয়ার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৭ পিএম, ১২ মার্চ ২০১৯ মঙ্গলবার

উপজেলা নির্বাচনকে জাতীয় পার্টির ড্যামকেয়ার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর উপজেলা নির্বাচনের দামামা বাঁজতে শুরু করেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলটির পাশাপাশি শরীক দল জাতীয় পার্টি নির্বাচনে বন্ধু দল হিসেবে জোটবদ্ধ হয়ে অংশগ্রহণ করলেও উপজেলা নির্বাচনে এ জেলাতে দলটির কোন প্রার্থী অংশগ্রহণ করছেনা। আর দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি দলটি ভোট কারচুপির অভিযোগে উপজেলা নির্বাচন বর্জন করেছে অনেক আগে। এতে করে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলের নেতাকর্মীরা ফাঁকা মাঠে গোল দিতে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জাতীয় পার্টি দলটি সংরক্ষিত নারী এমপি সহ আরো কতগুলো সিদ্ধান্ত নিয়েও মুখ থুবড়ে পড়েছে। এতে করে দলটি কিছুটা ব্যাপফুটে চলে গেছে। তাই এ জেলার উপজেলা নির্বাচনকে ড্যামকেয়ার করে পাশ কাটিয়ে চলছে জাতীয় পার্টি দলটি। এর ফলে তারা কোন প্রার্থী দিচ্ছেনা এই নির্বাচনে।

সূত্র বলছে, আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ ধাপের উপজেলার নির্বাচন অনুুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। চতুর্থ ধাপে দেশের পাঁচ বিভাগের ১৬টি জেলার ১২২টি উপেজলায় ভোট হবে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার, সোনারগাঁও ও রূপগঞ্জ উপজেলায় নির্বাচনে অনুষ্ঠিত হবে।

তারই ধারাবাহিকতায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় দলীয় প্রার্থীদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। একই সাথে নারায়ণগঞ্জের তিনটি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনীতদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী শাহজাহান ভূইয়া, আড়াইহাজারে পেয়েছেন মুজাহিদুর রহমান হেলু সরকার, সোনারগাঁয়ে পেয়েছেন মোশারফ হোসেন।

মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিনে আড়াইহাজার উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান পদে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট নারায়ণগঞ্জে মনোনয়ন দাখিল করেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ নেতা শিল্পপতি আজাদ খান সোহাগ। অপরদিকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আড়াইহাজারে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট মনোনয়ন দাখিল করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজালাল মিয়া, প্রকৌশলী গোলাম মোহাম্মদ, উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সভাপতি ইকবাল হোসেন মোল্লা ও আওয়ামীলীগ নেতা আবুল হাশেম।

রুপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনিত রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহজাহান ভূইয়া, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা তাবিবুল কাদির তমাল, মোখলেছুর রহমান ও এস আলম।

এদিকে সোনারগাঁ উপজেলায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ প্রার্থী মোশারফ হোসেন ও বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী মাহফুজুর রহমান কালাম।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি দলটির ভরাডুবির পেছনে প্রহসনের নির্বাচনকে দায়ী করছে দলটি। যেকারণে ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে বিএনপি দলটি উপজেলা নির্বাচন বয়কট করেছে। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে শুরু করে স্থানীয় সবকটি নির্বাচনে শরীক দল জাতীয় পার্টি অংশগ্রহণ করে এসেছে। তবে এবার উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিনেও দলটির কোন প্রার্থীকে মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি। এতে করে জাতীয় পার্টি উপজেলা নির্বাচনের চতুর্থ দফায় এ জেলাতে অংশগ্রহণ করছেনা এটা স্পষ্ট হয়েছে।

সূত্র বলছে, সম্প্রতি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর সংরক্ষিত নারী এমপি নিয়ে জাতীয় পার্টি দলটি কেন্দ্র থেকে এ জেলার ওসমান পরিবারের সদস্য ও প্রয়াত এমপি নাসিম ওসমানের পত্মী পারভীন ওসমান সহ মোট ৪ জনকে মনোনয়ন দেয়। তবে আওয়ামীলীগ দলটি কেন্দ্র থেকে মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু করলে জাতীয় পার্টির সেই মনোনয়ন বাতিল করে নতুন করে মনোনয়ন পত্র বিক্রি করে দলটি। এরপর এ জেলা থেকে কোন নারী এমপি দেয়া হয়নি। এতে করে জাতীয় পার্টি দলটি অনেকটা মনক্ষুন্ন হয়ে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী দেয়া থেকে বিরত থাকতে পারে বলে অনেকের ধারণা। একারণেই তারা উপজেলা নির্বাচনকে ড্যামকেয়ার করে চলছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও