রূপগঞ্জবাসীর বসতভিটা রক্ষায় তৈমূরের দ্বিতীয় দফা আলোচনা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৫ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৯ বুধবার

রূপগঞ্জবাসীর বসতভিটা রক্ষায় তৈমূরের দ্বিতীয় দফা আলোচনা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার সবসময় সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় রূপগঞ্জ ইউনিয়নের পিতলগঞ্জ ও মোগলান মৌজায় অবস্থিত মধূখালী গ্রামবাসীর বসতিভিটা সহ জমি রক্ষায় দ্বিতীয় দফায় ১৭ এপ্রিল বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের অনুপস্থিতিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সেলিম রেজা সাথে আলোচনা করেছেন।

এর আগে গত ১১ এপ্রিল অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক ও পরিবেশ অধিদপ্তরের বরাবর আবেদন জানিয়েছিলেন।

সেই আবেদনের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে মোহম্মদ সেলিম রেজা বলেন, আমাদের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। আবেদনের প্রেক্ষিতে কয়েকবার মোবাইল কোর্ট অভিযান চালিয়েছে। সেই সাথে রূপগঞ্জ ইউএনওকেও বলা হয়েছে বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়ার জন্য।

এসময় এলাকাবাসীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী ফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাষানী, অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান মোল্লা, রূপগঞ্জ যুব মহিলালীগের সাধারণ সম্পাদক আন্নি আক্তার, ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বিলকিস, আব্দুল জব্বার, আব্দুল মোতালেব,  সবির মুন্সি, মান্নান, মোক্তার হোসেন, মজিবুর, শাহজাহান, সামসুল ও সিরাজুল।

রূপগঞ্জবাসীর পক্ষে আবেদনপত্রে বলা হয়েছিল, রূপগঞ্জ উপজেলাধীন রূপগঞ্জ ইউনিয়নের পিতলগঞ্জ ও মোগলান মৌজায় অবস্থিত মধূখালী গ্রামে প্রায় ৫ হাজার লোকের বসবাস সহ ৪টি মসজিদ, একটি ঈদগাহ, ছয়টি সামাজিক ও পারিবারিক কবরস্থান, একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পুকুর, ফসলী জমি সহ মানুষ চলাচলের পাকা রাস্তাসহ হাজারের অধিক বসত ঘর রয়েছে।

কিন্তু কিছুদিন যাবৎ নিম্নবর্ণিত ভূমিদস্যু চক্র এই গ্রামের জমিতে জোরপূর্বক বালি ফেলে দখলে নেয়ার জন্য ড্রেজার পাইপ স্থাপন করেছে। শুধু তাই নয়, জমি ক্রয় না করে জোরপূর্বক বালি ফেলে ভরাটের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। এতে আমরা গ্রামবাসী শংকিত ও আতঙ্কিত। আমাদের বিতারিত করে এ গ্রামটি দখল করে ভূমিদস্যুরা আবাসন প্রকল্প করার পদক্ষেপ নিয়েছে।

সরকারের ও পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ব্যতিত পিতলগঞ্জ চেয়ারম্যান বাড়ী বাজারের দক্ষিণ পাশে রাস্তার উপরে (ডেমরা-কালিগঞ্জ সড়কের উপর) ড্রেজার পাইপ বসিয়ে বালি দ্বারা এলাকাটি ভরাটের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ড্রেজার পাইপ বসানোর জন্য ভূমিদস্যুরা জেলা প্রশাসন বা পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন প্রকার অনুমতি গ্রহণ করে নাই। 


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও