পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যানদের লজ্জা দিলেন নারী প্রার্থীরা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪২ পিএম, ১১ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যানদের লজ্জা দিলেন নারী প্রার্থীরা

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার নির্বাচনে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের রীতিমত লজ্জা দিয়ে মাঠ দাবিয়ে বেড়াচ্ছেন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। কারণ নানা চাপে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচনের মাঠ ছেড়ে দিলেও লড়ছেন নারী প্রার্থীরা।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে জাতীয় পার্টি নেতা ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু উড়োজাহাজ, আকতার হোসেন বই,  নুরুজ্জামান তালা, হাফেজ পারভেজ হাসান চশমা ও শহীদুল ইসলাম জুয়েল টিউবওয়েল প্রতীক পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এদের মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী জাতীয় পার্টি নেতা ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সালিমা হোসেন শান্তা পথ পরিস্কারের জন্য চেষ্টা চালানো হয়। নারীর বিষয়টি সুরহা না হলেও পুরুষের বিষয়টি সমঝোতা ঘটে। তবে সেটা প্রতীক বরাদ্দের পর হওয়ার কারণে ভোটের ব্যালটে সবার প্রতীক থাকছে। কিন্তু ভোটের ময়দানে নেই চার প্রার্থী। আর এতে করে অনেকটাই নাকে তেল দিয়ে ঘুমানোর মত অবস্থা সানাউল্লাহ সানুর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জানান, তাকে নানাভাবে হুমকি প্রদান করা হয়। জাতীয় পার্টির নেতা সানাউল্লাহ সানুর জয়ের পথ সুগম করে দিতেই এ চাপ দেওয়া হয়েছিল সে কারণেই চাপের কারণে তিনি সরে গেছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারীদের মধ্যে নুরুন্নাহার বেগম সন্ধা হাঁস প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করছেন যিনি নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুব মহিলা লীগের আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। যদিও মহানগর যুব মহিলা লীগের পাল্টা কমিটি হয়েছিল। নুরুন্নাহার বেগম সন্ধার পক্ষে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের একটি পক্ষকে কাজ করতে দেখা গেছে। নিজেদের পদ পদবী ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সেই সাথে নির্বাচনী মাঠেও নামার জন্য বলা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে নুরুন্নাহার সন্ধার পক্ষে ভোট চেয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যেখানে তিনি লিখেছেন, ‘নিজেদের অধিকার আদায় করতে শিখুন ভোট একটি গণতান্ত্রিক অধিকার, আমার ভোট আমি দিব যাকে খুশি তাকে দিব। এই হউক আমাদের অঙ্গীকার। বন্দর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নুরুন্নাহার সন্ধ্যাকে হাঁস মার্কায় ভোট দিয়ে আপনার ভোট আপনার মনোনীত প্রার্থিকে প্রয়োগ করার অধিকার রক্ষা করুন।

তবে এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা বলেছিলেন, বন্দর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ থেকে কাউকে সমর্থন দেয়া হয়নি। তিনি নিজে কাউকে সমর্থন করেন না।

কিন্তু খোকন সাহা এসব কথা বললেও মহানগর আওয়ামীলীগের অন্যান্য নেতারা ঠিকই সন্ধ্যার পক্ষে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সমর্থনের জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে একইভাবে সালিমা আক্তার শান্তা ফুটবল প্রতিকে নির্বাচন করছেন যিনি বন্দর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আর তার পক্ষে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ মাঠে নামার জন্য বলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ নিজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যেখানে তিনি লিখেছেন, ‘বন্দর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ এর সম্মানিত সভাপতি ‘সালিমা আক্তার শান্তা’ আপার নির্বাচনী প্রচারণার জন্য বন্দর থানা এবং বন্দর উপজেলা ছাত্রলীগের সকল ইউনিটকে প্রস্তুতি গ্রহনের নির্দেশ জানানো হলো।’

এর আগে সালিমা আক্তার শান্তাকে সমর্থন দিয়ে সকল প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সড়ে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছিল। গত ৩ মে সোমবার নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী প্রার্থীদেরকে ডাকা হয়েছিল বর্তমান চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুলের বাসায়। সেখানে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির নেতারা সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে সালিমা হোসেন শান্তাকে সুযোগ দিয়ে অন্যদেরকে নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়ানোর জন্য বলা হয়। কিন্তু অন্য প্রার্থীরা তা মেনে নিতে অস্বীকার করায় শেষ পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই বৈঠকের সমাপ্তি করা হয়েছিল। আর এরাই নির্বাচনী মাঠে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাচ্ছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও