খালেদা জিয়ার মুক্তি চান না সাখাওয়াতরা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৭ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৯ মঙ্গলবার

খালেদা জিয়ার মুক্তি চান না সাখাওয়াতরা

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চান না নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান সহ অনুগামীরা।

২৩ এপ্রিল বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে আদালতপাড়ায় ঘণ্টাব্যাপী প্রতিকী অনশন হলেও সেখানে অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের দেখা মিলেনি। সেই সাথে তার অনুসারিদেরও দেখা মিলেনি। ফলে বিএনপির নেতাকর্মীরা ধরে নিয়েছেন অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত খালেদা জিয়ার মুক্তি চাননি বলেই তিনি সহ তার অনুসারিরা অনশনে আসেনি।

দলীয় সূত্র বলছে, দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে আটক রয়েছেন। প্রথমে একটি মামলায় কারাগারে পাঠালেও এরপর তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দায়ের করা হচ্ছে। ফলে একটি মামলায় জামিন পেয়ে গেলেও পরবর্তীতে তাকে ফের অন্য মামলায় কারাগারে পাঠাচ্ছে। এভাবে মাসের পর মাস খালেদা জিয়া কারাবরণ করে যাচ্ছেন। বিএনপি নেতাকর্মীদের দাবী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সকল মামলায় মিথ্যা। তাকে বর্তমানে মিথ্যা মামলায় কারাবরণ করতে হচ্ছে।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিভিন্ন আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ২৩ এপ্রিল মঙ্গলবার গণতন্ত্র ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়া মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ শাখার উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় প্রতিকী অনশনের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। সেই সাথে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম।

এসময় বিএনপির অন্যান্য নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন। তবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকে সাখাওয়াত হোসেন খান উপস্থিত ছিলেন না। সেই সাথে তার অনুসারী হিসেবে পরিচিত অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম মোল্লা, অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন প্রধান ও অ্যাডভোকেট রুকনউদ্দিন আহমেদসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন না।

তবে তার অনুপস্থিতিতে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় আইনজীবীদের মাঝে ভিন্ন প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। তাদের মতে, অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান অনশনে উপস্থিত হলে এই কর্মসূচি আরও প্রাণবন্ত হতো। যেখানে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের সাথে পরোক্ষ বিরোধ থাকা সত্ত্বেও বেগম জিয়ার মুক্তির দাবীতে মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম অনশনে উপস্থিত হয়েছেন সেখানে সাখাওয়াত হোসেন খান উপস্থিত থাকলে কোন ক্ষতি হয়ে যেত না।

অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান সবসময় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বক্তৃতাবাজী করে থাকেন। কিন্তু কার্যতপক্ষে দল ও বেগম জিয়ার প্রতি তার মায়া, মমতা ও ত্যাগ চোখে পড়ে না। যদি দল ও বেগম জিয়ার তারা ভালবাসা থাকতো তাহলে সকল বিরোধের উর্ধ্বে থেকে প্রতিকী অনশনে উপস্থিত থাকতো।

এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, আমি নিজে অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত বলেছি অনশনে থাকার জন্য। কিন্তু কেন যে মঙ্গলবার প্রতিকী অনশনে উপস্থিত হননি সেটা তার বিষয়। এই অনশনে বিএনপির অনেক নেতাই উপস্থিত ছিলেন সেখানে সাখাওয়াত সহ তার অনুসারিরা উপস্থিত থাকতে পারবো। কারণ আমাদের এখন সবকিছুর উর্ধ্বে থেকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করতে হবে। এটাই আমাদের একমাত্র কর্মসূচি হওয়া উচিত।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও