ধর্ষণ ইস্যুতে আলেম সম্প্রদায়ের নিরবতা প্রশ্নবিদ্ধ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫৭ পিএম, ৭ জুলাই ২০১৯ রবিবার

ধর্ষণ ইস্যুতে আলেম সম্প্রদায়ের নিরবতা প্রশ্নবিদ্ধ

নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন সময় শিক্ষকদের উপর ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে। তবে এবার একটি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ১২ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় বেশ আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। তবে যে কোন ইস্যুতে আলেম সম্প্রদায় আওয়াজ তুললেও ধর্ষণ ইস্যুতে একেবারে নিরব ভূমিকা পালন করছেন। এতে করে জনমনে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে। আর আলেম সম্প্রদায়ের এই বিরবতা তাদের অবস্থানকে বেশ প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আলেম সম্প্রদায় সকল ইস্যুতে আওয়াজ তুলে আলোচনায় উঠে আসলেও ধর্ষণ ও জনদুর্ভোগের মত ইস্যুতে কখনো মাঠে নামেনি। এতে করে ধর্ষণ ইস্যুতে তাদের অবস্থান বেশ প্রশ্নবিদ্ধ অবস্থানে চলে গেছে।

জানাগেছে, হেফাজতে ইসলাম, উলামা পরিষদ, ইসলামী আন্দোলন, খেলাফতে মসজিল, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সহ আরো বেশ কিছু ইসলামিক সংগঠন যে কোন ইস্যুতে তাদেরকে আন্দোলনে নামতে দেখা যায়। মিছিল, বিক্ষোভ মিছিল, সভা, সমাবেশ সহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে কঠোর আন্দোলনের মধ্য দিয়ে নানা ইস্যুতে এই ইসলামিক সংগঠনগুলোকে রাজপথ কাঁপাতে দেখা গেছে। তবে এবার সেই আলেম সম্প্রদায়ের রাজপথ কাঁপানো সংগঠনগুলো ধর্ষণ ইস্যুতে একেবারে নিরব ভূমিকা পালন করছেন।

সম্প্রতি ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকার বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল আমিনকে ১২ ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে আটকের পর ধর্ষণের নানা চাঞ্চল্যকর ঘটনা বেরিয়ে আসছে। তার বিরুদ্ধে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

উভয় মামলাতে উল্লেখ আছে যে, মাদ্রাসায় অধ্যয়নকালে একাধিক ছাত্রীকে মূলত পানি পানের প্রলোভনে ঘরে ডেকে নিত আল আমিন। এছাড়া বই পত্র গোছানো সহ নানা ইস্যুতে ছাত্রীদের নিজের ঘরে ডেকে নিতেন তিনি। আর ওই সময়েই করতেন ধর্ষণ। এসব ঘটনার সময়ে আল আমিনের স্ত্রী বাসায় থাকতেন না। মূলত তার অবর্তমানেই এসব অনৈতিক কাজগুলো হতো।

মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়, বিভিন্ন ছাত্রীর মাথা কেটে অন্য পর্ণোগ্রাফি ছবির সঙ্গে যুক্ত করতেন আল আমিন। আর এসব ছবি দেখিয়ে ওইসব ছাত্রীদের ব্ল্যাকমেইলিং করা হতো।

বৃহস্পতিবার ৪ জুলাই সকাল ১১টায় সদর উপজেলার ফতুল্লার মাহমুদপুর ইউনিয়নের মাহমুদপুর এলাকায় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার মুঠোফোন ও কম্পিউটারে তল্লাশি চালিয়ে পর্নোগ্রাফি ভিডিও পাওয়া গেছে।

এর আগে সিদ্ধিরগঞ্জের একটি স্কুলে এর চেয়েও ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনায় র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন জানান, নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকার অক্সফোর্ড হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক আরিফুল ইসলামকে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে কয়েকদিন আগে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ২০ এর বেশী ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। ওই ঘটনার সংবাদ বিভিন্ন টেলিভিশনে প্রচারিত হয়। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও বিষয়টি ছড়িয়ে আলোচিত হয়ে উঠে। ফেসবুকে ওই সংক্রান্ত একটি খবর দেখছিলেন বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার এক ছাত্রীর মা। তখন পাশে শুয়ে থাকা ওই মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী তার মাকে বলে, ‘এই শিক্ষক (আরিফুল) গ্রেফতার হয়েছেন। কিন্তু আমাদের মাদ্রাসার হুজুরকে কেন গ্রেফতার করা হয় না?’ এ কথা শুনে ওই শিশুর মা জানতে চান, ‘কেন, কী হয়েছে?’ তখন ওই তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী তার মাকে বলে, মাদ্রাসার শিক্ষক আল আমিন মেয়েদের ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন। আমার ওই মাদ্রাসায় যেতে ভালো লাগেনা। আমি মাদ্রাসায় আর যাব না। পরে ওই ছাত্রীর মা বিষয়টি র‌্যাবকে জানান। র‌্যাব অনুসন্ধানে নেমে জানতে পারে, ২০১৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত ওই শিক্ষক মাদ্রাসার ১০ থেকে ১২ জন ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। এ ছাড়া ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন হয়রানির অভিযোগও পাওয়া গেছে। এরপরই তাকে আটক করা হয়।’

র‌্যাব জানায়, মাদ্রাসার ভেতরে পরিবার নিয়ে থাকতেন আল আমিন। বাসায় তাঁর স্ত্রী না থাকলে বা মাদ্রাসা ছুটি হলে নানা কৌশলে আল আমিন ছাত্রীদের মাদ্রাসায় ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন হয়রানি করতেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই শিশুদের ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন হয়রানির কথা স্বীকার করেছেন।

এ ব্যাপারে হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলার আমির ও ডিআইটি মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল আউয়াল বলেন, আমি হজ পালন করতে সৌদি আরবে যাচ্ছি। তাই এ বিষয়ে এখন কোন পদক্ষেপ নিতে পারছিনা।

হেফাজত নেতা মুফতি হারুন বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে সংগঠনের নেতাদের সাথে আলোচনা করবো। এরপর সকলের সম্মতিক্রমে আশা করছি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ইসলামিক সংগঠনগুলো যে কোন ইস্যুতে রাজপথ কাঁপিয়ে মাঠ গরম করে তোলে। কিন্তু ধর্ষণের মত ন্যাক্কারজনক ইস্যুতে তাদের কখনো প্রতিবাদ জানাতে দেখা যায়নি। তার উপরে মাদ্রাসার কোন শিক্ষক যদি ধর্ষণের মত ঘটনার সাথে জড়িত থাকে সেক্ষেত্রেও তারা নিরব ভূমিকা পালন করছে। এতে করে সকলের মনে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও