বলয়ের বাইরে ঐক্যবদ্ধে প্রচেষ্টায় হাই আনোয়ার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৫ পিএম, ১৯ জুন ২০১৯ বুধবার

বলয়ের বাইরে ঐক্যবদ্ধে প্রচেষ্টায় হাই আনোয়ার

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে সবসময় শক্তিশালী অবস্থানে থাকে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলয় ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর বলয়। আর এই দুইটি বলয়ের নেতারা নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে নিজেদের প্রভাব ধরে রাখার জন্য সবসময় প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ হয়ে থাকেন। ফলে তাদেরকে ঘিরেই নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের রাজনীতি পরিচালিত হয়ে থাকে। এখন পর্যন্ত এই দুই বলয়ের বাইরে ঘিরে কেউই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে বেশি সুবিধা করতে পারেন নি।

তবে সাম্প্রতিক নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন শামীম ও আইভী বলয় এড়িয়ে গিয়ে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। সেই সাথে বলয়ের বাইরে গিয়েই তারা ঐক্যবদ্ধ হওয়ারও প্রচেষ্টা চালিয়ে চাচ্ছেন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে নেতাকর্মী সমর্থকদেরকেও বলয়ের রাজনীতি পরিত্যাগ করার আহবান জানাচ্ছেন। সর্বশেষ মহানগর আওয়ামীলীগের ইফতার পার্টিতে এই দুই নেতা উপস্থিত থেকে সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবানা জানিয়েছেন।

জানা যায়, আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠার পর থেকে বর্তমান পর্যন্ত ওসমান এবং চুনকা বলয়ের বাইয়ে গিয়ে কেউ রাজনীতি করেনি। ওসমান বলয়ের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর একেএম শামসুজ্জোহার পরিবার এবং চুনকা বলয়ের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন বঙ্গবন্ধুর আরেকজন ঘনিষ্ট সহচর আহমেদ আলী চুনকার পরিবারের সদস্যরা। বর্তমানে ওসমান বলয়ের প্রতিনিধিত্ব করছেন আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমান এবং চুনকা বলয়ের প্রতিনিধিত্ব করছেন দেশের প্রথম মহিলা মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

বর্তমান পর্যন্ত যারাই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে আসছেন তারাই কোন না কোন বলয়ের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়ে আসছেন। এই দুই বলয়ের বাইরে গিয়ে কেউ নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেননি। বিভিন্ন সময় এই দুই বলয়ের বাইরে গিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করলেও কেউ সফল হয়নি। তারই ধারবাহিকতায় এবারও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদেরকে বলয়ের বাইরে নিয়ে আসার প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আব্দুল হাই জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার আগে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। জেলা পরিষদের প্রশাসক থেকে সরাসরি তাকে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত করা হয়। দলীয় প্রয়োজনে কোন কোন সময় শামীম বলয়ে ও আইভী বলয়ে ভিড়লেও এতে তিনি স্থায়ী হননি। বলয় ভিত্তিক বিভিন্ন কোন্দলেও তিনি নিরব ভূমিকা পালন করেছেন। সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী সময়েও শামীম বলয় ও আইভী বলয়ের মধ্যে চলমান উস্কানীমূলক ইস্যুতেও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই নিরবে থেকে পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করেছেন।

একইভাবে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনও ক্রমশ শক্তিমান হচ্ছেন। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন একই সঙ্গে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন আনোয়ার হোসেন। ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সাময়িক সময়ের জন্য শামীম বলয়ে ভিড়লেও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই আনোয়ার হোসেন ধীরে ধীরে ওই বলয় থেকে দূরে আসেন। একসময় তিনি আইভী বলয়েও রাজনীতি করেছেন। কিন্তু বর্তমানে তিনি কোন বলয়েই ভিড়ছেন না। বলয় ভিত্তিক রাজনীতিকে এড়িয়ে চলছেন আনোয়ার হোসেন।

সেই ধারবাহিকতায় এবার বলয়ের বাইরে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদেরকে ঐক্যের ডাক দিয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। আওয়ামীলীগকে একটি বড় পরিবার বলে সকল অনৈক্য ও ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হওয়ায় আহবান জানিয়েছেন বর্ষীয়ান এ দুই নেতা। যদিও নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচনের শুরু পরে থেকে এই দুই নেতা মধ্যে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়েছিল। তবে এবার তাদের মধ্যে চলে আসা মান অভিমান ভুলে গিয়ে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে ঐকবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে আসছেন।

গত ২৭ মে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে এক মঞ্চে আনোয়ার হোসেন ও আব্দুল হাই উপস্থিত হন। এই দুই নেতাকে এক মঞ্চে উপস্থিত দেখে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যেও উৎফুল্লতা দেখা যায়।

বক্তব্য রাখতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, বর্তমানে আমরা ক্ষমতায়, তাই এই দল যেন ঐক্যবদ্ধ থাকে এবং এখানে যেন কোন বিভেদ না থাকে। আমরা যেন ভাইয়ে ভাইয়ে মিলে থাকি, একই টেবিলে মিলে থাকি সেটিই আমরা চাই। আওয়ামীলীগ একটি বড় দল এখানে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকবে তবে সেটা যেন বিভেদে পরিণত না হয়। আমরা সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে আজকের পর থেকে এক হয়ে কাজ করবো এটাই সকলের প্রত্যাশা।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেছেন, আমরা মানুষের সেবার জন্য রাজনীতি করি কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদেরকে তাই শিখিয়েছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ উন্নতির দিকে বাধাহীনভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আজকে জাতির জনক শেখ মুজিব যদি বেঁচে থাকবেন থাইল্যান্ড সিঙ্গাপুরের মত আজকে হয়তো দেশ উন্নত থাকতো। তার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নেই আজকে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বড়দল হিসেবে আওয়ামীলীগে সাময়িক সময়ের জন্য অনৈক্য সৃষ্টি হতে পারে। তবে এটাকে স্থায়ী করা যাবে না।

তাদের এই বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে নতুন আলাপ আলোচনা শুরু হয়েছে। বলয়েয় বাইরে বেড়িয়ে আসায় তৃণমূল পর্যায়ের অনেক নেতা তাদেরকে স্বাগত জানিয়েছেন।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও