এবার থানা কমিটি নিয়ে বিতর্কে জেলা যুবদল

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৩ পিএম, ২০ জুলাই ২০১৯ শনিবার

এবার থানা কমিটি নিয়ে বিতর্কে জেলা যুবদল

দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপির ক্ষমতার বাইরে থাকাবস্থায় দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে নিস্ক্রিয় ছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল। আর সেই নিস্ক্রিয় থাকা নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের গতি ফিরাতে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেই সাথে কয়েক মাসের ব্যবধানে পূর্ণাঙ্গ কমিটিও ঘোষণা করে দেয়া হয়। কিন্তু এই কমিটির ঘোষণার পর একের পর এক বিতর্কিত কর্মকান্ডে জড়িয়ে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল। কখনও কমিটি নিয়ে, কখনও বিতর্কিত নেতাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে এবং সর্বশেষ থানা কমিটি গঠন নিয়ে বিতর্কের জন্ম দিয়েতে জেলা যুবদল। পাশাপাশি দলীয় কর্মসূচি পালনে তাদের ব্যর্থতা তো রয়েছেই। সবমিলিয়ে জেলা যুবদল বিতর্কের বাইরে যেতে পারছে না।

সূত্র বলছে, দীর্ঘ প্রায় কয়েক যুগ ধরেই আহবায়ক কমিটি দিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছিল। কোন সময়ই এর পূর্ণাঙ্গতা পায়নি। তবে দীর্ঘদিনের সেই রেকর্ড ভঙ্গ করে গত ২৩ মার্চ নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের ২০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর আগে ২০১৮ সালের ১৯ অক্টোবর ফতুল্লা থানা যুবদলের সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটুকে সভাপতি ও রূপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সভাপতি গোলাম ফারুককে সাধারণ সম্পাদক করে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর ৫ মাস পরই জেলা যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে। যা এর আগে কখনও এত অল্প সময়ের মধ্যে কমিটির ঘোষণা হয়নি।

নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার শুরুতেই দেখা দেয় বিতর্ক। জেলা যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ একাধিক শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে কমিটি নিয়ে পদ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠে। পদ দেয়ার বিনিময়ে নেতাকর্মীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। ফলে যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পেয়ে যায় দীর্ঘদিন ধরে নিস্ক্রিয় থাকা নেতাকর্মীরাও। যার সূত্র ধরে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে জেলা যুবদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে কোন রকম উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা যায়নি। এতদিন পর জেলা যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলে নেতাকর্মীদের মধ্যে এর প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়নি।

সেই বিতর্কের রেস কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই জেলা যুবদলের সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটু নিজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মনিরুল আলম সেন্টুর পক্ষ থেকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। যে মনিরুল আলম সেন্টুর বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে কোন পদ নেই। সে একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আর তার পক্ষ থেকে জেলা যুবদলের সভাপতি হয়ে শহীদুল ইসলাম ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সেই সাথে মো. মনিরুল আলম সেন্টু বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকান্ডের কারণে কয়েকবার দল থেকে বহিস্কারও হয়েছেন। নিজের চেয়ারম্যান পদ টিকিয়ে রাখার জন্য বিএনপি নেতা হয়েও ক্ষমতাসীন দলের সাংসদদের ‘পীর’ মানেন তিনি। সর্বশেষ গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়ার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের সাংসদদের পক্ষে কাজ করেছেন তিনি। আর তার পক্ষেই জেলা যুবদলের সভাপতি হয়ে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন শহিদুল ইসলাম টিটু।

সেই সাথে দলীয় কর্মসূচি পালনে বিতর্কে থেকে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের। কমিটি গঠনের শুরু থেকেই বিএনপি দলীয় কর্মসূচিতে তাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ দেখা যাচ্ছে না। পদে থাকা নেতাদের বেশিরভাগই থাকেন অনুপস্থিত। সর্বশেষ গত ১৫ জুন কর্মসূচির নামে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলকে ৪ মিনিটের ফটোসেশন করতে দেখা গেছে। কর্মসূচির শুরুর আগে নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নেয়াকালেও পুলিশের উপস্থিতি ছিল না। পুলিশের কোন বাধা না থাকা সত্ত্বেও নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল ৪ মিনিটের মধ্যেই তাড়াহুড়ো করে তাদের কর্মসূচির সমাপ্তি করে দেন। যা নিয়ে তৃণমূলে দেখা যায় ক্ষোভ। তারা এটাকে শীর্ষ নেতাদের স্ট্যান্টবাজি হিসেবে ধরে নেন।

সেই সকল ঘটনার পর এবার ফতুল্লা থানা যুবদলের কমিটি গঠন নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদল ফের বিতর্কের জন্ম দেন। গত ২৭ জুন মাসুদুর রহমান মাসুদকে আহবায়ক ও সালাহউদ্দিনকে সদস্য সচিব করে ফতুল্লা থানা যুবদলের ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায় কমিটি ঘোষণা করা হয়। যে কমিটি পদধারী অনেক নেতা জেলার যুবদলেরও শীষ পদধারী। তারা এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় নির্দেশনাকে উপেক্ষা করেছেন। পাশাপাশি এই কমিটিতেও নিস্ক্রিয় নেতাদেরকে জায়গা দেয়া হয়েছে। সেই সাথে অনেক বিতর্কিত নেতারাও রয়েছেন। ফলে এই কমিটি নিয়েও সন্তুষ্ট নয় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। আর এভাবেই একের পর এক বিতর্কিত কর্মকান্ড করে যাচ্ছেন জেলা যুবদল।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও