হকারদের পুনরায় সংগঠিত করছেন হাফিজুল

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৭ পিএম, ১২ জুলাই ২০১৯ শুক্রবার

হকারদের পুনরায় সংগঠিত করছেন হাফিজুল

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের কঠোর সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে হকার বসার জন্য আবারও সংগঠিত হতে শুরু করেছে হকাররা। দীর্ঘদিন এসপি হারুনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য বিরোধীতা কিংবা প্রতিবাদ করার সাহস না দেখালেও এবার সিপিবির জেলা সভাপতির প্রশ্রয়ে আন্দোলনে নেমেছে হকাররা। বঙ্গবন্ধু সড়ক ব্যতিত অন্যত্র বসার সুযোগ থাকলেও জোরপূর্বক ফুটপাত দখলে আন্দোলনে নেমেছে হকাররা।

গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে হকাররা জড়ো হয়ে নিজেদের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে উপনীত হবার চেষ্টা করলেও এই প্রথম প্রকাশ্যে মাঠে নামতে সক্ষম হয়েছে তারা। নতুন করে দানা বাধা এই আন্দোলনে সিপিবি নেতা হাফিজুল ইসলাম তার সঙ্গী হিসেবে পেয়েছেন সমাজতান্ত্রীক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, বিপ্ল¬বী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, এম এ শাহীন সহ বেশ কিছু শ্রমিক নেতাকে। যদিও বাসদের পক্ষ থেকে জাহাঙ্গীর আলম গোলকের অবস্থানকে ব্যক্তিগত বলে জানিয়ে দিয়েছেন সংগঠনটির জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাস।

২০১৮ সালে হকার ইস্যুকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা সংঘর্ষের আগ পর্যন্ত হকারদের নিয়ে আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন বিভিন্ন বাম দলের নেতাকর্মীরা। পরবর্তীতে হকার বসার সিদ্ধান্তের পর জড়িয়ে পড়ায় হকারদের ত্যাগ করেন এসকল নেতারা। দাবী করেন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ায় তাদেরকে ত্যাগ করেছেন তারা। অহিংস এই আন্দোলনে সহিংস রূপ দেয়া কোনভাবেই তাদের দায় নেই।

পরবর্তীকালে হকারদের এই সড়কের ফুটপাত দখল নিয়ে বামেদের সমর্থন পাবেনা বলে জানিয়ে দেয়ায় হকাররা অনেকটাই নেতৃত্ব শূন্য হয়ে পরে। তবে নতুন করে এসপি হারুনের সিদ্ধান্তের পর দীর্ঘদিন একা থাকার পড়ে অবশেষে তাদের সঙ্গী হয়েছেন সিপিবির জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম। এর আগে হকার নেতারা শামীম ওসমানের দ্বারস্থ হলেও সেখান থেকে খালি হাতেই ফিরে আসেন তারা। নতুন করে এই আন্দোলন পুনরায় সংঘর্ষ তৈরী করতে পারে এমন আশঙ্কা করছেন শহরের বাসিন্দারা।

তবে হাফিজুল ইসলামের সাথে সমাজতান্ত্রীক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু থাকলেও বাসদের জেলা সমন্বয়ক বলেন, হকারদের চলমান আন্দোলনের সাথে বাসদের কোন সমর্থন নেই। বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাত দখল করে হকারি ব্যাবসা মোটেও সমর্থন যোগ্য নয়। নতুন করে তারা যেই আন্দোলন শুরু করেছে তার সাথেও আমাদের সম্পৃক্ততা নেই। তবে তাদের পুনর্বাসন হোক এটি অবশ্যই দাবী থাকবে আমাদের তরফ থেকে।

একই ভাবে বেশ কয়েকজন বাম নেতাও তাদের তরফ থেকে এই ইস্যুতে নিজেদের বিপক্ষে অবস্থান দাঁড় করিয়েছেন। অন্তত বঙ্গবন্ধু সড়কে হকার কোণভাবেই সমর্থন পেতে পারে না। এছাড়া এই সড়কে হকারদের থেকে যেই পরিমান চাঁদাবাজি হয় তার দায় ও এই আন্দোলনের নেতারা এড়িয়ে যেতে পারে না বলে মনে করছেন তারা।

নগর বিশ্লেষকদের মতে, কতিপয় বাম নেতাদের পুনরায় আন্দোলনের নেতৃত্ব শহরে হকারদের নতুন করে উত্তপ্ত করছে। এসপি হারুনের উদ্যোগকে যেখানে শহরবাসী সাধুবাদ জানিয়েছে সেখানে হাফিজুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা দুর্ভোগ ডেকে আনার আন্দোলন একেবারেই অযৌক্তিক। অতীতে হকারদের আচরণ দেখেও পুনরায় হকারদের নিয়ে এই রাজনীতির যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনায় দায় এরা এরাতে পারেন না।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও