কালামের পৃষ্ঠপোষকতায় কালসাপের বেড়ে উঠা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৬:১৭ পিএম, ৮ জুন ২০১৯ শনিবার

কালামের পৃষ্ঠপোষকতায় কালসাপের বেড়ে উঠা

নারায়ণগঞ্জ বিএনপির বহুল আলোচিত ও সমালোচিত নেতা হলেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল। যার বিরুদ্ধে বিএনপির নেতাকর্মীদের অভিযোগের অন্ত নেই। দলের বিরুদ্ধে একের পর এক কাজ করে গেলেও তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। বিএনপির নেতাকর্মীরা এখন তাকে কালসাপ হিসেবে আখ্যায়িত করছেন। তার বিএনপির রাজনীতিতে বেড়ে উঠার পিছনে হাত রয়েছে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালামের।

তারই পৃষ্ঠপোষকতায় অনেক ত্যাগী নেতাদের টেক্কা দিয়ে মুকুল বাগিয়ে নেন নারায়গঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতির পদ। আবুল কালামের সহযোগিতায় আতাউর রহমান মুকুল দলের বিরুদ্ধে গিয়ে কাজ করেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে টিকে রয়েছেন। আর এভাবেই দিন দিন দুধ কলা দিয়ে কালসাপ পুষে যাচ্ছেন আবুল কালাম। ফলশ্রুতিতে নিজ দলের বিরুদ্ধেই একের পর এক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন আতাউর রহমান মুকুল।

সর্বশেষ গত ৩০ মে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধেও বিষেদাাগার করেছেন। এদিন বাদ আসর বন্দরের নবীগঞ্জ টি-হোসেন গার্ডেনে শহীদ জিয়াউর রহমানের ৩৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আতাউর রহমান মুকুল। এতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আতাউর রহমান মুকুল বলেন, আমাদের মধ্যে দালাল ঢুকে গেছে। আমাদের দলের মহাসচিবই সরকারের দালালী করছেন। এই দালালী আমরা দেখতে চাই না। আমরা সৎ লোকের রাজনীতি চাই। যারা অরিজিনালভাবে শহীদ জিয়াউর রহমানকে ভালবাসে তারা বিএনপি করে। এই সমস্ত দালাল দিয়ে বিএনপি চলবে না।

এর আগে গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থীদের বিরুদ্ধে গিয়ে কাজ করার অভিযোগ রয়েছে আতাউর রহমান মুকুলের বিরুদ্ধে। বন্দর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যানের পদটি টিকিয়ে রাখার জন্য সরাসরি মহাজোটের প্রার্থী সেলিম ওসমানের জন্য আদাজল খেয়ে মাঠে নামেন। মুকুলের বিরুদ্ধে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী এস এম আকরামের অভিযোগ নির্বাচনের দিন মুকুল বিএনপির ভোটারদের কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছেন। আর তার প্রতিদান হিসেবে আতাউর রহমান মুকুল চেয়েছিলেন এবারের বন্দর উপজেলা নির্বাচনেও নিজেকে টিকিয়ে রাখতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার ঠিকে থাকা হলো না। তারপরেও আতাউর রহমান মুকুল ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গ ছাড়ছেন না। সেই সাথে নিজে দলের নেতাদের বিরুদ্ধেও বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে আতাউর রহমান মুকুলের এই বিতর্কিত ভূমিকার কারণে গত ১৮ মার্চ নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির নেতাদের নিয়ে রাজধানীর পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বৈঠকে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকে আবুল কালামের সাথে সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান তর্ক বিতর্কে লিপ্ত হন। অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান সভাপতি আবুল কালামের বিরুদ্ধে জাতীয় পার্টির সাথে সম্পৃক্ততা, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিস্ক্রীয়তা ও দলীয় কর্মসূচিতে নিস্ক্রিয় থাকার অভিযোগ তুলেন। কিন্তু সেখানে আবুল কালাম নিজেই মুকুলের পক্ষ অবলম্বন করেন।

এর আগে ২০১৫ সালের নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আতাউর রহমান মুকুল। ওই অনুষ্ঠানের মুকুলের উপস্থিতিতেই বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে কুকুর বলে গালি দেন আওয়ামীলীগের এক নেতা। কিন্তু এর বিন্দুমাত্র প্রতিবাদ না করে বরং মুচকি হেসেই গালি হজম করে নেন আতাউর রহমান মুকুল। সেই সাথে বিগত দিনগুলোতে বিএনপির দলীয় কর্মসূচিতে উপস্থিত না থাকলেও সরকারি দলের অনুষ্ঠানে ঠিকই হাজির হতেন আতাউর রহমান মুকুল।

এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর হাতে নৌক প্রতীক তুলে দিয়েছিলেন মুকুল। ২০১৭ সালের ১৯ জানুয়ারি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের জন্ম বার্ষিকী পালন করতে গিয়ে পুলিশের হামলার শিকার হয়েচিলেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। পুলিশী বাধায় পড়েছিল র‌্যালী। সেখানে দেখা যায়নি আতাউর রহমান মুকুলকে। কিন্তু এদিন বিকেলে আতাউর রহমান মুকুল আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এসে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় মিষ্টিমুখ করিয়েছিলেন।

আতাউর রহমান মুকুলের এই বিতর্কিত কর্মকান্ড ভালভাবে নিতে পারছেন বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তাদের মতে, আতাউর রহমান মুকুল মহানগর বিএনপির একজন সিনিয়র নেতা। তার মতো একজন নেতার কাছে এসকল বিতর্কিত কর্মকান্ড কখনও কাম্য নয়। সে বিএনপির নেতাকর্মী সমর্থকদেরকে দ্বিধা-দ্বদ্বে ও বিভক্তিতে ফেলছে। তার অবস্থান সম্পর্কে পরিস্কার হতে পারছি না। আর তাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম। তিনি দুধ কলা দিয়ে কালসাপ পুষে যাচ্ছেন। ফলে সময় সুযোগ বুঝে এই কালসাপ বিএনপিকে ছোবল মারছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও