বন্দরে সানু ও শান্তার জয়

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৫:৫৫ পিএম, ১৮ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার

বন্দরে সানু ও শান্তার জয়

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় নির্বাচনে ভোটে বিপুল ব্যবধানে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে সানাউল্লাহ সানু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ছালিমা হোসেন শান্তা।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) বন্দরের ৫৪টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে এ ভোট হয়। এতে ভোটারদের উপস্থিতি একেবারেই কম ছিল।

এবারের উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়ে গেছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী এম এ রশিদ।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে জাতীয় পার্টি নেতা ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু উড়োজাহাজ প্রতীকে ১১৬৪৪ ভোট পেয়েছেন, আকতার হোসেন বই প্রতীকে ২৪৬৮ ভোট পেয়েছেন, নুরুজ্জামান তালা প্রতীকে পেয়েছেন ২৪০৯ ভোট, হাফেজ পারভেজ হাসান চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ২৬৮ ভোট ও শহীদুল ইসলাম জুয়েল টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন পেয়েছেন ৪৮৭ ভোট।

এখানে ভোট মোট পড়েছে ১৭৩৩৮টি। এর মধ্যে বাতিল হয়েছে ৬২টি ভোট।

এদিকে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান নারী ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতার কলস প্রতীকে পেয়েছেন ৪১৪২ ভোট, ছালিমা হোসেন শান্তা ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ১১৩৩৭ ভোট ও যুব মহিলা লীগ নেত্রী নুরুন্নাহার সন্ধ্যা হাঁস প্রতীক পেয়েছেন ১৮১০ ভোট।

এখানে ভোট মোট পড়েছে ১৭৩৩৫টি। এর মধ্যে বাতিল হয়েছে ৪৬টি ভোট।

এবারের বন্দর উপজেলা নির্বাচনের ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৫৫৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৫৮ হাজার ও নারী ভোটার সংখ্যা ৫৬ হাজার ২৬৪ জন। সেই সাথে ভোট কেন্দ্র রয়েছে ৫৪ টি। এর মধ্যে ঝূকিপূর্ণ হিসেবে ৪০ টি কেন্দ্র এবং সাধারণ হিসেবে ১৪ টি কেন্দ্র ধরা হয়েছে।

চেয়ারম্যান পদে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা ছিলেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে জাতীয় পার্টি নেতা ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু উড়োজাহাজ, আকতার হোসেন বই, নুরুজ্জামান তালা, হাফেজ পারভেজ হাসান চশমা ও শহীদুল ইসলাম জুয়েল টিউবওয়েল প্রতীক পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। কিন্তু এসকল প্রার্থীদের মধ্যে জাতীয় পার্টি নেতা ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানুকে সমর্থন দিয়ে অন্যদেরকে নির্বাচনী মাঠ থেকে সড়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে সমাঝোতার প্রচেষ্টা চালানো হয়। পাশাপাশি নির্বাচনী মাঠ থেকে সড়ে না দাঁড়ালে হুমকি প্রদানেরও অভিযোগ ছিল। ফলে শেষ পর্যন্ত পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা সানাউল্লাহ সানুর উড়োজাহাজ প্রতিককে সমর্থন দিয়ে নির্বাচনী মাঠে তারা নিরব হয়ে যান।

এদিকে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান নারী ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতার কলস, সালিমা হোসেন শান্তা ফুটবল ও যুব মহিলা লীগ নেত্রী নুরুন্নাহার সন্ধ্যা হাঁস প্রতীক পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। এদের মধ্যেও সালিমা হোসেন শান্তা ছাড়া বাকীদের বসিয়ে দেয়ার চাপ প্রয়োগ করার অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা সড়ে দাঁড়ালেও নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠ থেকে সড়ে যাননি। সেই সাথে তারা শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় ছিলেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও