কারা আসছেন আওয়ামীলীগ স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও যুবলীগের নেতৃত্বে

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৪ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০১৯ বুধবার

কারা আসছেন আওয়ামীলীগ স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও যুবলীগের নেতৃত্বে

নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠনে হতে যাচ্ছে নতুন কমিটি। কারা আসছেন এসব কমিটির নেতৃত্বে সেটাই এখন মুখ্য আলোচনায় পরিণত হতে চলেছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে প্রকৃত আওয়ামী লীগার ও যোগ্য নেতাদের সামনে আনা হবে।

ইতোমধ্যে সরকারের একাধিক সংস্থা নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ নেতাদের সম্পর্কে খোঁজ খবর নিতে শুরু করেছে। আর এতে উঠে এসেছে অন্তত এক ডজন নেতার নাম। বিভিন্ন সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। তাদের ব্যাপারে নেওয়া তদন্তের একটি প্রতিবেদন জমা করা হবে আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারকদের কাছে। আর তখনই ঘোষণা করা হতে পারে সামনের কমিটি।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন ও আগামী বছর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে আরও শক্তিশালী সাংগঠনিক ভিত্তি দিতে চান প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। তাই এবারের ত্রিবার্ষিক জাতীয় সম্মেলনে সেভাবে ঢেলে সাজাতে চান আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব। ফলে দলের সভাপতিমন্ডলী ও সম্পাদকমন্ডলীতে তারুণ্য নির্ভর ও সৃজনশীল নেতৃত্ব আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় এ ধারা বইতে পারে নারায়ণগঞ্জেও।

২০১৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর আনোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট খোকন সাহাকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এর দুই বছর পর ২০১৫ সালের ১০ ডিসেম্বর ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর আগে বিলুপ্ত শহর আওয়ামী লীগের কমিটিতেও সভাপতি ও সেক্রেটারী পদে ছিলেন আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা। কমিটির মেয়াদ ছিল ২ বছর। কিন্তু পার হয়ে গেছে ৭ বছর।

২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর আবদুল হাইকে সভাপতি, সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে সহ সভাপতি এবং আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদলকে সাধারণ সম্পাদক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট জেলা আওয়ামীলীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র। ১৩ মাস পর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ৭৪ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয় কেন্দ্র।

দলীয় নেতাকর্মীদের সুত্র থেকে জানা গেছে, ২০০৫ সালে বিএনপি জোট সরকার আমলে অনেকটা বেকায়দায় নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। জেলা যুবলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন আবদুল কাদির ও সাধারণ সম্পাদক হন অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল। সম্মেলনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন বর্তমান সিনিয়র সহ-সভাপতি মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল।

শহর যুবলীগের সভাপতি পদে রয়েছেন শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু ও সেক্রেটারি পদে রয়েছেন আলী আহমেদ রেজা উজ্জল। আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায়  আসার পর সভাপতি ও সেক্রেটারি পৃথকভাবে রাজনীতি শুরু করেন। ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জে সিটি কর্পোরেশন গঠিত হলেও এখনও মহানগর যুবলীগের কমিটি গঠন করা হয়নি।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক কমিটি হয়েছে প্রায় এক যুগ পূর্বে। কমিটিতে আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন নিজামউদ্দীন। গোলাম কিবরিয়া খোকন সাহা বেশকজন রয়েছেন যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে। যদিও ইতিমধ্যে শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি বিলুপ্ত করে গত বছর মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটিতে  সভাপতি জুয়েল হোসেন ও সেক্রেটারি পদে কাউন্সিলর সাইফউদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও