এক মঞ্চে কায়সার ও কালাম : দিলেন ঐক্যের ডাক

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৩ পিএম, ২২ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার

এক মঞ্চে কায়সার ও কালাম : দিলেন ঐক্যের ডাক

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনের সাবেক সাংসদ আব্দুল্লাহ আল কায়সার বলেছেন, ‘২০০৪ সালে কাঁচপুরে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে যে আন্দোলনের ডাক আমরা দিয়েছি। সেই আন্দোলনটাই অল্প দিনে সমগ্র দেশে ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে সকলের ভোটে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। আমরা প্রকৃত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আজ ঐক্যবদ্ধ আছি এবং এই ঐক্য ধরে রাখতে হবে। ২৪ আগস্ট সোনারগাঁয়ে যে জনসভা হবে তার সফলতায় সবার উপস্থিতি বিশেষভাবে কামনা করছি’।

২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত ও আহতদের স্মরণে সানারগাঁয়ের মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় ২৪শে আগস্ট আয়োজিত জনসভা সফল করতে কাঁচপুর ইউনিয়ন যুবলীগের প্রধান কার্যালয়ের সম্মুখে ২২ আগস্ট বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় এক প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত থেকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম খাঁন লিটনের সার্বিক তত্বাবধানে ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুমের সঞ্চালনায় সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম, সমাজকল্যাণ সম্পাদক জামান, মোগড়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু, জামপুর ইউপি চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলু, সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী মজিবুর রহমান, সনমান্দী ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন সাবু, জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া, কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল শ্রমিক লীগের সভাপতি হাজী মান্নান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক হাজী ইসহাক মোল্লা, সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী কামাল হোসেন, সহ-সভাপতি মতিউর রহমান, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মনির হোসেন, প্রচার সম্পাদক নাসির উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা এড. ফজলে রাব্বি, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম রবিন, সোনারগাঁও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল মাহমুদ, জেলা তাঁতী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি দেওয়ান কামাল, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সজীব, জামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ কবির সুমন, কাঁচপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীন, সহ-সভাপতি তারেক, যুগ্ম সম্পাদক রাসেল, ৪নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি হাজী জামান, ২নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রাজীব, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন, কাঁচপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাসুম আহম্মেদ, যুগ্ম সম্পাদক আল আমিন খাঁন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোমেন কবির, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ইমরান হোসেন, কাওসার, পাবেল, জুয়েল, এরশাদ, সেলিম, যুবলীগ নেতা জাকির, কাজল, জনি, জেলা ছাত্রলীগের সদস্য নাসির সহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী ও সমর্থক উক্ত প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন।

১৫ জুলাই শামসুল ইসলাম ভূঁইয়াকে আহবায়ক এবং পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুমকে যুগ্ম আহবায়ক এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু ওমর, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার ফেন্সী ও সামসুদ্দিন খান আবুকে সদস্য করে ৮ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়।

এর পর পরেই জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ তাদের বিরুদ্ধে শক্ত প্রতিবাদ জানান। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বরবার জেলা আওয়ামী লীগের ৪০ সদস্য বিশিষ্ট নেতার স্বাক্ষর সম্বলিত অভিযোগ দেয়ার সময় তিনি এই ‘আহবায়ক কমিটিকে’ অগঠনতান্ত্রিক ও অবৈধ বলে মন্তব্য করেন। একই সাথে এই আহবায়ক কমিটি ঘোষণার পর থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক ভিপি বাদল সমালোচিত হতে শুরু করেন।

এ কমিটি নিয়ে সোনারগাঁয়ের কায়সার ও কালামের মধ্যে ক্ষোভ আছে। এ দুইজন এখন এক মঞ্চে থাকলেও এক সময়ে ছিলের তীব্র বিরোধী।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও