২০৪ সদস্যের নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি অনুমোদন!

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:৩৩ পিএম, ২৫ মার্চ ২০১৯ সোমবার

২০৪ সদস্যের নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি অনুমোদন!

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ২০৪ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের খবর এসেছে। ২৫ মার্চ সোমবার ওই কমিটির অনুমোদন হয়েছে জানিয়েছেন দলের একাধিক নেতা।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারী জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানকে সভাপতি ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে সেক্রেটারী করে জেলা  বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়।

২৬ সদস্যের কমিটিতে সহ সভাপতি হলেন শাহ আলম, খন্দকার আবু জাফর, জান্নাতুল ফেরদৌস, শাসমসুজ্জামান, আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, আজহারুল ইসলাম মান্নান, আবদুল হাই রাজু, মনিরুল ইসলাম রবি, ব্যারিস্টার পারভেজ আহমেদ, লুৎফর রহমান। যুগ্ম  সম্পাদক লৎফর রহমান খোকা, এম এ আকবর। সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান রোজেল, নজরুল ইসলাম পান্না, মাসুকুল ইসলাম রাজীব। সহ সাংঠনিক সম্পাদক উজ্জল হোসেন, অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হাসান ও রুহুল আমিন। সদস্য পদে সাবেক এমপি রেজাউল করীম, গিয়াসউদ্দিন, বদরুজ্জামান খান খসরু, নজরুল ইসলাম আজাদ, আতাউর রহমান আঙ্গুর ও মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভূইয়া।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জে জেলা বিএনপির কমিটি পুনর্গঠনের জন্য কেন্দ্রে তালিকা জমা দেয়া নিয়ে স্বেচ্ছাচারিতা শুরু করেছে দলটির বর্তমান সভাপতি ও সেক্রেটারী পদে থাকা কাজী মনির ও মামুন মাহমুদ। এ জেলায় বিএনপির রাজনীতিকে নিজেদের হাতের মুঠোয় রাখতে দলের ত্যাগী নেতাদের মাইনাস ও নিজ বলয়ের অনুগামীদের পদায়িত করার মিশন বাস্তবায়িত করছেন। যেকারণে দলটির দুর্দিনে যখন ত্যাগী ও হাল ধরা নেতাদের খুবই প্রয়োজন তখনো স্বেচ্ছাচারিতার মধ্য দিয়ে দলটিকে আরো বিপদের মুখে ফেলে দিচ্ছে। আর এসব স্বেচ্ছাচারিতার নেপথ্যে রয়েছেন পদত্যাগী নেতা শাহআলম যিনি পদত্যাগ করলেও তার অনুগামীরা ঠিকই এককভাবে পদায়িত হচ্ছে।

জানা গেছে, দল গোছাতে ব্যর্থতার দায়ে তারেক রহমানের কাছ থেকে ভর্ৎসনার শিকার হয়ে তড়িগড়ি করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি নাম তালিকা কেন্দ্রে জমা দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। তবে তৈমূর ও গিয়াস বলয়ের অনেক ত্যাগী নেতাকর্মীকে বাদ দিয়েই ২শ চার সদস্য বিশিষ্ট ওই কমিটি জমা দেওয়া হয়েছে। কমিটির তালিকাতে যাদের নাম জমা দেয়া হয়েছে তারা সবাই কাজী মনির, মামুন মাহমুদ ও শাহআলমের অনুগামীরা। যেকারণে স্বেচ্ছাচারিতার বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে।

এদিকে তড়িগড়ি করে কমিটির নাম তালিকা জমা দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন দলটির অনেক নেতাকর্মী। তারা বলছেন, এভাবে একটি দল চলতে পারে না।  দলের এই দুঃসময়ে এভাবে বিভাজন রেখে সাংগঠনিক কার্যক্রমকে গতিশীল করা যাবে না।

বর্তমান কমিটির কয়েকজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম তালিকার নির্ণয় করার ক্ষেত্রে জেলা বিএনপির ২৬ সদস্যের অন্যান্যদের তেমন একটা গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। মূলত কাকে রাখা হবে কাকে রাখা হবে না তা পুরোপুরি নির্ধারণ করেছেন কাজী মনির, মামুন এবং রোজেল। আর নেপথ্যে ছিলেন শাহ আলম।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও