ওসমান ভ্রাতৃদ্বয়ের সঙ্গে এসপি : বদলাচ্ছে পরিস্থিতি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:২২ পিএম, ১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার

ওসমান ভ্রাতৃদ্বয়ের সঙ্গে এসপি : বদলাচ্ছে পরিস্থিতি

নারায়ণগঞ্জে সাম্প্রতিক বেশ আলোচিত এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের বিরোধ। শামীম ওসমানের শ্যালক তানভীর আহমেদ টিটুকে মেরি এন্ডারসনের মদ বিয়ার উদ্ধারে জড়ানো, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজামের বিরুদ্ধে জিডির রেশ যখন পরিস্থিতি কিছুটা উত্তপ্ত তখন এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের জরুরী কর্মী সভায় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে শামীম ওসমান নিজেও পুলিশ প্রশাসনকে কড়া ভাষায় হুর্শিয়ারী দেন।

এ অবস্থায় চারদিনের ব্যাবধানে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের সঙ্গে এক টেবিলে দেখা গেছে ওসমান ভ্রাতৃদ্বয় এমপিকে। দুইদিনই এমপিদ্বয় ও পুলিশ সুপারকে দেখা গেছে বেশ ফুরফুরে মেজাজে। ফলে বিগত দিনে যে দ্বৈরথ পরিলক্ষিত হয়েছে সেটা নিয়েও এবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

পহেলা বৈশাখে রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারের বাসভবনে বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে যোগ দেন শামীম ওসমান। ওই সময়ে নববর্ষ উপলক্ষে শতভাগ বাঙালিয়ানা উৎসবের আয়োজন ছিল পুলিশ সুপারের বাসভবনে। ত্রিশ পদের ভর্তা, পান্তা ইলিশ, কাঠাল, আতাঁফল আর দেশীয় ফল রাখা হয় ভোজন অনুষ্ঠানে। দুপুর দেড়টায় শামীম ওসমান পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের বাস ভবনে আসেন। তাকে পুলিশ সুপার ও তার পত্মী স্বাগত জানান। পরে তিনি বাস ভবনের ভিতরে মধ্যাহ্ন ভোজে অংশ নেন। এসময় শামীম ওসমান ও পুলিশ সুপার পাশাপাশি চেয়ারে বসে ছিলেন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, জেলা আদালতের পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন, বিকেএমইএর সাবেক সভাপতি ফজলুল হক প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতের পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, এসপি হারুন অর রশিদের বাস ভবনে মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহণ করলেও দুইজনের মধ্যে তেমন কোন গভীর কিংবা একক ভাবে কোন আলোচনা হয়নি। দুইজনই দুইজনকে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। বর্ষবরণের যে আয়োজন ছিল সেটা উপভোগ করেছেন।

এর আগে ৯ এপ্রিল জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে লাঙ্গলবন্দ নিয়ে বৈঠক হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সেলিম ওসমান ও হারুন অর রশিদ।

সেদিন সেলিম ওসমান বলেন, জনস্বার্থে আমরা কাজ করবো। আমরা ভুল করলে আমাদের শাস্তি হবে। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার ভুল করলে তাদের সঙ্গে আমাদের ঝগড়া হবে হয়তো শাস্তি হবে। আমরা চিরজীবনের জন্য আসি নাই। আজকে যারা আছেন তারা এক সময়ে চলে যাবেন।’

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘সাংবাদিক ভাইয়েরা খোঁচাখুচি কইরেন না। শান্তির শহর গড়ে তুলুন। আমাদের সঙ্গে কথা বলেন। কথা না বলে নিউজ কইরেন না। নারায়ণগঞ্জের অনেক অনলাইন মিডিয়া মিথ্যাচার করছে। এগুলো উদ্বেগের বিষয়। সাংবাদিকদের কাছে অনুরোধ যতক্ষন পর্যন্ত কিছু না ঘটে ততক্ষন পর্যন্ত ঘটিয়ে দিয়েন না। যত গর্জে তত বর্ষে না।’

অপরদিকে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেন, ‘গণমাধ্যমেই খবর এসেছে যে দুইজন ব্যবসায়ীকে আমরা পুলিশ ধরে মামলা দিয়েছি। অথচ এ ধরনের কোন ঘটনাই ঘটে নাই। এ ঘটনার কারণেই ব্যবসায়ীরা আসবেন বলা হয়েছিল। কিন্তু এমপি সাহেব (সেলিম ওসমান) নিজেই বলেছেন কোন মামলাও হয়নি। এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি। এটা একটা ভুল বোঝাবুঝি ছিল। সমাজে কিছু মানুষ আছে যাদের ধাক্কাধাক্কি খোঁচাখুচি করা হয়।

তিনি বলেন, ‘আমি চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলতে পারি। নারায়ণগঞ্জের কোন এমপির সঙ্গে আমার কোন বিরোধ নাই। তাদের সঙ্গে কোন বিষয় নিয়ে আমার দ্বিমত নাই।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও